corona virus btn
corona virus btn
Loading

Sanju Review: সঙ্গে সঞ্জয় দত্ত, তবে বাজি জিতলেন রণবীরই !

Sanju Review: সঙ্গে সঞ্জয় দত্ত, তবে বাজি জিতলেন রণবীরই !

যাক, অবশেষে বক্স অফিসকে হাতের মুঠোয় নেওয়ার মতো হাতিয়ার পেলেন রণবীর ৷

  • Share this:

#কলকাতা: যাক, অবশেষে বক্স অফিসকে হাতের মুঠোয় নেওয়ার মতো হাতিয়ার পেলেন রণবীর ৷ আর অবশেষে সঞ্জয় দত্তের দেওয়া চ্যালেঞ্জকে ফুঁ দিয়ে উড়িয়ে ‘সঞ্জু’ ছবির গোটাটাই হয়ে উঠলেন রণবীর কাপুর ৷ ছবির প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত শুধুই রণবীর ৷ প্রথম ফ্রেম থেকে একেবারে শেষ ফ্রেম অবধি গিয়েও চোখের পাতা পড়বে না রণবীরকে দেখে ৷ হতবাক হবেন, চমকে উঠবেন ৷ মাঝে মধ্যে গুলিয়েও ফেলতে পারেন, আপনি ঠিক কাকে দেখছেন, সঞ্জয় দত্তকে নাকি রণবীরকে ৷ তবে ‘সঞ্জু’ শুধু এমন এক ছবি নয়, যেখানে শুধুই খুঁজে বেড়াতে হয় রণবীরকে কতটা সঞ্জয় দত্ত মানিয়েছে ৷ বরং ভাবনা-চিন্তায় তার থেকে অনেক এগিয়ে গিয়েছে এই ছবি ৷

বলা ভালো সঞ্জয় দত্তকে একপাশে রেখে দিয়ে, রণবীরের হাত ধরে এক নায়কের খলনায়ক এবং নায়কের প্রত্যাবর্তনের গল্প বলে এই ছবি ৷ আর সঙ্গে তো রয়েইছে রাজকুমার হিরানির ক্রাফ্টম্যানশিপ ৷

‘সঞ্জু’ আসলে শুধুই সঞ্জয় দত্তের বায়োপিক নয় ৷ বরং, এক নায়কের ভাঙা-গড়ার গল্প ৷ আর এই মুহূর্তে রণবীর কাপুরের বক্স অফিসের যা অবস্থা, সেক্ষেত্রে কিছুটা হলেও ‘সঞ্জু’ যেন রণবীর কাপুরের কাছেও টিকে থাকার লড়াইয়ের ছবি ৷ আর সেদিক থেকে ‘সঞ্জু’ ছবিতে রণবীর নিজের পুরোটাই উজাড় করে দিয়েছেন ৷

ছবিটা শুরু হয় সঞ্জু ওরফে রণবীর এবং সঞ্জুর প্রিয় বন্ধু কমলির (ভিকি কৌশল ) কেমেস্ট্রি দিয়ে ৷ বিদেশের লোকেশন ৷ ঝকঝকে জীবন ৷ তারপর এগোতে থাকে নার্গিস ওরফে মণীশা কৈরালা, সুনীল দত্ত ওরফে পরেশ রাওয়ালের সঙ্গে সঞ্জয় দত্তের সম্পর্কের নানা দিক নিয়ে ৷ বিশেষ করে ড্রাগের নেশা, ব্রেক আপ, সঞ্জয় দত্তের ক্রাইসিস !

এই সবকেই খুব সুন্দর করে সাজিয়েছেন রাজকুমার হিরানি ৷ সঠিক অর্থে টাইম-স্পেশের ব্যবহার করে রাজকুমার হিরানি সেই মু্ন্নাভাই, পিকে, থ্রি-ইডিয়টের ম্যাজিককে ফের পর্দায় এনেছেন৷

হিরানি দু’ভাগে ভাগ করেছেন ‘সঞ্জু’ ছবিতে সঞ্জয় দত্তের জীবনকে ৷ প্রথমার্ধ সঞ্জয় দত্তের ড্রাগের নেশার সঙ্গে লড়াই, বেগতিক জীবন ৷ আর দ্বিতীয়ার্ধে ১৯৯৩ মুম্বই বিস্ফোরণের সঙ্গে সঞ্জয় দত্তের যোগাযোগ ৷ এক নায়কের জীবনের বেশিরভাগটা বলার ক্ষেত্রে সহজ, সরল আঙ্গিককেই ধরেছেন হিরানি ৷ এখানেই তাঁর মুন্সিয়ানা ৷

আরও পড়ুন 

অক্টোবর রিভিউ: কুয়াশা, শিউলি ও নিশ্চুপ ভালোবাসার গল্প

‘সঞ্জু’ ছবির সবচেয়ে শক্ত খুঁটি যদি হয় রণবীর কাপুর, তো তাঁকে সাহায্য করে গিয়েছেন মণীশা কৈরালা, সুনীল দত্ত৷ মণীশা এই ছবিতে নার্গিসের ভূমিকায় অসাধারণ ! অন্যদিকে, পরেশ রাওয়াল যে কত ভালো অভিনেতা তা ফের প্রমাণ সুনীল দত্তের চরিত্রে অভিনয় করে ৷ সোনম কাপুর, দিয়া মির্জাও নিজের জায়গায় একেবারে সঠিক ৷ আলাদা করে প্রশংসা পাওয়া উচিত ভিকি কৌশলের ৷ বিপরীতে রণবীরের মতো পারফেক্ট অভিনেতার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ দিয়ে অভিনয় করে গিয়েছেন ভিকি ৷

লেখক চরিত্রে অনুষ্কা শর্মা নিজের মতো ৷ তবে যাঁরা ভাবছেন, এই ছবিতে মাধুরীর সঙ্গে সঞ্জয়ের প্রেম নিয়ে কিছু দেখা যাবে ৷ তাঁরা হতাশ অবশ্যই হবেন ৷ কারণ, সঞ্জু ছবিতে হিরানি, বলিউডকে পাশে পাশে নিয়ে চলেছেন ৷ কখনই ছবির গল্পের প্রধান করেননি ৷

‘সঞ্জু’ ছবির হয়তো সবচেয়ে ভালো দিকই হল, এই ছবিতে সঞ্জয় দত্তের ‘বিতর্কিত’ জীবন নিয়ে আলাদা করে কোনও কমেন্ট করতে চাননি হিরানি ৷ না আলাদা করে দিতে চেয়েছেন কোনও বার্তা ৷ ফ্যাক্টস-ফিগারকে এক করে, এক ‘বিতর্কিত নায়ক’-এর গল্পই নিজের মতো করে দেখিয়েছেন হিরানি ৷ যা কখনই রূপকথার মতো লাগে না, বরং কঠোর বাস্তবকেই সামনে এনেছেন পরিচালক ৷ তবে একেবারে তথ্যচিত্রের ঢঙে নয়, বরং বিনোদনের মোড়কে ৷

আরও পড়ুন 

আহা রে মন রিভিউ: মনের ভিতর যে উচাটন চলে, তাই আসলে ‘আহারে মন !

সব শেষে বলতে হয়, ‘সঞ্জু’ ছবি আসলে এক নায়কের লড়াইকে সেলিব্রেট করে ৷ ‘সঞ্জু’ ছবি জীবনের হার-জিতের মাঝে থাকা এক ‘মানুষ’-এর গল্প বলে ৷ ‘সঞ্জু’ ছবি মেরুদণ্ড সোজা করে ফিরে আসার গল্প বলে ৷ বিশেষ করে, সঞ্জয় দত্তকে সঙ্গে নিয়ে রণবীরের বাজি জিতে যাওয়ার গল্পই বলে এই ছবি ৷ ! যেন রণবীর চিৎকার বলেছেন, তিনি আছেন, থাকবেন ! তাই এই বাজি তাঁকে জিততেই হবে !

First published: September 11, 2018, 2:21 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर