ব্রিটেনের রাজপরিবারে করোনা থাবা, প্রিন্স চার্লসের পর এবার করোনা আক্রান্ত রানীর আরও এক ঘনিষ্ঠ

রানির সঙ্গে প্রতিনিয়তই তাঁর ওঠাবসা ৷ রাজপরিবারে করোনা সংক্রমণের খবরে আতঙ্কিত সকলে ৷

রানির সঙ্গে প্রতিনিয়তই তাঁর ওঠাবসা ৷ রাজপরিবারে করোনা সংক্রমণের খবরে আতঙ্কিত সকলে ৷

  • Share this:

    #লন্ডন: ব্রিটেনের রাজ পরিবারে আরও বাড়ল করোনা সংক্রমণের আতঙ্ক ৷ প্রিন্স চার্লসের পর এবার কোভিড ১৯ পজিটিভ রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের সবথেকে ঘনিষ্ঠ পরিচারিকা ৷ এই খবর আসার পরই রানির স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগ ছড়িয়েছে ব্রিটেনে ৷

    চলতি সপ্তাহের বুধবারই বাকিংহাম প্যালেসের তরফ থেকে প্রিন্স চার্লসের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর জানানো হয়েছিল ৷ সপ্তাহ না পেরোতে পেরোতেই সামনে এল রাজপ্রাসাদে আরও এক সদস্যের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর ৷ একটি আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী, রানির সবথেকে ঘনিষ্ঠ পরিচারিকা, যার কাজই ছিল রানিকে বিভিন্ন সময়, ফলের রস, খাবার পরিবেশন করা ৷ রানির পোষ্য কুকুরের দেখভাল করা ৷ এমনকি অতিথিরা এলে আপ্যায়নের দায়িত্বভারও ছিল এই পরিচারিকার উপর ৷ রানির এতটাই ঘনিষ্ঠ তিনি যে সমস্ত চিঠি এবং রানির জন্য বার্তা সবটাই সামলাতেন এই পরিচারিকা ৷

    প্রিন্স চার্লসের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবরের পরই ডাচেসকেও স্কটল্যান্ডে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে ৷  এরপরই ৯৩ বছরের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথও তাঁর ৯৮ বছরের স্বামীকে নিয়ে বাকিংহাম ক্যাসেল ছেড়ে উইন্ডসোর ক্যাসেলে গিয়ে থাকতে শুরু করেন ৷ রাজপরিবারে করোনা সংক্রমণের খবরে আতঙ্কিত সকলে ৷ এবার রানির ঘনিষ্ঠ পরিচারিকার আক্রান্ত হওয়ার খবর সামনে আসতেই রীতিমতো অস্বস্তিতে রাজপরিবার ৷ বাকিংহাম প্যালেসের তরফে প্রেস বিবৃতিতে জানানো হয়, ‘রাজ পরিবারের প্রত্যেকেই তাদের প্রিয় রানি এবং ডিউকের জন্য চিন্তিত ৷ সকলে বর্তমান পরিস্থিতিতে অত্যন্ত আতঙ্কিত সকলে ৷ রানির আশপাশে থাকা সকলের করোনা টেস্ট এখনও করা না হলেও শীঘ্রই করা হবে ৷ তবে রাজপ্রসাদের বাতাসে এখন আতঙ্ক ঘুরে বেড়াচ্ছে ৷’

    তবে আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা দি সান-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, রানির আশপাশে থাকা ঘনিষ্ঠ ১২ জন কর্মচারির করোনা টেস্ট ইতিমধ্যেই করা হয়েছে এবং তাদের প্রত্যেকের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে ৷ অন্যদিকে, শনিবার পর্যন্ত ব্রিটেনে ১৭ হাজার মানুষের করোনা সংক্রমণের তথ্য সামনে এসেছে এবং কোভিড ১৯ সংক্রমণের কারণে মৃত্যু হয়েছে ১,০১৯ জনের ৷

    Published by:Elina Datta
    First published: