বলিউডে তিনিও হয়েছেন যৌন হেনস্তার শিকার, মুখ খুললেন প্রিয়াঙ্কা এত দিনে

বলিউডে তিনিও হয়েছেন যৌন হেনস্তার শিকার, মুখ খুললেন প্রিয়াঙ্কা এত দিনে
নিজের বিয়ে, ক্যানসার আক্রান্ত বাবাকে হারানো, বলিউড থেকে হলিউডের দিকে এগোনোর যাত্রা থেকে শুরু করে নানা বিষয়ে বিশদে আলোচনা করেছেন তিনি

নিজের বিয়ে, ক্যানসার আক্রান্ত বাবাকে হারানো, বলিউড থেকে হলিউডের দিকে এগোনোর যাত্রা থেকে শুরু করে নানা বিষয়ে বিশদে আলোচনা করেছেন তিনি

  • Share this:

#মুম্বই: ২০০০ সালে মিস ওয়ার্ল্ডের তকমা জেতার পর ২০০২-এ বলিউডে কেরিয়ার শুরু করেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জোনাস (Priyanka Chopra Jonas)। মাঝে কেটে গিয়েছে প্রায় ১৭ বছর। এত দিন বলিউডের একাধিক বিতর্ক থেকে দূরেই থাকতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। বলিউডের পাশাপাশি হলিউডেও পা রেখেছেন প্রায় চার বছর হতে যায়। এতদিন পর, বলিউডকে এত হিট দেওয়ার পর এবার নিজের আত্মজীবনীতে একাধিক বিষয়ে মুখ খুললেন তিনি।

৯ ফেব্রুয়ারি প্রকাশিত হয়েছে প্রিয়াঙ্কার আত্মজীবনী আনফিনিশড (Unfinished)। বইতে নিজের ছোটবেলা থেকে শুরু করে, বলি-জীবনের নানা অভিজ্ঞতা তুলে ধরেছেন তিনি। নিজের বিয়ে, ক্যানসার আক্রান্ত বাবাকে হারানো, বলিউড থেকে হলিউডের দিকে এগোনোর যাত্রা থেকে শুরু করে নানা বিষয়ে বিশদে আলোচনা করেছেন তিনি।

২০০২ সালে তামিল সিনেমায় ডেবিউ। সেখান থেকে আজ আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন অভিনেত্রী। মাঝে বলিউডে বার বার নানা সমস্যায় পড়তে হয়েছে তাঁকে। বইতে তিনি জানিয়েছেন, প্রথমের দিকে আর পাঁচটা নবাগতার মতো তাঁকেও অনেকে পরিমর্শ দিয়েছিলেন কাজ না করেও উথ্থান সম্ভব। কিন্তু তিনি কঠোর পরিশ্রমের পথই বেছে নিয়েছিলেন এবং মাথা নিচু করে সেই কাজই করে গিয়েছেন।


৩৮ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী জানিয়েছেন, বলিউডে এই সব কিছুর বিরুদ্ধে সে সময়ে তিনি আওয়াজ তুলতে পারেননি কারণ তিনি সে সময়ে নিরাপদ ছিলেন না। তিনি শুধুই কাজ করে গিয়েছেন এবং কাজ করে নিজের জায়গা তৈরি করাকেই প্রধান কাজ হিসেবে বিবেচনা করেছেন।

বইতে অভিনেত্রী জানিয়েছেন, তাঁকে একবার এক পরিচালক বলেছিলেন, অন্তর্বাস দেখা না গেলে কেউ সিনেমা দেখবেন না, তাই তাঁকেও অন্তর্বাস দেখাতে হবে। কিন্তু পরিচালকের সঙ্গে এই ব্যাপারে একমত না হওয়ায় সেই সিনেমা থেকে বাদ পড়তে হয়েছিল তাঁকে। কিন্তু এখন তিনি মনে করেন, ওই পরিচালক তাঁকে একজন শিল্পী হিসেবে দেখেননি, শুধুই বস্তু হিসেবে বিবেচনা করেছিলেন।

তিনি বলেন, আমি সে সময়ে সব চেয়ে বেশি যা করতে পারতাম, তা হল ওই প্রোজেক্টটি থেকে বেরিয়ে আসা। আর সেটাই আমি করেছিলাম। কারণ এর চেয়ে বেশি কিছু করা আমার পক্ষে সম্ভব ছিল না। আমাকে ওই ইন্ডাস্ট্রিতেই কাজ করতে হত। ফলে আমি মাথা নিচু করে, কাউকে এ ব্যাপারে কোনও কথা না বলে শুধু কাজ করে গিয়েছিলাম। ওই সিস্টেমটাতেই আমাকে কাজ করতে হয়েছে।

কেন মাথা নিচু করে কাজ করে গিয়েছেন তিনি? এর সাপেক্ষেও যথেষ্ট যুক্তি দিয়েছেন অভিনেত্রী। তিনি বলেন, আমি কাউকে কিছু বলব কেন? আমি সে সময়ে নিরাপদ ছিলাম না। আমি ভয় পেতাম। আমি তখন আমার কেরিয়ার তৈরি করছি। তাই আমি বহু দিন মুখ বুজে ছিলাম। আর ভয় পেতাম, সেটা ঠিক আছে। কারণ কেউই পারফেক্ট হয় না।

এই সব অভিজ্ঞতা শেয়ার করার পাশাপাশি প্রিয়াঙ্কা আরেকটি অদ্ভুত ঘটনাও ভাগ করে নেন। জানান, এক পরিচালক তাঁকে একটি সিনেমার জন্য থুতনি, স্তন ও নিতম্বের প্লাস্টিক সার্জারি করতে বলেছিলেন।

শুধু বলিউড নয়, আমেরিকায় নিজের কেরিয়ার তৈরিতেও সমস্যায় পড়েছিলেন অভিনেত্রী। তাঁকে নিয়ে হাসি-ঠাট্টা হত। সেই বিষয়টিও তিনি পরে কাটিয়ে ওঠেন বলে জানিয়েছেন।

Published by:Ananya Chakraborty
First published: