অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের জন্য বিনামূল্যে টেলি-কাউন্সেলিং সুবিধা CBSE-র!

করোনাকালে গঠনমূলক পদক্ষেপ, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের জন্য বিনামূল্যে টেলি-কাউন্সেলিং সুবিধা চালু করছে CBSE!

দশম শ্রেণীর বোর্ড পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে এবং স্থগিত রাখা হয়েছে দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষাও।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: করোনা মহামারীর দ্বিতীয় ঢেউয়ে নতুন করে টালমাটাল হয়েছে দেশের পরিস্থিতি। লকডাউনের জেরে একদিকে যেমন গৃহবন্দি হয়েছে মানুষ, অন্যদিকে তেমনই বন্ধ হয়েছে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তবে এই সঙ্কটকালেও একের পর এক গঠনমূলক পদক্ষেপ নিয়ে চলেছে কেন্দ্রীয় মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড (CBSE)। ২৪ মে থেকে টেলি-কাউন্সেলিং পরিষেবা চালু করেছে CBSE।

এই টেলি কাউন্সেলিং-এর জন্য CBSE ‘Dost For Life app’-এ ৮৩ জন বিশেষজ্ঞের উপলব্ধ থাকবেন। এছাড়া এখানে থাকবেন, ২৪ জন প্রিন্সিপাল, সারা দেশের CBSE ভুক্ত বিদ্যালয়ের কাউন্সিলরগণ এবং বিশেষজ্ঞ যাঁরা সোমবার থেকে শুক্রবার সকাল ৯ টা ৩০ মিনিট থেকে বিকেল ৫টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত 1800118004 টোল ফ্রি নম্বরে উপলব্ধ থাকতে পারবেন।

CBSE-এর তরফে একটি অফিসিয়াল বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, “মহামারী চলাকালীন CBSE বেশ কয়েকটি নতুন উদ্যোগ নিয়েছে যেমন ম্যানুয়াল অন মেন্টাল হেলথ অ্যান্ড ওয়েলনেস (Manual on Mental health and wellness), দোস্ত ফর লাইফ অ্যাপ্লিকেশন (Dost For Life app) এবং সিরিজ অফ ওয়েবিনার (series of webinars) ইত্যাদি। যার অর্থ শিক্ষার্থী, শিক্ষক এবং অভিভাবকদের মানসিক সুস্থতা বজায় রাখা এবং তা অব্যাহত রাখা”!

আরও আরও দামি হতে চলেছে বিড়ি, সিগারেট, গুটকা! রাজস্থান সরকারের সিদ্ধান্ত দ্রুত কার্যকর হবে

এই মারণ ভাইরাসের সংক্রমণের জেরে CBSE বোর্ড পরীক্ষায় বড়সড় অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। দশম শ্রেণীর বোর্ড পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে এবং স্থগিত রাখা হয়েছে দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষাও। আগামী দিনে পঠনপাঠন এবং পরীক্ষা সংক্রান্ত একাধিক বিষযে সিদ্ধান্ত নেওয়ার স্বার্থে ২৩ মে কেন্দ্রীয় সরকার সমস্ত রাজ্য এবং মন্ত্রণালয়ের স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে বৈঠকে বসে।

দিল্লি ও মহারাষ্ট্র সহ কয়েকটি রাজ্য পরীক্ষা নেওয়ার বিরোধিতা করলেও সরকার পরীক্ষা দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথাই ভাবছে। CBSE দ্বাদশ শ্রেণীর বোর্ডের পরীক্ষার ধরণে কিছু পরিবর্তন হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এদিনের বৈঠকে মূলত দু'টি প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে, প্রথমত, শুধুমাত্র সীমিত বিষয়ের জন্য পরীক্ষা হবে এবং দ্বিতীয়ত, সমস্ত বিষয়েই পরীক্ষা হবে। তবে পরীক্ষা যতগুলি বিষয়েই হোক না কেন, পরীক্ষার সময় ৩ ঘন্টা থেকে কমিয়ে দেড় ঘন্টা করা হবে।

Published by:Pooja Basu
First published: