• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • করোনা সারাতে ফের এই অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার শুরু করতে পারে কেন্দ্র

করোনা সারাতে ফের এই অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার শুরু করতে পারে কেন্দ্র

Representative Image: Reuters

Representative Image: Reuters

অ্যাজিথ্রোমাইসিন ও হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের মিশ্রণে করোনা আক্রান্তের চিকিত্‍সায় এর আগে অনুমোদন দিয়েছিল ICMR৷ খুব শীঘ্রই হয়তো দুই ওষুধের ব্যবহারের নয়া প্রোটোকল আনতে চলেছে কেন্দ্র৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: করোনা ভাইরাসের নির্দিষ্ট ওষুধ নিয়ে এখনও অফিসিয়ালি কিছু জানানো হয়নি৷ তবে কিছু ওষুধে ভালো ফল পাওয়া যাচ্ছে৷ ফলে আশার আলো দেখে সেই ওষুধগুলি নিয়েই গবেষণা চালাচ্ছেন গবেষকরা৷ এ বার করোনা আক্রান্তের চিকিত্‍সার জন্য অ্যান্টিবায়োটিক অ্যাজিথ্রোমাইসিন ব্যবহারে ফের অনুমোদন দিতে চলেছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক৷

    করোনা ভাইরাস মহামারির শুরু থেকেই দুটি ওষুধ নিয়ে আলোচনা চলেছে৷ একটি হল হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন ও অপরটি অ্যাজিথ্রোমাইসিন৷ এই দুটি ওষুধের মিশ্রণে হাসপাতালে ভর্তি প্রবল ভাবে করোনা আক্রান্ত রোগীর ভালো ফল হয়েছে একাধিক ক্ষেত্রে৷ এই দুই ওষুধকেই মাস দুয়েক আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছিলেন, 'এই দুই ওষুধের মিশ্রণ মিরাকল ঘটাতে পারে৷ মার্কিন গবেষকরা দুটি ওষুধ নিয়ে গবেষণা করছেন৷'

    অ্যাজিথ্রোমাইসিন ও হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের মিশ্রণে করোনা আক্রান্তের চিকিত্‍সায় এর আগে অনুমোদন দিয়েছিল ICMR৷ খুব শীঘ্রই হয়তো দুই ওষুধের ব্যবহারের নয়া প্রোটোকল আনতে চলেছে কেন্দ্র৷

    AIIMS-এর মেডিসিন বিভাগের প্রধান চিকিত্‍সক নভীত উইগের কথায়, 'মাঝারি ও আশঙ্কাজনক রোগীর ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল অক্সিজেনেশন বা শরীরে অক্সিজেনের জোগান৷ অ্যান্টি-ভাইরালে করোনা ভাইরাস আক্রান্তে প্রয়োগ খুব একটা আশাজনক ফল মেলেনি৷ তবে অ্যাজিথ্রোমাইসিন ও হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের মিশ্রণের ফল নির্ভর করছে কেস-টু-কেস৷ তাই ওষুধ দুটির ব্যবহারের গাইডলাইন জরুরি৷'

    তাঁর বক্তব্য, প্রাথমিক ভাবে কিছু ক্ষেত্রে অ্যাজিথ্রোমাইসিন রোগীকে দেওয়া হয়েছিল, কারণ Covid-19 আক্রান্ত হওয়ার পরে কিছু রোগীর মধ্যে ব্যাক্টেরিয়া সংক্রমণের সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছিল৷ তবে বেশি জরুরি অক্সিজেনেশনের৷

    অ্যাজিথ্রোমাইসিন কী?

    অ্যাজিথ্রোমাইসিন হল একটি অ্যান্টিবায়োটিক৷ ব্যাক্টেরিয়া সংক্রমণ ঠেকাতে এটি ব্যবহার করা হয়৷ যেমন নিউমোনিয়া, কিছু যৌন মিলন বাহিনত রোগ, ব্রঙ্কাইটিস বা কান, গলা, ফুসফুসে কিছু সংক্রমণ ইত্যাদি৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল লাইব্রেরি অফ মেডিসিন জানিয়েছে, এই ওষুধ সর্দি-কাশির মতো ভাইরাল সংক্রমণজনীত অসুখে কাজ করে না৷ তবে প্রাথমিক ভাবে কিছু গবেষণায় দেখা গিয়েছিল, জিকা ও ইবোলার মতো ভাইরাসের বিরুদ্ধে ওষুধটি কাজ করছে৷

    Published by:Arindam Gupta
    First published: