Kareena Kapoor Khan: শীর্ষাসনে নায়িকা, ছবি দুরন্ত গতিতে ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়!

হেঁট মুণ্ড উর্ধ্ব পদ হলেন করিনা কাপুর খান! শীর্ষাসনে নায়িকার ছবি দুরন্ত গতিতে ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়!

যোগ ব্যায়ামের ক্লাসে ঝুলন্ত যোগা হ্যামকের সাহায্যে নিখুঁত শীর্ষাসন করছেন করিনা (Kareena Kapoor)।

  • Share this:

#মুম্বই: বলিউড নায়িকাদের নানা কসরতের ছবি তাঁদের সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখে আমরা যতই আপ্লুত হই না কেন, এগুলো বাস্তবে করা কিন্তু বেশ কঠিন। বিশেষ করে দ্বিতীয়বার মা হওয়ার পর যদি কোনও নায়িকা খুব দ্রুত মেদ ঝরিয়ে আবার দর্শকের সামনে ছিপছিপে অবতারে ফিরে আসেন, তাহলে তাঁকে কুর্নিশ না করে থাকা যায় না। বুঝতেই পারছেন এখানে করিনা কাপুর খানের (Kareena Kapoor Khan) কথা হচ্ছে। তিনি যে বেশ কঠিন শীর্ষাসন করতে পারেন আর সেটা একদম নিখুঁত ভাবেই পারেন, সেটা সম্প্রতি বোঝা গেল। আর এর পর যেটা হওয়া উচিত ছিল ঠিক সেটাই হল। এই ছবি Instagram-এ দেওয়া মাত্র ভাইরাল হল।

যদিও এই ছবি পুরনো। অর্থাৎ থ্রো-ব্যাক হিসেবেই তিনি এই ছবি পোস্ট করেছেন। যেখানে যোগ ব্যায়ামের ক্লাসে ঝুলন্ত যোগা হ্যামকের সাহায্যে নিখুঁত শীর্ষাসন করছেন করিনা। আর ছবিতে তাঁর সুগঠিত অ্যাবস ও মিড রিফ বেশ ভালোই বোঝা যাচ্ছে। করিনার পরনে রয়েছে কালো রঙের যোগ ব্যায়ামের পোশাক। রয়েছে হলটার নেক স্পোর্টস ব্রা এবং ম্যাচ করা যোগা প্যান্ট। ব্যায়াম করতে সুবিধে হবে বলেই টাইট করে চুল বেঁধে রেখেছেন বেবো, যাতে মুখের সামনে চুল না পড়ে।

করিনাকে যাঁরা সোশ্যাল মিডিয়ায় নিয়মিত অনুসরণ করেন তাঁরা জানেন যে গর্ভবতী অবস্থাতেও নিজের ফিটনেস রুটিন এক চুল এদিক থেকে ওদিক করেননি তিনি। বরং সেটাকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলেছেন। গর্ভবতী মায়ের পক্ষে যা যা আসন লাভজনক, সেগুলো করেছেন করিনা। আর ছবি পোস্ট করেছেন Instagram-এ। এই প্রত্যেকটি ছবি ভাইরাল হয়েছে। ফেব্রুয়ারি মাসে দ্বিতীয় সন্তানের জন্ম দেওয়ার মাত্র কয়েকদিনের মধ্যেই আবার কাজে ফিরেছেন তিনি। দুই সন্তানের মা হয়ে এবং চল্লিশ বছরে পা দিয়েও কী ভাবে নিজের বেতস শরীর ধরে রেখেছেন তিনি, সেটা ভক্তদের কাছে বিস্ময়ের।

শীর্ষাসনে ফুসফুস ভালো থাকে, মন শান্ত হয়, স্ট্রেস ও মানসিক অবসাদ কমে যায়। যে সময়ে করিনা এই ব্যায়াম করেছিলেন তখন সবাই অতিমারীর জন্য গৃহবন্দী হয়েছিলেন, জিমে যেতে পারছিলেন না। এটা দেখে অনেকেই যে অনুপ্রাণিত হয়েছে সেটা বলা বাহুল্য।

তবে প্রথমবার শীর্ষাসন করলে দক্ষ প্রশিক্ষকের সামনেই করা উচিত, নাহলে ঘাড়ে বা মাথায় চোট লাগতে পারে।
Published by:Pooja Basu
First published: