corona virus btn
corona virus btn
Loading

মাকে খুন করে স্ত্রীয়ের সঙ্গে নিশ্চিন্তে ঘুমিয়ে পড়ল ছেলে, সকালে উঠে বললেন....

মাকে খুন করে স্ত্রীয়ের সঙ্গে নিশ্চিন্তে ঘুমিয়ে পড়ল ছেলে, সকালে উঠে বললেন....

ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিয়রে ৷ তদন্ত চলাকালীন অভিযুক্ত ছেলেকে ধরে ফেলে স্নিফার ডগ ৷ এর জেরেই মাত্র ২৪ ঘণ্টায় খুনের কিনারা করে ফেলেন পুলিশ ৷

  • Share this:

#গোয়ালিয়র: চাকরি নেই, বেকার ! তাই কথা শুনিয়েছিলেন মা ৷ রাগে তাই মাকেই নৃশংসভাবে খুন করলেন ছেলে ৷ পরিকল্পনা করেই মাকে হত্যা করেন ছেলে বলে জানিয়েছেন পুলিশ ৷ ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিয়রে ৷ তদন্ত চলাকালীন অভিযুক্ত ছেলেকে ধরে ফেলে স্নিফার ডগ ৷ এর জেরেই মাত্র ২৪ ঘণ্টায় খুনের কিনারা করে ফেলে পুলিশ ৷ গোয়ালিয়রে মেওয়াতি এলাকার বাসিন্দা রেনুকে বুধবার রাতে নৃশংসভাবে খুন করে দেওয়া হয় ৷ রেনু দেবীকে ঘুমন্ত অবস্থায় হত্যা করা হয় ৷ প্রথমে তাঁর মাথায় ভারী কিছু দিয়ে আঘাত করা হয় ৷ এর জেরে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তাঁর ৷ বাড়ির দোতলায় ঘুমিয়েছিলেন রেনু দেবীর ছেলে জীতেন্দ্র ৷ তিনি সকাল বেলা নীচে নেমে মায়ের মৃতদেহ দেখেন ৷

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ ৷ গোটা ঘরে রক্ত ছড়িয়ে ছিল ৷ কিন্তু ঘরের বাইরে এক ফোঁটাও রক্ত পাওয়া যায়নি ৷ বাড়ির দরজা ভিতর থেকে বন্ধ ছিল ৷ প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান যে আশপাশের কোনও ব্যক্তি এই হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে ৷ পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে জীতেন্দ্র জানিয়েছিলেন, তিনি স্ত্রীর সঙ্গে উপরের ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন ৷ কিন্তু মধ্যরাতে কোনও আওয়াজ বা চিৎকার চেঁচামেচি তারা শুনতে পায়নি ৷ সকালে নীচে নেমে দেখেন মৃত অবস্থায় রেনু দেবী বিছানায় পড়ে রেয়েছেন ৷ এরপর ফরেন্সিক টিমের সঙ্গে পুলিশ ডগ ঘটনাস্থলে পৌঁছয় ৷ ঘটনাস্থল দেখার পর স্নিফার ডগ জীতেন্দ্রের হাত কামড়ে ধরে ৷ জীতেন্দ্রের হাত খতিয়ে দেখা হলে তাতে রেনু দেবীর চুল পাওয়া যায় ৷

পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদের সামনে জীতেন্দ্র ভেঙে পড়েন এবং নিজের দোষ স্বীকার করে নেন ৷ রেনু দেবীর ছেলে জানান, তিনি বেকার ছিলেন তাই মাঝেমধ্যেই তার মা চাকরি করার কথা বলতেন ৷ বেকার বলে মাঝেমধ্যেই কথা শোনাতেন ৷ বুধবার রাতেও এরকম কথা বলায় জীতেন্দ্রের মাথা গরম হয়ে যায় ৷ এরপর হাতুড়ি দিয়ে মায়ের মাথায় আঘাত করলে সেখানেই মৃত্যু হয় রেনু দেবীর ৷ খুন করার পর বাথরুমে গিয়ে জামা কাপড় ধুয়ে ফেলেন ৷ এরপর উপরে গিয়ে স্ত্রীর পাশে ঘুমিয়ে পড়েন ৷ সকালে উঠে একের পর এক মিথ্যে কথা বলতে থাকেন ৷ তবে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে দোষ স্বীকার করে নেন ৷ আপাতত তিনি পুলিশের হেফাজতে রয়েছেন ৷

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: June 27, 2020, 10:12 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर