• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • BOLLYWOOD SATISH KAUSHIK SAYS PREGNANT NEENA GUPTA WAS IN TEARS WHEN HE OFFERED TO MARRY HER I SIMPLY STOOD BY HER SR

অন্তঃসত্ত্বা Neena-র পাশে দাঁড়াতে চেয়ে বিয়ের প্রস্তাব দিই, কেঁদে ফেলেছিল ও: Satish Kaushik

অন্তঃসত্ত্বা নীনাকে বিয়ে করতে চেয়েছিলেন সহকর্মী সতীশ কৌশিক ।

সে সময় ভিভ রিচার্ড (Viv Richards) কন্যা মাসাবা (Masaba Gupta)-র দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করেছিলেন । সতীশ তখন নীনা (Neena Gupta) -কে বিয়ের প্রস্তাব দেন । বলেছিলেন, ‘‘সন্তান কালো হলে বলে দিও আমার, কেউ সন্দেহ করবে না ।’’

  • Share this:

    #মুম্বই: দুরন্ত ব্যক্তিত্বময়ী, তুখড় প্রতিভাবান, বলিউডের বর্ষীয়ান অভিনেত্রী তিনি । নীনা গুপ্ত নামটা সামনে এলেই ভেসে ওঠে সারা জীবনের অনেক ঘাত-প্রতিঘাত, লড়াই, শিরদাঁড়া সোজা রাখা, সমাজের স্রোতের বিপরীতে লড়ে যাওয়া এক অভিনেত্রীর জীবন সংগ্রামের গল্প । সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে নীনার আত্মজীবনী 'সচ কহুঁ তো' (Sach Kahun Toh) । এরপর থেকেই সাড়া পড়ে গিয়েছে পাঠক মহলে । এই বইতেই জীবনের নানা অধ্যায় নিয়ে লিখেছেন নীনা। উঠে এসেছে একজন অভিনেত্রীর জীবনের নানা অজানা দিক। নীনার আত্মজীবনীটি প্রকাশ করেছেন করিনা কাপুর খান (Kareena Kapoor Khan)। বই মুক্তি উপলক্ষে ভার্চুয়ালি আড্ডাও দিয়েছেন দুই অভিনেত্রী।

    প্রাক্তন কিংবদন্তী ক্রিকেটার ভিভ রিচার্ডসের (Viv Richards) সঙ্গে প্রেম চলাকালীন অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছিলেন অভিনেত্রী নীনা গুপ্তা (Neena Gupta) । কিন্তু ভিভের তখনও বিবাহ বিচ্ছেদ হয়নি । স্ত্রী ও পরিবারকে ছেড়ে আসতে রাজি হননি ভিভ । বিয়ে করতে পারেননি নীনাকে । কিন্তু তারপরেও নিজের সিদ্ধান্তে অটল থেকেছিলেন সদ্য যৌবনে পা রাখা নীনা । নিজের মনের জোরেই মা হলেন তিনি । জন্ম দিলেন কন্যা মাসাবার (Masaba Gupta)। সিঙ্গল মাদার শব্দটি তখনও এ দেশের কাছে বেশ অপরিচিত । তার উপর আবার ‘অবৈধ’ তকমা । কিন্তু এ সবকিছুকে গায়ে মাখলেন না নীনা । একা মায়ের লড়াইয়েই বড় করে তুললেন মাসাবা গুপ্তকে । এখন তিনি একজন সফল ফ্যাশন ডিজাইনার ।

    আত্মজীবনী’তে জীবনের নানা অজানা কথাই সামনে এনেছেন নীনা । তাঁর সেই বই থেকেই জানা যায়, অন্তঃসত্ত্বা থাকাকালীন অবস্থায় নীনার সহকর্মী, অভিনেতা সতীশ কৌশিক তাঁকে বিয়ের অফার দিয়েছিলেন । অভিনেত্রীর কাছের বন্ধু ছিলেন সতীশ। সেই সময় নীনার পাশে দাঁড়াতে এগিয়ে এসেছিলেন অভিনেতা।

    View this post on Instagram

    A post shared by Neena Gupta (@neena_gupta)

    ১৯৮৯ সালে জন্ম হয় মাসাবার । সে সময় ভিভ রিচার্ড মাসাবার দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করেছিলেন । এই পরিস্থিতিতে সতীশ এগিয়ে আসেন । নীনা’কে তিনি বলেছিলেন বিয়ে করে নিতে । মাসাবাকে পিতৃপরিচয় দিতে প্রস্তুত তিনি । সতীশ বলেন, ‘‘সন্তান কালো হলে বলে দিও আমার, কেউ সন্দেহ করবে না ।’’ এই প্রস্তাব শুনে হাউ হাউ করে কেঁদে ফেলেন নীনা । কিন্তু অসম্ভব স্বাধীনচেতা ও ব্যক্তিত্বময়ী নীনা ছলনার এই সম্পর্ক গড়তে রাজি হননি । তবে প্রিয় বন্ধু, তথা সহকর্মীর এমন স্নেহপূর্ণ ব্যবহারে বিগলিত হয়ে গিয়েছিলেন নীনা । চোখের জল আটকাতে পারেননি তিনি ।

    নীনা গুপ্ত’র আত্মজীবনী প্রকাশিত হওয়ার পর এই ঘটনা নিয়ে সংবাদ মাধ্যমের কাছে মুখ খুলেছেন অভিনেতা সতীশ কৌশিকও । তিনি বলেন, ‘‘আমি নীনা’কে বলেছিলাম, ম্যায় হুঁ না । তু চিন্তা কিঁউ করতি হ্যায় । একজন খুব ভাল বন্ধু হিসাবে,ওই মুহূর্তে আমি শুধু নীনার পাশে দাঁড়াতে চেয়েছিলাম । সে জন্যই ওঁকে বিয়ের প্রস্তাব দিই । কখনও ওঁকে একা অনুভব করতে দিইনি । ওই দিন থেকে আমাদের বন্ধুত্ব আরও গাঢ় হয়ে গেল ।’’

    নিজের জীবনে নানা ঘাত-প্রতিঘাতের মধ্যে দিয়ে গিয়েছেন নীনা গুপ্তা। সেই সমস্ত কথাই নিজের আত্মজীবনীতে শেয়ার করেছেন তিনি। কাজের দিক থেকে মান্ডি, উৎসব, ত্রিকাল, বাধাই হো, সর্দার কা গ্র্যান্ডসন, সন্দীপ অওর পিঙ্কি ফরার-এর মতো একাধিক হিট ছবিতে কাজ করে চলেছেন অভিনেত্রী।

    Published by:Simli Raha
    First published: