Madhubani Goswami : একেই বলে শ্যুটিং! মধুবনীর জন্মদিনে দু’বার খণ্ডিত কেক, গোপনকথা ফাঁস স্বামী রাজার

নেটিজেনদের কাছেও ধরা দিলেন রাজা ও মধুবনী

শ্যুটিঙে যে রকম হয়, সে রকমই হল মধুবনী গোস্বামীর (Madhubani Goswami) জন্মদিনে ৷

  • Share this:

    কলকাতা : শ্যুটিঙে যে রকম হয়, সে রকমই হল মধুবনী গোস্বামীর (Madhubani Goswami) জন্মদিনে ৷ অভিনেত্রীর পোস্ট করা ভিডিয়োর শেষ অবধি না দেখলে অবশ্য সে কথা বোঝা যাবে না ৷

    বৃহস্পতিবার ছিল মধুবনীর জন্মদিন ৷ সে দিন অসংখ্য নেটিজেন তাঁকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান ফেসবুকে ৷ কিন্তু তিনি কীভাবে উদযাপন করলেন বিশেষ দিনটি? সেটা অন্যদের সঙ্গে মধুবনী ভাগ করে নিলেন শুক্রবার ৷

    শুক্রবার দুপুরে একটি ভিডিয়ো পোস্ট করেন তিনি ৷ সেখানে দেখা যাচ্ছিল বাড়িতে আড়ম্বরহীন আয়োজনে টেবিলে রাখা কেক কাটতে যাবেন তিনি ৷ তিনি একাই ৷ কিন্তু তাঁর মেজাজ গরম, কারণ কথা দিয়েও স্বামী রাজা পৌঁছননি ঠিক সময়ে ৷

    তাই যিনি ভিডিয়ো তুলছেন, তাঁকে বার বার ভিডিয়ো তুলতে নিষেধ করছেন মধুবনী ৷ এদিকে, উল্টোদিকে থাকা তিনিও নাছোড়বান্দা ৷ মধুবনীকে দিয়ে কেক কাটাবেনই ৷ ভিডিয়োও করবেন ৷ কিন্তু মধুবনী বলে যাচ্ছেন, রাজা না এলে তিনি কিছুতেই জন্মদিনের কেকে ছুরি বসাবেন না ৷

    তাঁর আপত্তি সত্ত্বেও এত জোর করছেন কেন ভিডিয়োগ্রাহক? কারণ আর কিছুই নয় ৷ মধুবনীর পিছনেই দাঁড়িয়ে আছেন রাজা ৷ তিনি লুকিয়ে ছিলেন এতক্ষণ ৷ স্ত্রীকে সারপ্রাইজ দেবেন বলে তাঁর সামনে আসছেন না ৷ পিছনে দাঁড়িয়ে ক্রমাগত মজার অঙ্গভঙ্গি করে চলেছেন ৷

    কিছুক্ষণ পরেই অবশ্য স্ত্রীর কাছে ধরা পড়ে গেলেন তিনি ৷ নেটিজেনদের কাছেও ধরা দিলেন রাজা ও মধুবনী ৷ জানালেন, এটা ‘ফেক’ বা ‘নকল’ ভিডিয়ো ৷ রাজার কথায়, তিনি দুশো ফুট দূরে থাকলেও তাঁর স্ত্রী ঠিক টের পাবেন ৷ আর এতো সামান্য দু’ ফুট!

    তাঁর রসিকতার পরই মধুবনীর কপট রাগ, এত মহড়ার পর সবকিছু দর্শকদের বলে দিলেন রাজা! সে কথা তো ছিল না!

    রাজা শুধু বললেনই না ৷ ফাঁস করলেন অন্য গোপনীয়তাও ৷ দেখালেন কেকটি ইতিমধ্যে একবার কাটা হয়ে গিয়েছে! কারণ সে বার যান্ত্রিক গোলযোগের জন্য রেকর্ড করে ওঠা যায়নি! অতএব, একই কেক দু’বার খণ্ডিত মধুবনীর জন্মদিনে ৷

    রাজা ও মধুবনী দেখাতে চেয়েছিলেন শ্যুটিঙের খুঁটিনাটি ৷ তাই এই অভিনব আয়োজন ৷ কেক কাটা পর কী হল? তত ক্ষণে অবশ্য ক্যামেরা বন্ধ হয়ে গিয়েছে ৷ বাকিটা রইল অন্দরেই...

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: