COVID19: করোনা পরীক্ষার লাইনে দিনের পর দিন কমছে ভিড়, করোনা আক্রান্তের সংখ্যাও কমছে দিন দিন

বর্তমানে পজিটিভ রুগী (corona positive) ৫ থেকে ৬ জন আবার হয়তো কোনও দিন টেস্ট করতে আসা সবাই বাড়ি ফিরছে নেগেটিভ রিপোর্ট (COVID19 negetive)নিয়েই।

বর্তমানে পজিটিভ রুগী (corona positive) ৫ থেকে ৬ জন আবার হয়তো কোনও দিন টেস্ট করতে আসা সবাই বাড়ি ফিরছে নেগেটিভ রিপোর্ট (COVID19 negetive)নিয়েই।

  • Share this:

#বীরভূম: তুলনামূলক ভাবে বীরভূমে কমেছে করোনা পরীক্ষার হার (COVID19 Birbhum)। দেখা যাচ্ছে না কোরোনা পরীক্ষার লাইনে সেই উপচে পড়া মানুষের ভিড়। ২০০ থেকে ৩০০ জনের লাইনের সংখ্যাটা এখন এসে দাঁড়িয়েছে প্রায় ১০ থেকে ১২ জনে (Corona decrease in Birbhum)। এমন চিত্রই ধরা পড়ছে বীরভূমের সিউড়ির বিভিন্ন করোনা পরীক্ষা কেন্দ্র গুলিতে। করোনা নিয়ে আতঙ্কিত ছোট থেকে বড়ো সবাই। আর এই আতঙ্কের কারণেই হালকা জ্বর বা গলাব্যথা হলেই সবাই ছুটছিলো করোনা পরীক্ষা কেন্দ্রে।  বেশ কয়েকদিন আগেও এক এক দিনে পরীক্ষাকেন্দ্র (corona center) গুলিতে লাইন পেরিয়ে যাচ্চিল ৩০০ এরও বেশি। তার মধ্যে পজিটিভ রুগীর সংখ্যা উঠে আসতো  ২০০ জনেরও বেশি। আর এই করোনাকে ঠেকাতেই পরক্ষণেই ঘোষণা হয় বিধিনিষেধ। তারপর কিছুটা হলেও পাল্টে গেল করোনা পরীক্ষা কেন্দ্র গুলোর চিত্র। দিনের পর দিন কমতে থাকল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। কমতে কমতে সংখ্যাটা নেমে এল একদম ১০ থেকে ১২তে । আগে যে পরিমানে বাড়ছিল পজিটিভ রুগীর সংখ্যা তা এখন অনেক কম ।

বর্তমানে পজিটিভ রুগী (COVID19 positive) ৫ থেকে ৬ জন আবার হয়তো কোনও দিন টেস্ট করতে আসা সবাই বাড়ি ফিরছে নেগেটিভ রিপোর্ট নিয়েই। গত পাঁচদিনের রিপোর্ট অনুযায়ী সিউড়ি সদর হাসপাতালে ৭৮ জন করোনা পরীক্ষা করিয়েছেন তার মধ্যে পজিটিভ রুগী মাত্র ৯ জন। সিউড়ী পুরসভার চিত্রটাও এক৷ পাঁচদিনে পরীক্ষা করিয়েছেন ৩৯ জন, পজিটিভ ৫ থেকে ৬ জন।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউকে (Corona second wave) প্রশাসন থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ সবাই বিভিন্নি ব্যবস্থা নিয়ে রুখতে পেরেছে। তবে এখানেই যে এর শেষ তা নয়। দ্বিতীয় ঢেউয়ের রেশ কাটতে না কাটতেই আসতে চলেছে তৃতীয় ঢেউ (Coronavirus third wave)বলে শোনা যাচ্ছে। আর যার প্রভাব পড়বে বেশি বাচ্চাদের ওপর, এমনি মত উঠে আসছে। সাধারণ মানুষ যে ভাবে করোনাবিধি (COVID19 protocol) মানছিলেন , যেভাবে বিভিন্ন মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিচ্ছিলেন ঠিক তেমন ভাবেই সবাই কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চললে ঠেকানো যাবে করোনার এই ক্ষতিকর তৃতীয় ঢেউকেও। তবে করোনা পরীক্ষার লাইনে ভিড় কম হওয়ায় হাঁফ ছেড়ে বেঁচেঁছে প্রশাসন থেকে সাধারণ মানুষ।

Published by:Pooja Basu
First published: