চাপে পড়েই কি সচিন-লতাদের কৃষি আন্দোলন নিয়ে ট্যুইট? তদন্তে মহারাষ্ট্র সরকার

চাপে পড়েই কি সচিন-লতাদের কৃষি আন্দোলন নিয়ে ট্যুইট? তদন্তে মহারাষ্ট্র সরকার
Maharashtra Govt to Probe if Celebrities and Cricketers Tweeted Under Pressure in Support of Farm Laws

একই মর্মের প্রায় একই রকম ট্যুইট দেখে কংগ্রেস প্রশ্ন তুলেছে যে, সচিন-লতারা কি তাহলে বিজেপি-র (BJP) রাজনৈতিক চাপে পড়েই কৃষি আইনের সমর্থনে ট্যুইট করেছেন? কংগ্রেস (Congress) এই ইস্যুতেই মহারাষ্ট্র সরকারকে বিষয়টি তদন্ত করে দেখার দাবি করে৷

  • Share this:

    #মুম্বই: কৃষক আন্দোলনের (Farmer's Protest) সমর্থনে পপ তারকা রিহানা (Rihana) এবং পরিবেশ কর্মী গ্রেটা থুনবার্গের (Greta Thunberg) ট্যুইটের পাল্টা জবাব দিয়েছিলেন সেলেব থেকে ক্রিকেটাররা৷ তালিকায় ছিলেন সচিন তেন্ডুলকর (Sachin Tendulkar) ও লতা মঙ্গেশকরের (Lata Mangeshkar) মতো সমাজের হেভিওয়েট ব্যক্তিত্ব৷

    #IndiaAgainstPropaganda এবং #IndiaTogether হ্যাশট্যাগে ঝড় তুলেছিলেন সাধারণ থেকে প্রভাবশালীরা৷  সচিন-লতার মতো সমাজের তাবড় ব্যক্তিত্বরা দেশবাসীকে একজোট থাকার আবেদন জানিয়ে ট্যুইট করেছিলেন৷ তবে একই মর্মের প্রায় একই রকম ট্যুইট দেখে কংগ্রেস প্রশ্ন তুলেছে যে, সচিন-লতারা কি তাহলে বিজেপি-র (BJP) রাজনৈতিক চাপে পড়েই কৃষি আইনের সমর্থনে ট্যুইট করেছেন? কংগ্রেস (Congress) এই ইস্যুতেই মহারাষ্ট্র সরকারকে বিষয়টি তদন্ত করে দেখার দাবি করে৷

    কংগ্রেসের সাধারণ সচিব ও মুখপাত্র সচিন সাওয়ান্ত রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখের সঙ্গে দেখা করে ট্যুইট খতিয়ে দেখে তদন্তের দাবি জানান৷ হিন্দুস্তান টাইমস-কে সচিন সাওয়ান্ত বলেন, "একই প্যাটার্নের ট্যুইট করেছেন অক্ষয় কুমার (Akshay Kumar) ও সুনীল শেট্টির (Sunil Shetty) মতো সেলিব্রিটিরা৷ ক্রীড়াব্যক্তিত্বদের মধ্যে সচিন তেন্ডুলকর ও সাইনা নেহওয়ালও (Saina Nehwal) রয়েছেন৷ সাইনা ও অক্ষয় একই ট্যুইট করেছেন৷ সুনীল একজন বিজেপি নেতাকেও ট্যাগ করেছেন৷ এটা বুঝিয়ে দিচ্ছে যে, সেলেবদের সঙ্গে শাসকদের এই নিয়ে কথোপকথন হয়েছে৷ এটা তদন্ত করে দেখতে হবে যে, বিজেপি থেকে তাঁদের ওপর কোনও চাপ আছে কি না! তাঁরা কিন্তু দেশের নায়ক৷ তেমন হলে সেলেবদের আরও সুরক্ষা দিতে হবে৷"


    অনিল দেশমুখ বলছেন, "আমাদের রাজ্য ইন্টেলিজেন্স দফতর বিষয়টা তদন্ত করবে, দেখতে হবে ট্যুইটগুলি সামঞ্জস্য রেখে করা হয়েছে কি না!প্রতিটি ট্যুইটের সময় এবং সমন্বয় দেখে মনে হচ্ছে যে, এটি পরিকল্পিত ভাবেই করা হয়েছিল" দেশমুখও সুনীল শেট্টির ট্যুইটে বিজেপি নেতাকে ট্যাগ করার বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন৷

    ট্যুইট ও পাল্টা ট্যুইট নিয়েই সরগরম দেশ৷ এনসিপি প্রধান ও প্রাক্তন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট শরদ পাওয়ারও (Sharad Pawar) সচিনকে খোঁচা দিয়েছেন কৃষি বিলের সমর্থনে ট্যুইটের জন্য৷ তিনি বলেন, " তিনি সচিনকে সতর্ক করে জানিয়েছেন, "আমি সচিনকে পরামর্শ দেব ও যখন অন্য ক্ষেত্র নিয়ে কথা বলবে, তখন যেন একটু সাবধানতা অবলম্বন করে৷" এমএনএস প্রধান রাজ ঠাকরে বলেন, "সরকারের ফের এই ভুল করা উচিত নয়৷ লতা মঙ্গেশকর ও সচিন তেন্ডুলকর বড় নাম৷ কিন্তু তাঁরা সাধারণ মানুষ৷ সরকার তাদের টুইট করতে বলায়, তারাই জনগণের রোষের মুখে পড়ছেন৷"

    First published: