Coronavirus| 'করোনা থেকে আল্লাহই বাঁচাতে পারে,' সরকারের নিষেধাজ্ঞা উড়িয়ে পাকিস্তানে দল বেঁধে নমাজ!

পাকিস্তানে লকডাউন ভেঙে নমাজ পাঠ

ইতিমধ্যেই দল বেঁধে নমাজ পড়ায় পাক সরকারের নিষেধাজ্ঞা মানতে চাইছেন না দেশের একাধিক ধর্মীয় নেতা৷ প্রায় ৬০ জন ধর্মী. নেতা একযোগে প্রতিহাদ জানিয়ে বলেছেন, এই কঠিমন আল্লাহর দয়া পাওয়ার জন্য সকলের নমাজ পড়া উচিত৷

  • Share this:

    #ইসলামাবাদ: পাকিস্তানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে৷ ১৩৪ জনের মৃত্য৷ সংখ্যাটা লাফিয়ে বাড়ছে৷ এহেন পরিস্থিতিতে দেশের একটি অংশের মানুষ চরম ক্ষতির মুখে নিজেরাই নিজেদের ঠেলে দিচ্ছেন৷ স্রেফ বিশ্বাসের উপর ভর করে৷ যার নির্যাস, শুক্রবার ইসলামাবাদ সহ পাকিস্তানের বিভিন্ন মসজিদে শয়ে শয়ে মানুষ জড়ো হলেন নমাজ পড়তে৷ তাঁদের বক্তব্য, করোনা থেকে একমাত্র তাঁদের আল্লাহ-ই বাঁচাতে পারেন৷ তাই এই সময়েই সবচেয়ে বেশি করে নমাজ পড়া উচিত৷

    পাকিস্তানেও চলছে লকডাউন৷ তবে বেশি কিছু ক্ষেত্রে অনেকখানি ছাড় দিয়ে৷ ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে প্রায় সমস্ত জায়গায়৷ বিশ্বের কাছে আর্থিক সাহায্যও চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান৷ বিলাল গুঞ্জ এলাকার বাসিন্দা আওয়াসি আলির কথায়, 'কেন ভয় পাবো? আমি মনে করি জীবন ও মৃত্যু আল্লাহর হাতে৷ আমি মসজিদে নমাজ পড়তে এসেছি, তার কারণ আল্লহর কাছে ক্ষমা চাইতে ও তাঁর আশীর্বাদ নিতে৷গোটা বিশ্ব যদি আল্লাহর কাছে আত্মসমর্পণ করে, তা হলেই এই অতিমারী থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে৷'

    করাচিতে গত সপ্তাহে দু বার পুলিশের উপর হামলা চালানো হয়েছে৷ কারণ, করোনা সংক্রমণ রুখতে ও লকডাউন নিয়ম কার্যকর করতে ভিড় করে নমাজ পড়ায় বাধা দিয়েছিল পুলিশ৷

    ইতিমধ্যেই দল বেঁধে নমাজ পড়ায় পাক সরকারের নিষেধাজ্ঞা মানতে চাইছেন না দেশের একাধিক ধর্মীয় নেতা৷ প্রায় ৬০ জন ধর্মী. নেতা একযোগে প্রতিহাদ জানিয়ে বলেছেন, এই কঠিমন আল্লাহর দয়া পাওয়ার জন্য সকলের নমাজ পড়া উচিত৷

    ফলে ধর্মীয় নেতাদের সম্মীলিত প্রতিবাদে চাপে পাক সরকার৷ শত চেষ্টা করে মসজিদগুলিতে দল বেঁধে নমাজ পড়া আটকাতে পারছে না পুলিশ৷ যার ফলে, বিরাট সংক্রমণের প্রমাদ গুনছে পাকিস্তান৷

    Published by:Arindam Gupta
    First published: