করোনার প্রথম ধাক্কার পর উদাসীনতা দেখিয়েছে সরকারও, স্বীকার মোহন ভাগবতের

আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত৷

শে যে চিকিৎসা সংকট বর্তমানে তৈরি হয়েছে, তার জন্য সামগ্রিক ভাবে সমাজের সব স্তরের মানুষ দায়ী বলেই দাবি ভাগবতের৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: শুধু সাধারণ মানুষের উদাসীনতা নয়, করোনার দ্বিতীয় ধাক্কায় দেশ জর্জরিত হওয়ার জন্য সমানভাবে দায়ী সরকারও৷ কোনও বিরোধী নেতা নন, মোদি সরকারের অস্বস্তি বাড়িয়ে এ দিন এমন মন্তব্য করেছেন আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত৷ দেশে যে চিকিৎসা সংকট বর্তমানে তৈরি হয়েছে, তার জন্য সামগ্রিক ভাবে সমাজের সব স্তরের মানুষ দায়ী বলেই দাবি ভাগবতের৷

    আরএসএস প্রধান এ দিন বলেছেন, 'আমরা এই পরিস্থিতিতে এসে দাঁড়িয়েছি কারণ চিকিৎসকদের সতর্কবার্তা সত্ত্বেও সরকার, প্রশাসন থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ প্রত্যেকে উদাসীন হয়ে গিয়েছিলেন৷' সঙ্ঘপ্রধান আরও বলেছেন, 'এখন বলা হচ্ছে তৃতীয় ঢেউও আসবে৷ তাহলে আমরা এখন কী করব? একে ভয় পাবো নাকি সঠিক মানসিকতা দেখিয়ে এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করে জয়ী হওয়ার চেষ্টা করব?' করোনা অতিমারির মধ্যে মানুষের মধ্যে ইতিবাচক বার্তা দিতে বক্তৃতার একটি সিরিজ প্রকাশ করছে আরএসএস৷ এ দিন সেখানেই এই মন্তব্য করেন ভাগওয়াত৷

    সঙ্ঘপ্রধানের পরামর্শ, এখন থেকেই গোটা দেশের মনযোগ ভবিষ্যতের জন্য তৈরি থাকার দিকে ঘোরাতে হবে৷ আর তার সঙ্গে বর্তমান অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়ে সরকারকেও প্রস্তুত থাকতে হবে৷ দেশে করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে যে বাধাগুলি রয়েছে, সেগুলিকে দূরে সরিয়ে এবং বর্তমান ভুলগুলি থেকে শিক্ষা নিয়ে তৃতীয় ঢেউয়ের সঙ্গে লড়াই করার জন্য দেশবাসীকে উৎসাহিত করেন ভাগবত৷

    আরএসএস-এর কোভিড রেসপন্স টিম-এর উদ্যোগে গত ১১ মে থেকেই এই বিশেষ বক্তৃতার সিরিজ শুরু হয়েছে৷ উইপ্রো গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা আজিম প্রেমজি, আধ্যাত্মিক গুরু জাগ্গি বাসুদেব সহ অনেকেই অনলাইনে এই সিরিজে বক্তব্য রেখেছেন৷

    সাধারণ মানুষকে ইতিবাচক থাকার বার্তার দিয়ে মোহন ভাগবত বলেন, 'জীবন- মৃত্যুর চক্র চলতেই থাকবে৷ কিন্তু তাতে আমাদের ভয় পেলে চলবে না৷ বর্তমানের এই পরিস্থিতিই ভবিষ্যতের জন্য আমাদের তৈরি করবে৷ সাফল্যও যেমন চূড়ান্ত নয়, ব্যর্থতাও একই ভাবে ভয়ঙ্কর নয়৷ এগিয়ে যাওয়ার সাহসই হল আসল৷' আরএসএস-এর ফেসবুক পেজ এবং ইউটিউব চ্যানেলে 'পজিটিভিটি আনলিমিটেড' নামে এই বিশেষ সিরিজ দেখানো হচ্ছে৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: