corona virus btn
corona virus btn
Loading

সুশান্তের বান্দ্রার বাড়িতে সিবিআই!‌ সঙ্গে দিদি মিতু সিং, সিদ্ধার্থ পিঠানি সহ কয়েকজন

সুশান্তের বান্দ্রার বাড়িতে সিবিআই!‌ সঙ্গে দিদি মিতু সিং, সিদ্ধার্থ পিঠানি সহ কয়েকজন

সুশান্তের মৃত্যুর দিন ঠিক কী হয়েছিল। মিতু এসে কী দেখেন, তা আরও একবার খুঁটিয়ে দেখছে সিবিআই।

  • Share this:

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু তদন্ত চলছে জোর কদমে। একদিকে সিবিআই পৌঁছেছে অভিনেতার বান্দ্রার বাড়িতে, সুশান্তের দিদি মিতু সিংকে সঙ্গে নিয়ে। তা ছাড়াও রয়েছে সিদ্ধার্থ পিঠানি, দীপেশ সওয়ান্ত, কেশব। সিবিআই এর সঙ্গে রয়েছে ফরেন্সিক টিমও। সুশান্তের মৃত্যুর দিন ঠিক কী হয়েছিল। মিতু এসে কী দেখেন, তা আরও একবার খুঁটিয়ে দেখছে সিবিআই। অন্যদিকে শৌভিক চক্রবর্তী ও স্যামুয়েল মিরান্ডার মেডিক্যাল পরীক্ষা চলছে। শনিবারই কোর্টে তোলা হয়েছে। অন্তত পক্ষে ৫ দিনের জন্য হেফাজতে নেওয়ার চেষ্টা করছে এনসিবি। শৌভিক ও স্যামুয়েলের সঙ্গে অন্য মাদক ব্যবসায়ীদেরও তোলা হবে কোর্টে। সূত্রের খবর দীপেশ সওয়ান্তের বয়ান শনিবারই রেকর্ড করবে এনসিবি। সুশান্তের মাদক সেবন সম্পর্কে দীপেশের কাছ থেকে মিলতে পারে তথ্য। শৌভিককে কোর্টে রিপ্রেজেন্ট করছেন রিয়ার আইনজীবী সতীশ মানেশিন্দে। তাঁর মতো হাই প্রোফাইল আইনজীবী এই লোয়ার কোর্টে এই ধরনের মামলা লড়ছেন, একটু আশ্চর্যের। রিয়া ও চক্রবর্তী পরিবার যে কোণঠাসা তা বোঝাই যাচ্ছে।

এদিকে খবর মিলেছে, সুশান্ত সিং রাজপুত চেয়েছিলেন নিজের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নিজেই পরিচালনা করতে। সম্প্রতি একটি জাতীয় সংবাদমাধ্যমে সম্প্রচারিত হয়েছে একটি হোয়াটস অ্যাপের চ্যাটের তথ্য। সেখানেই উঠে এসেছে তাঁর এই ইচ্ছার কথা। সুশান্ত সিং রাজপুত ও রিয়া চক্রবর্তীর মধ্যে আর্থিক লেনদেন নিয়ে কোনও একটি বিষয় যে ছিল, তা এতদিনে পরিষ্কার। কিন্তু এই হোয়াটস অ্যাপ চ্যাটের তথ্য জানান দিচ্ছে, সুশান্ত নিজের ব্যাঙ্ক ম্যানেজারকে বলেছিলেন, নিজের অ্যাকাউন্টের টাকার লেনদেন তিনি নিজের হাতেই করতে চান। তাঁর মৃত্যুর মাসখানেক আগে এই কথাবার্তা হয়েছিল।

হর্ষ নামে কোনও ব্যাঙ্ক ম্যানেজারকে সুশান্ত একবার কলব্যাক করতে বলেছিলেন। সেখানেই তারপর তিনি সুশান্তকে জানিয়েছিলেন, তাঁর কয়েকটি ডকুমেন্ট দরকার। যেমন সুশান্তের সই ইত্যাদি। ইমেলের মাধ্যমে একটি ফর্ম পাঠাতে চেয়েছিলেন ম্যানেজার। তিনি সুশান্তকে তাঁর মেল আইডি দিতে বলেন। সুশান্তের পরিবার অনেকদিন আগেই অভিযোগ করেছিলেন যে সুশান্তের অর্থনৈতিক বিষয় নিজের নিয়ন্ত্রণে রাখতেন রিয়া চক্রবর্তী। এমনকী সুশান্তকে হত্যার অভিযোগও এনেছেন তাঁরা। রিয়ার বিরুদ্ধে করা অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তও শুরু হয়েছে। এ ছাড়া, মাদকাসক্তির অভিযোগ উঠেছে। রিয়া জানিয়েছেন, তিনি মাদক নিতেন না। যদি প্রমাণ করতে হয়, তাহলে রিয়া রক্ত পরীক্ষা করতেও রাজি, সে কথাও বলেছিলেন তিনি। তারপরেই অবশ্য মাদক নেওয়ার মামলায় গ্রেফতার করা হয় রিয়ার ভাই শৌভিক চক্রবর্তীকে।

ARUNIMA DEY

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: September 5, 2020, 12:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर