করোনা ভাইরাস

corona virus btn
corona virus btn
Loading

একমাত্র ছেলের বিয়ে! লকডাউনে ৩০০ নিমন্ত্রিতকে খাইয়ে ফাঁপরে বরপক্ষ, মামলা রুজু

একমাত্র ছেলের বিয়ে! লকডাউনে ৩০০ নিমন্ত্রিতকে খাইয়ে ফাঁপরে বরপক্ষ, মামলা রুজু
প্রতীকী ছবি

বিয়ের শেষে বর বাবাজী আর তাঁর কাকার বিরুদ্ধে মামলা রুজু করেছে নিশ্চিন্দা থানার পুলিশ ।

  • Share this:

#হাওড়া: লকডাউন তাতে কি ! একমাত্র ছেলের বিয়ে বলে কথা । দল বেঁধে লোকজন আসবে, নব বধূকে আশীর্বাদ করবে, তারপর কব্জি ডুবিয়ে খাওয়াদাওয়া । এ সব না করলে চলে নাকি ? আর তারপর যদি এলাকার প্রভাবশালী হন, তাহলে তো কথাই নেই ।

ঠিকই তাই, বাধা হল না ঠিকই । তবে বিয়ের শেষে বর বাবাজী আর তাঁর কাকার বিরুদ্ধে অবশ্য মামলা রুজু করেছে নিশ্চিন্দা থানার পুলিশ । হাওড়ায়  করোনা পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপের দিকে যাচ্ছে । গত কয়েকদিনে রোজই শতাধিক সংক্রামিতের সন্ধান মিলছে । তা সত্ত্বেও হাওড়ার এই পরিবারের চূড়ান্ত উদাসীনতার ছবি সামনে এল রবিবার রাতে ।

হাওড়ার নিশ্চিন্দা থানা এলাকার কুমিল্যাপাড়ায় এক বৌভাতের অনুষ্ঠানে সামাজিক দূরত্ব থেকে জমায়েত-সব নিয়ম বিধি উড়িয়ে হাজির ছিলেন প্রায় শ'তিন  নিমন্ত্রিত অতিথি । লকডাউন চলাকালীন এই ধরনের সামাজিক অনুষ্ঠান এবং জমায়েত করতে হলে স্থানীয় থানার অনুমোদন নেওয়া বাধ্যতামূলক । তারপরও সর্বোচ্চ ৫০ জনের বেশি মানুষের জমায়েত করা যাবে না বলেই স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে সরকার । কিন্তু সেসব তোয়াক্কা না করে এ দিন কার্যত প্রশাসনের দোরগোড়ায় এই ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন হল । কব্জি ডুবিয়ে খাওয়াদাওয়া করলেন প্রায় ৩০০ নিমন্ত্রিত ।

অনুষ্ঠানের খবর পেয়ে এ দিন সকাল থেকে স্থানীয় বাসিন্দাদের অনেকেই আপত্তি জানান । এলাকার বিশিষ্টজনদের কাছেও জমায়েত বন্ধ করার আবেদন যায় । কিন্তু সে অনুষ্ঠান বন্ধ করবেন কে ? বার বার এলাকার প্রভাবশালীদের কাছে দরবার করে কাজের কাজ হয়নি । তবে একাধিক অভিযোগের পর রাতে ওই অনুষ্ঠানস্থলে যায় পুলিশ । অনুষ্ঠান বন্ধ না করে দিলেও আয়োজক পাত্রপক্ষের মোট তিনজন ও লজ মালিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে ।

নিশ্চিন্দা থানার এক পুলিশকর্তা বলেন, "আয়োজকদের বিরুদ্ধে আইনত যা ব্যবস্থা নেওয়ার,  তা নেওয়া হবে । বিপর্যয় মোকাবিলা আইনে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে । অভিযুক্তদের বাড়িতে বাড়িতে আইনি নোটিস চলে যাবে । পুলিশের দাবি, বিয়ে বাড়ির আয়োজকরা পুলিশের কাছে আবেদন জানালেও লিখিত কোনও অনুমতি দেওয়া হয়নি তাঁদের । এদিকে অভিযুক্ত তালিকায় থাকা লজ মালিকরে দাবি, অনেক অনুষ্ঠানের বুকিং বাতিল করে দিয়েছি । কিন্তু এই ক্ষেত্রে এলাকার বেশ কিছু রাজনৈতিক মানুষের চাপে লজ ভাড়া দিতে বাধ্য হয়েছিলাম । ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ ।

Debasish Chakraborty

Published by: Shubhagata Dey
First published: June 29, 2020, 9:03 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर