করোনা ভাইরাস

corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা ভাইরাস রুখতে টিকার আগে সঠিক চিকিৎসা আবিষ্কারে চূড়ান্ত আশাবাদী গবেষকরা

করোনা ভাইরাস রুখতে টিকার আগে সঠিক চিকিৎসা আবিষ্কারে চূড়ান্ত আশাবাদী গবেষকরা
representative image

গবেষকরাও বলছেন যে টিকার আগে এই ভাইরাসের সঠিক চিকিৎসা আবিষ্কার হতে পারে।

  • Share this:

#আমেরিকা: সারা বিশ্বে যেভাবে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে তা সত্যিই ভয়ের। এখনও পর্যন্ত করোনা ভাইরাসের সঠিক কোনও ট্রিটমেন্ট বা টিকা আবিষ্কার করা যায়নি। কিন্তু সারা বিশ্বের গবেষক ও চিকিটসকরা করোনা ভাইরাসের সঠিক চিকিৎসা আবিষ্কারের জন্য উঠে পড়ে লেগেছেন। করোনা ভাইরাসের ক্ষেত্রে সব থেকে আগে দরকার টেস্টের। তাহলেই ধরা পড়বে কারও শরীরে এই ভাইরাস আছে কিনা। যদি থাকে তখন কি চিকিৎসা হলে তাড়াতাড়ি মুক্তি পাওয়া যায় এই রোগ থেকে সেটাই সব থেকে বড় চ্যালেঞ্জ। গবেষকরা চেষ্টায় রয়েছেন এই ভাইরাসের টিকা আবিষ্কারের জন্য। কিন্তু সেটা করতে হলেও কম করে ১২ মাস সময় লাগতে পারে। এমনটাই দাবি ইউএস, এফডিএ কমিশনার স্টিফেন হনের।

গবেষকরাও বলছেন যে টিকার আগে এই ভাইরাসের সঠিক চিকিৎসা আবিষ্কার হতে পারে। কিন্তু ঠিক কি ট্রিটমেন্ট করা হতে পারে ? সে ক্ষেত্রে ইউএস তাদের আগে আবিষ্কার করা ট্রিটমেন্ট গুলোতে নজর দিচ্ছে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপস্থিতিতে একটি সাংবাদিক সম্মেলন হয়। সেখানে এফডিএ কমিশনার সেই সমস্ত ওষুধের ওপর ভরসা রাখছে যা আগে এই ধরনের রোগের জন্য আবিষ্কার করা হয়েছিল। তারা অনেকরকম থেরাপি নিয়েও ভাবছেন। রেসপিরাটরি সিন্ড্রমের ওপর এর আগেই কাজ করছিল এক সংস্থা। তারা করোনা ভাইরাস ও ইবোলা দুটো নিয়েই কাজ করছে। ইবোলার চিকিৎসার মতোই কঠিন এই ভাইরাসের চিকিৎসা। তারা একটি বিশেষ থেরাপির কথা বলছেন। Regeneron Pharmaceutical তাদের ওষুধ কেভযারা দিয়ে করোনার চিকিৎসা করতে চাইছেন। তারা ম্যালেরিয়ার জন্য ব্যবহৃত ওষুধকেও কাজে লাগাতে চাইছেন। ম্যালেরিয়ার দুটো ওষুধ আছে যা ব্যবহার করা যেতে পারে এই ভাইরাসে। কিন্তু বিষয়টা এখনও প্রমানিত নয়। তবে এই ওষুধ দিয়ে চিকিৎসা করার একটা চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে এই চিকিৎসা আবিষ্কারের জন্য অনেক ওষুধ খুব কম সময়ের মধ্যে প্রয়োজন। তবে গবেষকরা মনে করছেন তারা খুব তাড়াতাড়ি করোনা ভাইরাসের চিকিৎসা বার করতে সফল হবেন।

কিন্তু করোনার জন্য ভ্যাকসিন বা টিকা বার করতে বেশ কিছুটা সময় লাগবে। সাধারণত এই ধরণের ভাইরাসের টিকা আবিষ্কার করতে কম করে ৫ বছর সময় লেগে যেতে পারে। এর আগে ইবোলা ভাইরাসের সময় এই দীর্ঘ টিকা আবিষ্কারের পদ্ধতি সমস্যায় ফেলেছিল। তাই এখনই টিকার ওপর ওতটা ভরসা করা যাচ্ছে না। এছাড়াও নজর রাখা হচ্ছে টেসটিংয়ের ওপর। যদিও ইউকে সরকার বলেছেন তারা সব রকম ভাবে টেস্টিং কিটের জন্য সাহায্য করবেন। যদি এই কিট দিয়ে বোঝা যায় কারও শরীরে করোনা আছে কিনা। বা তার ইমিউনিটি ক্ষমতা কতটা। তবে সবটাই এখনও ধোয়াশার মধ্যে রয়েছে। যদিও এখন গবেষকরা মিলিত ভাবে রাত জেগে কাজ করছেন এই করোনা ভাইরাসের সঠিক চিকিৎসা বার করার জন্য। তাদের এটাও মাথায় রাখতে হচ্ছে তারা যে চিকিৎসাটা বার করতে চলেছেন তাতে মানুষের শরীরে কোনও নেগেটিভ প্রভাব না পড়ে। এখন অনেক কিছু মাথায় রেখেই কাজ করতে হচ্ছে। তবুও গবেষকরা চুড়ান্ত আশাবাদি, যে তারা করোনার সঠিক চিকিৎসা খুব তাড়াতাড়ি আবিষ্কার করতে পারবেন।

Published by: Piya Banerjee
First published: March 20, 2020, 11:42 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर