corona virus btn
corona virus btn
Loading

আধার না থাকলে সেলুনে কাটা যাবে না চুল-দাড়ি! নিয়মে নাজেহাল সাধারণ মানুষ

আধার না থাকলে সেলুনে কাটা যাবে না চুল-দাড়ি! নিয়মে নাজেহাল সাধারণ মানুষ
Representative Image

স্যান্ডার্ড অপরেটিং প্রসিডিওর, এই নিয়মের ভিত্তিতেই আধার নম্বর বাধ্যতামূলক হয়েছে সেলুন-স্পা বা পার্লারে৷ এর মাধ্যমে নামের তালিকা বজায় রাখতে হচ্ছে এই সব সেলুন মালিকদের৷

  • Share this:

#চেন্নাই: আধার নেই? তাহলে এ যাত্রায়ও কাটা হবে না আপনার চুল-দাড়ি৷ আধার ছাড়া কাউকেই সেলুন বা পার্লারে ঢুকতে দেওয়া যাবে না৷ তামিলনাড়ু সরকারের এই নিয়মে নাজেহাল সেলুন মালিক থেকে চুল কাটতে আসা সাধারণ জনতা৷ ১ জুন থেকে আনলকের প্রথম দফায় সেলুন বা পার্লার খোলা অনুমতি দেওয়া হয়েছে৷ কিন্তু সেখানে বেশ কিছু সর্ত আরোপ করেছে তামিলনাড়ু সরকার৷ জানানো হয়েছে যে সেলুন, পার্লার, স্পা যেখানেই যান না কেন দেখাতে হবে আধার কার্ড৷ নয়ত কোনও পরিষেবা মিলবে না৷

এতে সমস্যা বেড়েছে৷ অনেক গ্রাহক চুল কাটতে এসেছেন বিনা আধার কার্ডে আবার সেলুন মালিকরাও আধার নম্বর লিখতে ক্লান্ত৷ 'আমি গতকাল চুল কাটতে গিয়েছিলাম, কিন্তু আধার কার্ড দেখাতে পারিনি বলে ফিরে আসতে হয়েছে৷ লকডাউনে এমনই চুলের যা দশা, তারপর এমন ব্যবস্থায় খুবই অসুবিধায় পড়ছি', বলছেন অন্নানগড়ের এক বাসিন্দা৷ অন্যদিকে এক সেলুন কর্তা বলছেন, 'সবার আধার নম্বর লিখে তাদের সেলুনে ঢুকতে দেওয়া যেন একটু বাড়াবাড়ি হয়ে যাচ্ছে৷ সরকারের কাছে অনুরোধ করব যাতে এই নিয়মের পরিবর্তন করা হয়'৷

স্যান্ডার্ড অপরেটিং প্রসিডিওর, এই নিয়মের ভিত্তিতেই আধার নম্বর বাধ্যতামূলক হয়েছে সেলুন-স্পা বা পার্লারে৷ এর মাধ্যমে নামের তালিকা বজায় রাখতে হচ্ছে এই সব দোকানীদের ৷ করোনার খেয়াল রাখতে এমন পদক্ষেপ সরকারের৷

তামিলনাড়ুর অন্যান্য জেলায় ২৪ মে থেকেই সেলুন খোলার অনুমতি দেয় রাজ্য সরকার৷ তবে চেন্নাই জুড়ে তা খোলার অনুমতি মেলে আনলকের প্রথম পর্বে৷ আধার নম্বরের পাশাপাশি আরও কিছু বিধি মানার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ যেমন মাস্ক পরা, হ্যান্ড স্যানেটাইজার ব্যবহার৷ সেলুনকর্মীদের পরতে হবে গ্লাভসও৷ রুমাল বা ব্লেড পুনর্ব্যবহার করা যাবে না৷ একবার ব্যবহারের পর না ধুয়ে ব্যবহার করা যাবে না তোয়ালেও৷

কোনও কর্মীর জ্বর বা সর্দি-কাশি হলে, তাদের কর্মক্ষেত্রে আসতে দেওয়া যাবে না৷ এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে হবে মালিককে৷ ভিড় করা যাবে না সেলুন বা পার্লারে৷ এক সময় ৫০ শতাংশ পর্যন্ত মানুষ থাকতে পারবেন নির্দিষ্ট সেলুন বা পার্লারে৷

করোনা তৎপরতায় এমন সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছে সরকার৷ সেলুনে আসা কেউ করোনায় আক্রান্ত হলে খুব সহজে গ্রাহকদের নথি দেখে সকলকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো যাবে এবং সতর্কও করা সম্ভব হবে তাড়াতাড়ি৷ তাই এই নিয়ম৷

Published by: Pooja Basu
First published: June 4, 2020, 11:53 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर