একমাত্র ছেলের বিয়ে! লকডাউনে ৩০০ নিমন্ত্রিতকে খাইয়ে ফাঁপরে বরপক্ষ, মামলা রুজু

প্রতীকী ছবি

বিয়ের শেষে বর বাবাজী আর তাঁর কাকার বিরুদ্ধে মামলা রুজু করেছে নিশ্চিন্দা থানার পুলিশ ।

  • Share this:

#হাওড়া: লকডাউন তাতে কি ! একমাত্র ছেলের বিয়ে বলে কথা । দল বেঁধে লোকজন আসবে, নব বধূকে আশীর্বাদ করবে, তারপর কব্জি ডুবিয়ে খাওয়াদাওয়া । এ সব না করলে চলে নাকি ? আর তারপর যদি এলাকার প্রভাবশালী হন, তাহলে তো কথাই নেই ।

ঠিকই তাই, বাধা হল না ঠিকই । তবে বিয়ের শেষে বর বাবাজী আর তাঁর কাকার বিরুদ্ধে অবশ্য মামলা রুজু করেছে নিশ্চিন্দা থানার পুলিশ । হাওড়ায়  করোনা পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপের দিকে যাচ্ছে । গত কয়েকদিনে রোজই শতাধিক সংক্রামিতের সন্ধান মিলছে । তা সত্ত্বেও হাওড়ার এই পরিবারের চূড়ান্ত উদাসীনতার ছবি সামনে এল রবিবার রাতে ।

হাওড়ার নিশ্চিন্দা থানা এলাকার কুমিল্যাপাড়ায় এক বৌভাতের অনুষ্ঠানে সামাজিক দূরত্ব থেকে জমায়েত-সব নিয়ম বিধি উড়িয়ে হাজির ছিলেন প্রায় শ'তিন  নিমন্ত্রিত অতিথি । লকডাউন চলাকালীন এই ধরনের সামাজিক অনুষ্ঠান এবং জমায়েত করতে হলে স্থানীয় থানার অনুমোদন নেওয়া বাধ্যতামূলক । তারপরও সর্বোচ্চ ৫০ জনের বেশি মানুষের জমায়েত করা যাবে না বলেই স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে সরকার । কিন্তু সেসব তোয়াক্কা না করে এ দিন কার্যত প্রশাসনের দোরগোড়ায় এই ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন হল । কব্জি ডুবিয়ে খাওয়াদাওয়া করলেন প্রায় ৩০০ নিমন্ত্রিত ।

অনুষ্ঠানের খবর পেয়ে এ দিন সকাল থেকে স্থানীয় বাসিন্দাদের অনেকেই আপত্তি জানান । এলাকার বিশিষ্টজনদের কাছেও জমায়েত বন্ধ করার আবেদন যায় । কিন্তু সে অনুষ্ঠান বন্ধ করবেন কে ? বার বার এলাকার প্রভাবশালীদের কাছে দরবার করে কাজের কাজ হয়নি । তবে একাধিক অভিযোগের পর রাতে ওই অনুষ্ঠানস্থলে যায় পুলিশ । অনুষ্ঠান বন্ধ না করে দিলেও আয়োজক পাত্রপক্ষের মোট তিনজন ও লজ মালিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে ।

নিশ্চিন্দা থানার এক পুলিশকর্তা বলেন, "আয়োজকদের বিরুদ্ধে আইনত যা ব্যবস্থা নেওয়ার,  তা নেওয়া হবে । বিপর্যয় মোকাবিলা আইনে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে । অভিযুক্তদের বাড়িতে বাড়িতে আইনি নোটিস চলে যাবে । পুলিশের দাবি, বিয়ে বাড়ির আয়োজকরা পুলিশের কাছে আবেদন জানালেও লিখিত কোনও অনুমতি দেওয়া হয়নি তাঁদের । এদিকে অভিযুক্ত তালিকায় থাকা লজ মালিকরে দাবি, অনেক অনুষ্ঠানের বুকিং বাতিল করে দিয়েছি । কিন্তু এই ক্ষেত্রে এলাকার বেশ কিছু রাজনৈতিক মানুষের চাপে লজ ভাড়া দিতে বাধ্য হয়েছিলাম । ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ ।

Debasish Chakraborty

Published by:Shubhagata Dey
First published: