বিনোদন

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

' চুনী ছিল ভারতীয় ফুটবলের প্রথম সুপারস্টার ' বন্ধুর স্মৃতিচারণায় অভিনেতা বিশ্বজিৎ

' চুনী ছিল ভারতীয় ফুটবলের প্রথম সুপারস্টার ' বন্ধুর স্মৃতিচারণায় অভিনেতা বিশ্বজিৎ

'প্রথম প্রেম' ছবিতে বিশ্বজিতের সঙ্গে অভিনয় করেছিলেন চুনী গোস্বামী। ছবিতে ছিলেন সন্ধ্যা রায়ও। ভারতীয় ফুটবল দলের অধিনায়কের চরিত্রেই দেখা গিয়েছিল চুনী গোস্বামীকে। ছবিটি রিলিজের পর একটি অনুষ্ঠানে চুনীর মহিলা ফ্যান ফলোয়িং-এর আঁচ পেয়েছিলেন বলিউড ও টলিউডের অন্যতম সেরা রোমান্টিক নায়ক

  • Share this:

#কলকাতা: দীর্ঘদিনের বন্ধু চুনী গোস্বামীর প্রয়াণে বিষন্ন অভিনেতা বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়। ছোট থেকেই মোহনবাগান সমর্থক বিশ্বজিৎ। শৈলেন মান্না, বদ্রু বন্দ্যোপাধ্যায়, রুনু গুহঠাকুরতা, অনিল দে, রতন সেনদের চোখের সামনে খেলতে দেখেছেন। দেখেছেন ইস্টবেঙ্গলের সালেহ,বলরামদের খেলাও। সেই খেলা দেখতে দেখতেই মোহনবাগান ক্লাবে আলাপ হয় চুনী গোস্বামীর সঙ্গে।  চুনী ছাড়াও পিকে বন্দ্যোপাধ্যায়ও ছিলেন বিশ্বজিতের বন্ধু।

স্মৃতির সরণি বেয়ে চলেছেন বিশ্বজিত, তাঁর কথায়,  ' চুনীর সঙ্গে আমার বহুদিনের বন্ধুত্ব। আমি যখন ছবিতে কাজ করতে আসি তখন ও মোহনবাগানে খেলত।  ওই সময় একটি ছেলে খুব নাম করল,  চুনী গোস্বামী  নাম ।  লোকজন বলল ভীষণ ভাল খেলে। একদিন আমার সঙ্গে আলাপ হয়ে গেল। আমি যেদিন প্রথম ওর খেলা দেখলাম, মুগ্ধ হয়ে যাই। '  বিশ্বজিতের মতে , 'সেই সময় আহমেদ, বলরামের মতো অনেক বড় ফুটবলার-রা খেলতেন, কিন্তু চুনী গোস্বামী ছিলেন আলাদা। তিনি ছিলেন ভারতীয় ফুটবলের প্রথম তারকা।'

বিশ্বজিতের কথায় ' ভারতীয় ফুটবলে প্রথম সুপার স্টারের নাম চুনী গোস্বামী। ওকে ঘিরে উৎসাহ উন্মাদনা ছিল দেখার মত। এরকম গ্ল্যামারের আলোতেও কাউকে থাকতে দেখিনি সেই সময়। ফুটবলার হিসেবে স্টারডম শুধু ওই পেয়েছিল। সেই সময় সব নতুন ফুটবলার-রা চুনী গোস্বামী হতে চাইত।  ওঁর মতো খেলতে চাইত। চুনী অসাধারণ ফুটবলার ছিল। অনায়াসে একের পর এক ফুটবলারকে ডজ, ড্রিবল করে বেরিয়ে যেতে পারত। দারুন বুদ্ধিমান ছিল। যে কোনও খারাপ অবস্থায় থাকা ম্যাচেও  চুনী-ই  ছিল সবচেয়ে বড় ভরসা। চুনী ছিল পরিত্রাতা। '

'প্রথম প্রেম' ছবিতে বিশ্বজিতের সঙ্গে অভিনয় করেছিলেন চুনী গোস্বামী। ছবিতে ছিলেন সন্ধ্যা রায়ও। ভারতীয় ফুটবল দলের  অধিনায়কের চরিত্রেই দেখা গিয়েছিল চুনী গোস্বামীকে। ছবিটি রিলিজের পর একটি অনুষ্ঠানে চুনীর মহিলা ফ্যান ফলোয়িং-এর আঁচ পেয়েছিলেন বলিউড ও টলিউডের  অন্যতম সেরা রোমান্টিক নায়ক। তাঁর ভাষায়, ' ' প্রথম প্রেম' রিলিজের পর আমরা দুজনে একসঙ্গে এক জায়গায় গিয়েছি। যেভাবে অটোগ্রাফ নেওয়ার জন্য আর হাত মেলানোর জন্য মহিলারা ঘিরে ধরেছিল ওকে, আমি অবাক হয়ে গিয়েছিলাম। সামলানো যাচ্ছিল না কোনওভাবেই। '

 বিশ্বজিতের স্মৃতিতে উঠে আসে মুম্বইতে বসে  রঞ্জি ফাইনাল থেকে শুরু করে রোভার্স কাপ দেখার স্মৃতি। তাঁর মতে, 'চুনী ছিল ভারতের ডেনিস কম্পটন । চুনী ক্রিকেট-ফুটবল দুটোই এত ভালো খেলত যে  আমি ওর ফ্যান হয়ে যাই। আমার মনে আছে বাংলা যখন রঞ্জি ফাইনালে উঠে  মুম্বইতে খেলতে যায়, আমি মাঠে গিয়েছিলাম দেখতে। চুনী বাংলার অধিনায়ক ছিল , অজিত ওয়াড়েকর ছিল মুম্বইয়ের অধিনায়ক। চুনী যখন মোহনবাগানের হয়ে  রোভার্স বা অন্য কিছু টুর্নামেন্টে খেলতে আসত , আমি ওদের খেলা দেখতে যেতাম নিয়মিত । আমার শুটিং দেখতে পুরো মোহনবাগান দলও আসত মাঝে মধ্যে।'

বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে চুনী গোস্বামীর শেষ দেখা হয়েছিল নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে, যে বছর তাঁর বন্ধু প্রাক্তন ক্রিকেটার কল্যাণ মিত্রকে বেঙ্গল স্পোর্টস অ্যাসোসিয়েশন থেকে লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়। সেদিনও  হাসি  মুখের  চুনীকে দেখেছিলেন বিশ্বজিৎ। বিশ্বজিতের কথায়, ' এটাই চুনী গোস্বামী।  ' চুনী হাসিখুশি, প্রাণবন্ত, কেয়ার ফ্রি মানুষ ।  কখনও গম্ভীর মুখে দেখিনি ওকে,  আমার চোখে সেই হাসিমুখের চুনীর স্মৃতিই ভেসে আসছে বারবার।'

DEBAPRIYA DUTTA MAJUMDAR

Published by: Rukmini Mazumder
First published: May 4, 2020, 11:56 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर