বিনোদন

corona virus btn
corona virus btn
Loading

দুধের শিশুদের খিদে মেটাতে ৪২ লিটার স্তনদুগ্ধ দান করলেন বিখ্যাত বলিউড প্রযোজক

দুধের শিশুদের খিদে মেটাতে ৪২ লিটার স্তনদুগ্ধ দান করলেন বিখ্যাত বলিউড প্রযোজক

ফেব্রুয়ারি মাসে পুত্রসন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন নিধি । সন্তান জন্মের পর থেকেই তাঁর প্রচুর পরিমাণে স্তনদুগ্ধ উৎপন্ন হচ্ছিল । ছেলের পেট ভরার পরেও বেঁচে যাচ্ছিল অনেকটা ।

  • Share this:

#মুম্বই: ছোট্ট একটা শব্দ ‘মা’ । কিন্তু খুদে এই শব্দের মধ্যেই মিশে থাকে অপরিসীম গভীরতা, ভালবাসা আর স্বার্থত্যাগের মহৎ কাহিনীগুলো । একজন মা-ই জানেন কত কষ্টে, কত আগলে বড় করতে হয় একটি সন্তানকে । তাই এক মা-ই বুঝতে পারেন আর এক মায়ের কষ্ট ।

এমনই ঘটনা ঘটেছে বিখ্যাত বলিউড প্রযোজক নিধি পারমার হিরনন্দানির ক্ষেত্রে । তাপসী পান্নু, ভূমি পেডনেকরের ‘সান্ড কি আঁখ’ ছবির প্রযোজনা করেছেন নিধি । ওই ছবিরই পরিচালক তুষার হিরনন্দানির স্ত্রী তিনি । করোনা কালে ক্ষুধার্থ শিশুদের পেট ভরাতে এখনও পর্যন্ত ৪২ লিটার বুকের দুধ দান করেছেন নিধি ।

এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে পুত্রসন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন নিধি । এক সাক্ষাৎকারে নিধি জানান, সন্তান জন্মের পর থেকেই তাঁর প্রচুর পরিমাণে স্তনদুগ্ধ উৎপন্ন হতে থাকে । প্রথম প্রথম বাড়ির ফ্রিজেই সংরক্ষণ করে রাখতে শুরু করেন তিনি । কিন্তু তাঁর ছেলের পেট ভরার পরেও অনেকটা দুধ বাড়তি হচ্ছিল । সে সময় তিনি ভাবতে থাকেন কী ভাবে ওই দুধ কাজে লাগানো যায় । অনেকের কাছ থেকে এ সম্বন্ধে পরামর্শ চান তিনি । কিন্তু লোকে ব্যঙ্গ করে ঘর মোছার বা ফেসপ্যাক তৈরি করার উপদেশ দেয় ।

এরপরেই ইন্টারনেটে এ সম্বন্ধে পড়াশোনা শুরু করেন নিধি । নিজের গাইনোকোলজিস্টের সঙ্গেও পরামর্শ করেন । তখনই জানতে পারেন, অতিরিক্ত স্তনদুগ্ধ মিল্ক ব্যাঙ্কে দান করা যায় । যাতে অনেক শিশু উপকৃত হয় । এরপরেই মুম্বইয়ের খার এলাকার সূর্য হাসপাতালের মিল্ক ব্যাঙ্কে তা দান করা শুরু করেন নিধি । কিন্তু এর কিছুদিনের মধ্যেই লকডাউন শুরু হয়ে যাওয়ায় ছোট সন্তানকে রেখে, করোনা পরিস্থিতিতে বাইরে যাওয়া সম্ভবপর ছিল না নিধির কাছে । কিন্তু এ সমস্যারও সমাধান হয়ে যায় । হাসপাতালের তরফে বাড়িতে এসে দুধ সংগ্রহ করে নিয়ে যাওয়া হয় ।

এই কাজের সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে নিধি এখন খুব খুশি । যতদিন সম্ভব এই কাজ তিনি করে যেতে চান । আরও মায়েরাও যেন এই প্রজেক্টের অংশ হতে এগিয়ে আসেন, তার আবেদন জানিয়েছেন নিধি ।

Published by: Simli Raha
First published: November 21, 2020, 7:31 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर