মেয়ে নাইসার ১৮ বছরের জন্মদিনে ভয় ও আতঙ্কের কথা জানালেন কাজল !

মেয়ে নাইসার ১৮ বছরের জন্মদিনে ভয় ও আতঙ্কের কথা জানালেন কাজল !

kajol and Nysa

মেয়ের পড়াশুনোর জন্য কাজল বেশির ভাগ সময় বিদেশে মেয়ের সঙ্গেই থাকেন। এক মুহূর্তও চোখ ছাড়া করেন না আদরের কন্যাকে।

  • Share this:

    #মুম্বই: কাজল ও অজয় দেবগন। বলিউডের দুই মিষ্টি জুটি। এক সঙ্গে কাজ করতে করতেই তাঁদের প্রেমের শুরু। তবে জানেন কি প্রথম ছবির শ্যুটিংয়ে অজয় দেবগনকে দেখে কাজলের মনে হয়েছিল, এ আবার নায়ক? এর সঙ্গে কাজ করতে হবে? তবে তাঁরা দুজনেই তখন জানতেন না, একদিন তাঁরাই থাকবেন এক সঙ্গে। সে সময় কাজল অন্য কারও সঙ্গে প্রেম করছেন। আর অজয়েরও সঙ্গী অন্য কেউ। কিন্তু দু'জনেরই তাঁদের প্রেমিক-প্রেমিকাদের সঙ্গে মনের মিল হচ্ছিল না। আর নিজেদের এই অমিলের কথা শেয়ার করতে করতে তাঁরা হয়ে উঠলেন ভালো বন্ধু। তারপর সব সম্পর্ক ছেড়ে বেরিয়ে এসে একে অপরের হাত ধরলেন। প্রেম, ভালোবাসা তারপর বিয়ে।

    আবার সেই বিয়েতে মত ছিল না কাজলের বাবার। কারণ অজয় দেবগনকে পছন্দ ছিল না কাজলের বাবার। চার বছর মেয়ের সঙ্গে কথা বলেননি তিনি। তারপর যদিও সব ঠিক হয়েছে। ঠিক ১৮ বছর আগে আজকের দিনে প্রথম সন্তানের জন্ম দেন কাজল। জন্ম হয় মেয়ে নাইসার। এখন তাঁর বয়স ১৮। মেয়ের জন্মদিনে আবেগে ভাসলেন কাজল। তিনি নিজের ইনস্টাগ্রামে নাইসার সঙ্গে একটি ছবি পোস্ট করে লিখলেন, " তুমি জান, যখন তুমি জন্মেছিলে আমি সব থেকে বেশি আতঙ্কে ছিলাম। ভয় পেয়েছিলাম। সেই নার্ভাসনেস আর ভয় আমায় এক বছর তাড়া করেছিল। যা খুব আনন্দের। আবার ভয়েরও ছিল মার কাছে। কি ভাবে বড় করবো , কি শেখাবো তোমায় , আমায় ভাবাত। সেই দিনের থেকে বেশি উত্তেজনা আমার আর কখনও হয়নি। তারপর তোমার দশ বছর বয়স হল। আমি বুঝলাম আমি তোমার যতটা শিক্ষক ছিলাম, তার থেকে অনেক বেশি আমি তোমার কাছ থেকে শিখেছি। আজ তোমার সঙ্গে আমি উড়ে যেতে পারি। তুমি আমার পৃথিবী। এখন তুমি এডাল্ট। আমি জানি তোমার কাছে সততার অস্ত্র আছে, সে গুলোকে কাজে লাগিয়ে এগিয়ে যাও জীবনে।" এই পোস্ট দেখা মাত্রই মাধুরী দিক্ষিত কমনে্ট করেন। আরও অনেক বলি সেলেবরা নাইসাকে শুভেচ্ছা বার্তায় ভরিয়ে দেন।

    View this post on Instagram

    A post shared by Kajol Devgan (@kajol)

    মেয়ের জন্মদিনে ছবি শেয়ার করে শুভেচ্ছা জানান অজয় দেবগনও। তাঁদের মেয়ে যে বড় আদরের তা তাঁরা বোঝালেন আরও একবার। প্রসঙ্গত, মেয়ের পড়াশুনোর জন্য কাজল বেশির ভাগ সময় বিদেশে মেয়ের সঙ্গেই থাকেন। এক মুহূর্তও চোখ ছাড়া করেন না আদরের কন্যাকে।

    Published by:Piya Banerjee
    First published: