তিরিশ পেরোলেন টাইগার শ্রফ, সকাল থেকেই শুভেচ্ছায় ভাসছেন বলিউডের 'হ্যান্ডসাম হাঙ্ক'

তিরিশ পেরোলেন টাইগার শ্রফ, সকাল থেকেই শুভেচ্ছায় ভাসছেন বলিউডের 'হ্যান্ডসাম হাঙ্ক'

নয় নয় করে ৯ বছর কাটিয়ে ফেলেছেন ইন্ডাস্ট্রিতে। মঙ্গলবার, ২ মার্চ একত্রিশে পা দিলেন বলিউডের এই মুহূর্তের অন্যতম আকর্ষণীয় হিরো টাইগার শ্রফ।

নয় নয় করে ৯ বছর কাটিয়ে ফেলেছেন ইন্ডাস্ট্রিতে। মঙ্গলবার, ২ মার্চ একত্রিশে পা দিলেন বলিউডের এই মুহূর্তের অন্যতম আকর্ষণীয় হিরো টাইগার শ্রফ।

  • Share this:

    #মুম্বই: নয় নয় করে ৯ বছর কাটিয়ে ফেলেছেন ইন্ডাস্ট্রিতে। মঙ্গলবার, ২ মার্চ একত্রিশে পা দিলেন বলিউডের এই মুহূর্তের অন্যতম আকর্ষণীয় হিরো টাইগার শ্রফ (Tiger Shroff)। ২০১৪ রূপালি পর্দায় আত্মপ্রকাশের পর অত্যন্ত অল্প সময়েই আরব সাগরের তীরে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে ফেলেছেন এই বলিউড বাঘ।

    বাবা জ্যাকি শ্রফ (Jackie Shroff), মা আয়েষা শ্রফ, বোন কৃষ্ণা শ্রফ সকলেই সোশ্যাল মিডিয়ায় টাইগারকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। হ্যাপি বার্থডে উইশ করেছেন বন্ধুবান্ধব ও অনুরাগীরাও। তবে ছেলের জন্মদিনটা বাবা জ্যাকি শ্রফ একটু অন্যভাবে কাটান।

    সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে জ্যাকি শ্রফ জানিয়েছেন প্রত্যেকবার টাইগারের জন্মদিনে তিনি ছেলের নামে একটি করে গাছ পোঁতেন। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না। যদিও সারাদিন আজ তিনি শুটিং করবেন। তবু তার ফাঁকেই সেরে ফেলবেন এই অনবদ্য কাজটি|

    কিন্তু বিশেষ জন্মদিনটি কীভাবে কাটাবেন ‘বার্থ ডে বয়’ নিজে? বাবা জ্যাকি জানিয়েছেন টাইগারের নিশ্চয়ই নিজের মত করে কোনও প্ল্যান থাকবে। তবে যাই থাকুক ডিনার তাঁরা আজ একসঙ্গে পারিবারিক পরিমণ্ডলেই করবেন।

    এইদিন টাইগার শ্রফের মজার একটি ছবি শেয়ার করে দিশা লিখেছেন, ‘ক্যাসানোভার শুভ জন্মদিন, সবসময় বাঁশের মতো জ্বলে …’ এই ছবিতে দিশা পাটানি টাইগার শ্রফকে ধরে রেখেছেন। ছবিতে তাঁর গায়ে একটি কালো শার্ট।

    উল্লেখ্য, দু'জনের কেউই এখনও স্বীকার না করলেও দিশা পাটনি এবং টাইগার শ্রফের ঘনিষ্ঠতা নিয়ে জল্পনা চলছে দীর্ঘদিন| হামেশাই দু'জনকে একসঙ্গে দেখা যায় লাঞ্চ, ডিনার এবং পার্টিতে।

    প্রসঙ্গত, টাইগার শ্রফ ২০১৪ সালের ছবি হিরোপান্তি দিয়ে বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন। ছবিতে অভিনয়, বিশেষত তাঁর নাচ সবার নজর কেড়েছিল। এই মুহূর্তে কৃতি শ্যাননের বিপরীতে ‘গণপত’ ছবিতে খুব শিগগিরই দেখা যাবে টাইগারকে।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: