Covid-19: 'করোনার দ্বিতীয় ঢেউ থামাতেই হবে', মুখ্যমন্ত্রীদের বার্তা উদ্বিগ্ন প্রধানমন্ত্রীর

Covid-19: 'করোনার দ্বিতীয় ঢেউ থামাতেই হবে', মুখ্যমন্ত্রীদের বার্তা উদ্বিগ্ন প্রধানমন্ত্রীর

Need To Stop Emerging Second Peak Of Covid

দেশের করোনা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে এদিন সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের নিয়ে ভার্চুয়াল বৈঠক করেন মোদি৷ সেখানে তিনি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, যে করেই হোক আছড়ে পড়া করোনার দ্বিতীয় ঢেউকে থামাতেই হবে৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ফের মাথা চাড়া দিয়েছে করোনা (Covid-19) ভাইরাস৷ শুরু হয়ে গিয়েছে দ্বিতীয় ঢেউ৷ মহারাষ্ট্র, কেরল, পঞ্জাব, কর্ণাটক ও গুজরাতের মতো রাজ্যে হুহু করে বাড়ছে দৈনিক সংক্রমণ! রীতিমতো চিন্তায় কেন্দ্র৷ উদ্বিগ্ন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Modi)৷

    বুধবারদেশের করোনা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে এদিন সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের (পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যেপাধ্যায় ও ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেল ছিলেন না)৷ নিয়ে ভার্চুয়াল বৈঠক করেন মোদি৷ সেখানে তিনি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, যে করেই হোক আছড়ে পড়া করোনার দ্বিতীয় ঢেউকে থামাতেই হবে৷

    মোদি এদিন বলেন, "আমরা যদি মহামারিকে এখনই থামাতে না পারি, তাহলে দেশ জুড়ে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়বে৷ অবিলম্বে আমাদের করোনার দ্বিতীয় ঢেউকে থামাতেই হবে৷ আমাদের বড় ও সিদ্ধান্তমূলক পদক্ষেপ নিতে হবে৷" মোদি এদিন আত্মতুষ্টিতে ভুগতে বারণ করেছেন৷ তিনি বলেন, "করোনা যুদ্ধে যে আত্মবিশ্বাস আমরা অর্জন করেছি, সেটা যেন অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাস না হয়ে যায়৷  আমাদের সাফল্য যেন অসতর্কতার কারণ না হয়ে দাঁড়ায়!"

    প্রধানমন্ত্রী এদিন আরটি-পিসিআর টেস্টের ওপর জোর দেওয়ার সঙ্গেই ট্র্যাকিং অর্থাৎ করোনা আক্রমণ চিহ্নিত করতে বলছেন দ্রুত৷ তাঁর সংযোজন, "৭০ শতাংশ আরটি-পিসিআর পরীক্ষা করাতে হবে৷ রাজ্যগুলিকে র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টের ওপর নির্ভর করে থাকলে হবে না৷" উত্তরপ্রদেশ, অন্ধ্রপ্রদেশ ও তেলেঙ্গানার মতো রাজ্যে করোনা টিকা নষ্ট হয়েছে বলেও খবর হয়েছে৷ মোদি জানিয়েছেন, "একটি ডোজ নষ্ট হওয়া মানে কারোর স্বাস্থ্যের অধিকার ছিনিয়ে নেওয়া৷"

    গতকাল থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত ভারতে ২৮,৯০৩ নতুন করোনা কেসের রিপোর্ট হয়েছে৷ গত ১১ ডিসেম্বর (৩০,২৫৪) থেকে সর্বোচ্চ সংক্রমণের রিপোর্ট এসেছে৷ এই মুহূর্তে ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ১৪ লক্ষ৷ মহামারিতে প্রাণ গিয়েছে ১,৫৯, ০৪৪ জনের৷ গত ১৫ জানুয়ারি ১৯১ জনের মৃত্যু হয়েছিল করোনায়৷ তারপর গতকাল প্রাণ গিয়েছে ১৮৮ জনের৷ সব মিলিয়ে রীতিমতো চিন্তার কারণ! গত ২৪ ঘণ্টায় মহারাষ্ট্র (১৭,৮৬৪), কেরল (১৯৭০), পঞ্জাব (১৪৬৩), কর্ণাটক (১১৩৫) ও গুজরাতে (৯৫৪) সবচেয়ে বেশি করোনা আক্রান্তের খবর মিলেছে৷

    Published by:Subhapam Saha
    First published: