Zydus Cadila COVID 19 Vaccine: 'সেপ্টেম্বর শেষ থেকেই ১২-১৮ বয়সীদের জন্য মিলবে জাইডাস-ক্যাডিলার করোনা টিকা'

'সেপ্টেম্বর শেষ থেকেই ১২-১৮ বয়সীদের জন্য মিলবে জাইডাস-ক্যাডিলার করোনা টিকা'

আগামী সেপ্টেম্বরের শেষ দিক থেকেই হাতে পাওয়া যাবে জাইডাস ক্যাডিলার তৈরি করোনাভাইরাস টিকা (Zydus Cadilas COVID 19 Vaccine)।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: আগামী সেপ্টেম্বরের শেষ দিক থেকেই হাতে পাওয়া যাবে জাইডাস ক্যাডিলার তৈরি করোনাভাইরাস টিকা (Zydus Cadilas COVID 19 Vaccine)। দেশের করোনাভাইরাসের (Coronavirus Vaccine) টিকার ওয়ার্কিং গ্রুপ, ন্যাশনাল টেকনিকাল অ্যাডভাইজরি গ্রুপ অন ইমিউনাইজেশন (NTAGI)-এর চেয়ারম্যান ডক্টর এন কে অরোরা বলেছেন, জাইডাস ক্যাডিলার তৈরি ১২-১৮ বছর বয়সীদের জন্য করোনার টিকা সেপ্টেম্বরের শেষ দিক থেকেই হাতে পাওয়া যাবে বলে আশা করা যাচ্ছে। টিকাকরণ সংক্রান্ত জাতীয় উপদেষ্টা গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান এন কে অরোরা আরও জানিয়েছেন, ১২-১৮ বছর বয়সীদের উপর ট্রায়ালের জাইডাস ক্যাডিলার তৈরি তথ্য সামনের মাসের মধ্যেই হাতে পাওয়া যাবে। এর পরই সেই টিকা দেওয়ার কাজ শুরু করা যাবে।

    গত জুনের শেষদিকেই ভারতে ব্যবহারের ছাড়পত্র পায় জাইডাস ক্যাডিলার কোভিড-১৯ টিকা। কোভ্যাক্সিন, কোভিশিল্ড এবং স্পুটনিক-ভি-র পর চতুর্থ টিকা হিসেবে জাইডাস ক্যাডিলার 'জাইকোভ-ডি'-কে অনুমোদন দেয় দেশের ওষুধ নিয়ামক সংস্থা ড্রাগ কন্ট্রোল জেনারাল অব ইন্ডিয়া (ডিসিজিআই)। ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সীদেরও এই টিকা দেওয়া যাবে বলে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক সূত্রের খবর।

    কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে সুপ্রিম কোর্টে জানিয়ে দেওয়া হয়, ১২-১৮ বছর বয়সীদের উপর এই টিকার ক্লিনিকাল ট্রায়াল শেষ হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকার হলফনামা দিয়ে জানিয়েছিল, শীঘ্রই ১২-১৮ বছর বয়সিদের জাইডাস ক্যাডিলার টিকা দেওয়ার কাজ শুরু হবে। ৩৭৫ পাতার ওই হলফনামায় কেন্দ্র জানিয়েছে, চলতি বছরের মধ্যেই দেশের ১৮ ঊর্ধ্বদের প্রত্যেককে টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে কেন্দ্র। তার জন্য ১৮৬ কোটি ৬০ লক্ষ টিকা প্রয়োজন।

    'জাইকোভ-ডি' হল 'প্লাজমিড ডিএনএ' টিকা। অনুমোদন পাওয়ার পর ১২ বছর বা তার বেশি বয়সের শিশুদের জন্য এটি ভারতের প্রথম টিকা হতে চলেছে। যেহেতু সংস্থাটি এই বয়সীদের উপর আগে ট্রায়াল চালিয়েছে। জাইডাস দাবি করেছে, পরীক্ষামূলক প্রয়োগে তাদের তৈরি টিকার কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ধরা পড়েনি। যা একটা সদর্থক বিষয়। তা ছাড়া এই টিকার আরও একটা সুবিধা হল যে এতে সূচ ফোটানোর কোনও প্রয়োজন পড়বে না।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: