মা গো মা, জামাই কুণাল খেমুর পরণে ছিল না কোনও পোশাক, যখন প্রথম দেখেছিলেন শর্মিলা ঠাকুর

Photo-Collected

এ কী কাণ্ড! শাশুড়ির সঙ্গে প্রথম সাক্ষাতের সময় গায়ে প্রায় কিছুই ছিল না কুণাল খেমুর!

  • Share this:

#মুম্বই: অভিনেতা কুণাল খেমু (Kunal Kemmu) ৩৮ বছর পার করলেন মঙ্গলবার। অভিনেত্রী সোহা আলি খানের (Soha Ali Khan) সঙ্গে সুখে সংসার করছেন তিনি। সম্প্রতি সোহা শেয়ার করেছেন পুরনো কিছু কথা। যেখানে জানতে পারা গিয়েছে সোহার মা অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুর (Sharmila Tagore) যখন প্রথম দেখা করেছিলেন কুণালের সঙ্গে, তখন ঠিক কী ঘটেছিল। সোহা বলেন তাঁর মায়ের সঙ্গে প্রথম যখন কুণাল দেখা করেন সেই মুহূর্তে অভিনেতা একটি বাথরোব পরেছিলেন। ওটা লজ্জা নিবারণ কতটা করে, সে নিয়ে বিতর্ক চলবে। তবে জিনিসটা যে অন্তর্বাসের মতোই, ওটা পরে যে কারও সঙ্গে দেখা করা চলে না, এ নিয়ে কেউ উল্টো মন্তব্য করবেন না। হবু শাশুড়ি এসেছেন শুনে তিনি চমকে গিয়েছিলেন। এই দম্পতি ২০০৯ সালে ঢুঁড়তে রেহ যাওগে (Dhoondte Reh Jaoge) ছবির শেটে প্রথম আলাপ সারেন। এর পর ভালোবাসার সম্পর্ক বেশ কয়েক বছর চলে। ২০১৫ সালে গাঁটছড়া বাঁধেন সোহা-কুণাল।

View this post on Instagram

A post shared by Kunal Kemmu (@kunalkemmu)

২০১২ সালে হিন্দুস্তান টাইমস-কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকার চলার সময় এই দম্পতিকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল যে তাঁরা কী ভাবে তাঁদের বাবা-মায়ের সঙ্গে একে অপরের বিষয়ে কথা বলেছিলেন। সোহা বলেছিলেন, যে তিনি তার বাবা মনসুর আলি খান পতৌদিকে (Mansoor Ali Khan Pataudi) তাঁদের সম্পর্কের কথা জানানোর জন্য মায়ের উপর নির্ভরশীল ছিলেন। তিনি বলেন, "আমি কখনই বাবাকে সরাসরি বলতে পারিনি কারণ ছেলে বন্ধু নিয়ে আমাদের কখনও আলোচনা হয়নি। এই বিষয়ে আমি আমার মায়ের উপর নির্ভরশীল ছিলাম। আমি মাকেই বলেছি কারণ, মা আমাকে বোঝেন এবং আমার পছন্দের উপর বিশ্বাস করতেন। মা আগে কুণালের সঙ্গে দেখা করেছিলেন, দুর্ভাগ্যক্রমে কুণাল সেই সময় একটি গোলাপি বাথরোব পরে ছিল"।

কুণাল তখনই সোহাকে সংশোধন করে বলেন যে গোলাপি নয়, সাদা বাথরোব, সোহাও সেই কথায় সায় দেন। “এই অবস্থাতেই মা কুণালকে পছন্দ করেন এবং কুণালও মায়ের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করেন” বলে জানান সোহা আলি খান। এই একই প্রশ্নে, কুণাল জবাব দিয়েছিলেন, "আমার বাবা কিছুটা অস্বস্তি পড়েছিলেন, কারণ আমি প্রথমবার তাঁদের বলেছিলাম যে আমি একটি মেয়েকে পছন্দ করি"। সোহার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে কথা বলতে গিয়ে কুণাল বলেছিলেন, "আমি সইফ ভাইকে খুব পছন্দ করি। তিনি খুব মনোরঞ্জনী ব্যক্তি, যে কেউ তাঁর সঙ্গে মিশে যেতে পারে। আমি আম্মাকে (শর্মিলা ঠাকুর) অনেক সম্মান করি। তিনি কিংবদন্তি অভিনেত্রী এবং প্রথমদিকে আমি তাঁকে দেখে ঘাবড়ে গিয়েছিলাম। আর সাবা খুব বাস্তববাদী ব্যক্তি"।

কুণাল খেমু ১৯৯৩ সালে শিশু অভিনেতা হিসাবে হিন্দি ছবিতে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন। অনেক হিন্দি ছবিতে অভিনয় করেন। কিছু দিন বিরতি নেওয়ার পর ২০০৫ সালে কলযুগ (Kalyug) দিয়ে মুখ্য চরিত্রে বলিউডে নিজের কেরিয়ার শুরু করেন।

Published by:Debalina Datta
First published: