• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • গান চুরি আমাকে গায়ক বানিয়েছিল, চুলের রং চুরি আমাকে পরিচালক বানাল: শিলাজিৎ

গান চুরি আমাকে গায়ক বানিয়েছিল, চুলের রং চুরি আমাকে পরিচালক বানাল: শিলাজিৎ

Photo Source: Facebook

Photo Source: Facebook

গান চুরি আমাকে গায়ক বানিয়েছিল, চুলের রং চুরি আমাকে পরিচালক বানাল: শিলাজিৎ

  • Share this:

    #কলকাতা:ছিল রুমাল হয়ে গেল বেড়াল! কাল যা ছিল কালো চুল, রাতারাতি হয়ে গেল ধবধবে সাদা! কিন্তু কেন? উত্তর দিলেন খোদ শিলাজিৎ, ''এটাই তো ম্যাজিক! আর এই নিয়েই একটা ওয়েব সিরিজ বানাচ্ছি--'বালের কাহিনি'। ৮-১০ জন ছেলে মেয়ে পুরোদমে কাজ করছে প্রজেক্টটা নিয়ে।''

    কিন্তু এরকম একটা নাম? '' আপত্তিটা কোথায়?'' বাঙালি দর্শক অ্যাক্সেপ্ট করবে? '' না করলে করবে না! আর কারা করবে না? তারা? যারা ''ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে আনকাট ছবি দেখে বাথরুমে গিয়ে বলে, আমি ফেলিনি।'' (চন্দ্রিলের 'ওয়াইটুকে'-তে আমার ডায়ালগ ছিল এটা)।''

    আচ্ছা, চুলটা কি সাদা করলেন এই প্রজেক্টটার জন্য? '' এখানে একটা ধাঁধা রয়েছে! এই প্রজেক্টটা করব বলে চুল সাদা করিনি। চুলটা সাদা করলাম বলে এই প্রজেক্টটা করছি।'' মানে? '' ওই যে বললাম ধাঁধা!''

    একটু খোলসা করবেন?

    চারমাস আগে একটি সুন্দর, ভদ্র দেখতে ছেলে ও মেয়ে (মানে আমরা যাকে বলি 'প্রেজেন্টেবল') আমার কাছে এল একটা ওয়েব সিরিজের অফার নিয়ে। চরিত্রটা ব্রিফ করল। আমার ভালও লাগল। বেশ ইন্টারেস্টিং! আমি রাজি হলাম। তখন ওরা আমায় বলল, চরিত্রটার জন্য দাড়ি বড় করতে হবে আর চুল কাঁচা-পাকা।  এদিকে তখন আমি অন্য একটা ছবি করছি-- 'চতুর্থ রিপু'। দাড়ি বড় করলে ওই ছবিটা করতে পারব না! কাজেই সময় চাইলাম। কিন্তু ওদের বড় তাড়া! ছেলেটি (ও এই সিরিজের পরিচালকও বটে, তবে আমি নাম বলব না, শুধু এ'টুকু বলব, ও এই বাংলা ইনডাস্ট্রিরই) স্মার্টলি বলল, 'ছবিটা ছেড়ে দাও! এখন এই ওয়েব সিরিজটা নিয়েই ভাব! এরজন্য তোমায় প্রচুর মেক-ওভার করতে হবে। তোমার স্কিন ট্রিটমেন্ট হবে, ফিগার ঠিক করতে হবে!' কিন্তু আমি প্রফেশনাল। টাকা নিয়েছি। কাজেই ওই ছবিটা শেষ করে, এই ওয়েব সিরিজের প্রস্তুতিতে ডুব ডিলাম। তখন মে-মাস। দাড়ি বড় করতে থাকলাম। কিছুদিন আগে চুলের রং-ও পালটালাম।

    তারপর? '' হঠাৎ একদিন ওদের অফিসের থেকে একটা ফোন এল। একজন চূড়ান্ত ক্যাজুয়ালভাবে বলল, ওয়েব সিরিজটা হচ্ছে না, কারণ ওরা  নাকি বাড়ি খুঁজে পাচ্ছে না।''

    তা হলে আপনি এখন নিশ্চয়ই ওদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেবেন? আপনার এতটা সময় ব্লকড থাকল, চুলের রং পালটালেন! '' না কোনও আইনি পদক্ষেপ নেব না। নিতে পারবও না। কারণ, ওদের বহুবার বলেছিলাম, কনট্র্যাক্ট করতে। কিন্তু ওরা আজ করছি, কাল করছি বলে কাটিয়ে যেত। পয়লা মে থেকে ২২মে আমার ডেট ব্লক করে রাখল। আর সত্যি বলতে কী, আমি নিজেও কাজটার মধ্যে ডুবে গিয়েছিলাম! তাছাড়া, একজন ভদ্র ছেলে, যথেষ্ট মার্জিত কথাবার্তা, কাজের প্রতি ভীষণ ডেডিকেশন দেখাচ্ছে, তাকে অবিশ্বাস করতে ইচ্ছেও করেনি!''

    তা হলে? আপনার তো এদিকও গেল, ওদিকও গেল! '' না, না! আমার জীবনে যতবার বিপর্যয় এসেছে, আমি সেটাকেই বিক্রি করেছি। আমার এক-একটা দুর্ভাগ্য থেকে এক-একটা ক্রিয়েটিভ কাজ জন্মেছে। যেমন ওরা আমার সঙ্গে যে জোচ্চুরিটা করল, আমার সময়, চুলের রং চুরি করল, তার উত্তর দিতেই তো এই ওয়েব সিরিজটা বানাচ্ছি। একটা নতুন কাজের জন্ম হচ্ছে!''

    First published: