• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • UK-India Restrictions: ভারত থেকে ব্রিটেনে গেলে ১০ দিনের কোয়ারান্টিন বন্ধ, নিয়ম শিথিল প্রশাসনের

UK-India Restrictions: ভারত থেকে ব্রিটেনে গেলে ১০ দিনের কোয়ারান্টিন বন্ধ, নিয়ম শিথিল প্রশাসনের

ভারত থেকে ব্রিটেনে গেলে ১০ দিনের কোয়ারান্টিন বন্ধ, নিয়ম শিথিল প্রশাসনের

ভারত থেকে ব্রিটেনে গেলে ১০ দিনের কোয়ারান্টিন বন্ধ, নিয়ম শিথিল প্রশাসনের

করোনাভাইরাসের দু'টি ডোজ (Coronavirus Vaccine) নেওয়া ভারতীয় যাত্রীদের ব্রিটেনে ঢোকার ক্ষেত্রে (UK-India Restrictions) নিয়মে বড় বদল আনল বরিস জনসনের সরকার।

  • Share this:

    #লন্ডন: করোনাভাইরাসের দু'টি ডোজ (Coronavirus Vaccine) নেওয়া ভারতীয় যাত্রীদের ব্রিটেনে ঢোকার ক্ষেত্রে (UK-India Restrictions) নিয়মে বড় বদল আনল বরিস জনসনের সরকার। এবার থেকে ব্রিটেনে নামার পর ১০ দিন হোটেলে কোয়ারান্টিন থাকতে হবে না। লাল তালিকা থেকেও ভারতের নাম সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এর ফলে ভারতীয় বহু পড়ুয়া ও পরিবারের লোকেরা সহজেই ব্রিটেনে ফিরে যেতে পারবেন এবং সমস্যার সমাধান সম্ভব হবে।

    ব্রিটেনে পা রেখে ভারতীয়রা এখন থেকে নিজেদের পছন্দের জায়গাতেই ১০ দিন কোয়ারান্টিনে থাকতে পারবেন। কোয়ারান্টিন চলাকালীন পাঁচ দিনের মাথায় করোনা পরীক্ষাও করানো যাবে। সেই রিপোর্ট অনুযায়ী বাইরে বেরনোও সম্ভব হবে। লাল তালিকা থেকে অ্যাম্বর তালিকায় আন্তর্জাতিক যাত্রীদের নিয়ে যাওয়া মানেই নিজেদের পছন্দের জায়গাতেই কোয়ারান্টিন থাকতে পারার সুযোগ। পরিবহণ দফতরের থেকে বুধবার এই ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী রবিবার, ৮ অগস্ট বিকেল ৪টে থেকে এই নিয়ম লাগু করা হবে।

    ব্রিটেনের পরিবহণ সচিব ট্যুইট করে জানিয়েছেন, 'আরব আমিরশাহী, কাতার, ভারত ও বাহরিনকে লাল তালিকা থেকে সরানো হল। আগামী ৮ অগস্ট বিকেল ৪টে থেকে এই নিয়ম শুরু করা হবে।' তিনি আরও বলেছেন, 'সাবধানতা এখনই কোনও ভাবেই শিথিল করা হচ্ছে না। তবে এই নিয়মের মাধ্যমে বিশ্বের আরও অনেক জায়গা থেকে পরিবার, বন্ধু ও কাজের সুযোগে মানুষ মিলিত হতে পারবেন। দেশের টিকাকরণ কর্মসূচিরই সুফল এটি।'

    এতদিন করোনার ভারতীয় প্রজাতি ভাইরাস নিয়ে চিন্তায় ছিল ব্রিটেন। যেভাবে ভারতে করোনা  সংক্রমণ বাড়ছিল, তাতে এ দেশ থেকে কোনও ভারতীয় ব্রিটেনে ঢুকতে পারবেন না জানানো হয়েছিল। ব্রিটেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রক অবশ্য ভারত থেকে কোনও আইরিশ বা ব্রিটিশ নাগরিকেরা দেশে ফিরলে,  তাঁদের এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়তে হবে না বলে জানিয়েছিলেন। যদিও এই সময়ে যে ব্রিটিশ নাগরিকেরা দেশে ফিরবেন, তাঁদের ১০ দিনের কোয়ারান্টিন বাধ্যতামূলক করেছিল ব্রিটিশ সরকার। দেশে ঢোকার দ্বিতীয় ও অষ্টম দিনে তাঁদের করোনা পরীক্ষা করাতে হবে। নিজের খরচে থাকতে হবে আইসোলেশন সেন্টারে। ভারতীয়দের জন্যও একই নিয়ম চালু করা হয় পরে।

    অ্যাম্বার তালিকায় থাকা দেশের যাত্রীদের যাত্রার তিন দিন আগে করোনার পরীক্ষা করাতে হবে। এবং একইসঙ্গে ইংল্যান্ডে পৌঁছনোর পর দু'টি করোনা পরীক্ষা করাতে হবে। এরই সঙ্গে ১০ দিন নিজেদের পছন্দের জায়গায় ১০ দিন কোয়ারান্টিনে থাকতে হবে।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: