স্যানিটাইজার অমিল, করোনা সংক্রমণ মোকাবিলায় জোগান দেবে প্রেসিডেন্সি-যাদবপুর

স্যানিটাইজার অমিল, করোনা সংক্রমণ মোকাবিলায় জোগান দেবে প্রেসিডেন্সি-যাদবপুর

প্রযুক্তিনির্ভর ল্যাবগুলিতে এই স্যানিটাইজার তৈরি উদ্যোগ নিয়েছে পড়ুয়ারা।

  • Share this:

#কলকাতাঃ করোনা ভাইরাস!

আতঙ্কে বাজারে অমিল স্যানিটাইজার। তাই  যোগান সচল রাখতে এবার আসরে নামল প্রেসিডেন্সি ও যাদবপুরের পড়ুয়ারা। মূলত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা'র গাইডলাইন মেনে অধ্যাপকদের সহযোগিতা নিয়ে স্যানিটাইজার তৈরি করতে শুরু করেছে প্রেসিডেন্সির পড়ুয়ারা। সোমবার অথবা মঙ্গলবার থেকেই বিভিন্ন জায়গায় এই স্যানিটাইজার বিক্রি করা হবে। তবে শুধু প্রেসিডেন্সির পড়ুয়ারাই নয়, একইভাবে স্যানিটাইজার তৈরি করতে রাস্তায় নেমেছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারাও। স্যানিটাইজার তৈরিতে শুধুমাত্র যে যাদবপুর বা প্রেসিডেন্সি পড়ুয়ারাই উদ্যোগ নিয়েছেন এমনটা অবশ্য নয়। রবিবার থেকে লেডি ব্রেবোর্ন কলেজ থেকে শুরু করে একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পড়ুয়ারা স্যানিটাইজার তৈরিতে হাত লাগাতে শুরু করেছে। এক্ষেত্রে বিভিন্ন চিকিৎসকদেরও পরামর্শ নিচ্ছেন উদ্যোগী পড়ুয়ারা।

তবে বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজ ক্যাম্পাসে নয়। বিভিন্ন  প্রযুক্তিনির্ভর ল্যাবগুলিতে এই স্যানিটাইজার তৈরি হবে। পড়ুয়াদের এই বিশেষ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন উপাচার্য থেকে শুরু করে কলেজের অধ্যক্ষরা। বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে বিভিন্ন সময়েই  আন্দোলন করতে দেখা যায় যাদবপুর, প্রেসিডেন্সির পড়ুয়াদের। তাঁরাই এবার করোনা ভাইরাসের সংক্রুন রুখতে জোটবদ্ধ হয়ে বাজারে স্যানিটাইজারের যোগান সচল রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিলেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা'র নির্দেশ মেনে ইতিমধ্যেই স্যানিটাইজার তৈরি করে ফেলেছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। আর প্রেসিডেন্সির পড়ুয়ারাদের স্যানিটাইজার তৈরি করা এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা।

সূত্রের খবর যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ফার্মাসিউটিক্যাল বিভাগ প্রাকৃতিক উপকরণ দিয়ে হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করছে। এ প্রসঙ্গে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য চিরঞ্জিব ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন, "এইসব স্যানিটাইজার বিনামূল্যে ও সুলভে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিভিন্ন এলাকায় বিলি করা হয়েছে। আরও  করার চেষ্টা চলছে।" অন্যদিকে, প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা ইতিমধ্যেই স্যানিটাইজার তৈরীর জন্য ক্রাউড ফান্ডিংয়ের  ডাক দিয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপকদের মতামত নিয়ে তারা স্যানিটাইজার তৈরীর উদ্যোগ নিয়েছেন।

এই মুহূর্তে লাফিয়ে লাফিয়ে দেশজুড়ে বাড়ছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। এ রাজ্যেও ইতিমধ্যেই চারজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। আতঙ্কে গত সপ্তাহে থেকেই বাজারে স্যানিটাইজার কার্যত অমিল। আর তাই স্যানিটাইজারের  যোগান সচল রাখতে যেভাবে পড়ুয়ারা তৈরীর উদ্যোগ নিয়েছেন তার প্রশংসা করছেন শিক্ষাক-শিক্ষিকারা।

SOMRAJ BANDOPADHYAY

First published: March 22, 2020, 2:40 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर