Oxygen Crisis : কাতরাচ্ছেন করোনা আক্রান্ত বৃদ্ধা, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিল গুরুদ্বারের 'অক্সিজেন লঙ্গর'!

Oxygen Crisis : কাতরাচ্ছেন করোনা আক্রান্ত বৃদ্ধা, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিল গুরুদ্বারের 'অক্সিজেন লঙ্গর'!

আর্তের সেবায় গুরুদ্বার Photo : ANI

হাসপাতালের শয্যা, অক্সিজেনের জন্য কাতর আবেদন, আকুতি দিল্লির হাসপালগুলিতে। শুধুমাত্র অক্সিজেনের অভাবেই প্রতিদিন মারা যাচ্ছেন মানুষ।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি : সদ্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বছর সত্তরের বৃদ্ধা বিদ্যা দেবী। চরম শ্বাসকষ্ট। জায়গা মেলেনি শহরের কোনও হাসাপাতালে। এমনকী একটু অক্সিজেন পর্যন্ত কোথাও পাননি তাঁর পরিবার। তবে কী বিনা চিকিৎসায় ভুগবেন তিনি? অস্থির হয়েও কোনও সাহায্যের আশা প্রায় ছাড়তেই বসেছিল বিদ্যা দেবীর পরিবার। ঠিক সেই সময় প্রকৃত 'মসিহা' হয়ে এল দিল্লির অদূরে গাজিয়াবাদের ইন্দিরাপুরমের গুরুদ্বার। বাড়িয়ে দিল সাহায্যের হাত। বিদ্যা দেবীদের মত অক্সিজেনের অভাবে কাতরাতে থাকা রোগীদের জন্যই অভিনব পরিকল্পনায় অক্সিজেন লঙ্গর খুলেছেন তারা।

    গাজিয়াবাদের গুরুদ্বারের খালসা হেল্প ইন্টারন্যাশনালের সেই 'অক্সিজেন লঙ্গর' প্রাণবায়ু এনে দিল বৃদ্ধাকে। গুরুদ্বারের সামনে সার সার অক্সিজেন সিলিন্ডার। সেখান থেকে নল দিয়ে বিদ্যা দেবীদের মতো অসংখ্য কোভিড রোগীকে অক্সিজেন জোগানো হচ্ছে।

    আর্তের সেবায় গুরুদ্বার Photo : ANI আর্তের সেবায় গুরুদ্বার
    Photo : ANI

    করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ আর অক্সিজেনের অভাবে ত্রাহি রব উঠেছে রাজধানী দিল্লিতে। সংক্রমণের নিরিখে দ্বিতীয় স্থানে দিল্লি। হাসপাতালের শয্যা, অক্সিজেনের জন্য কাতর আবেদন, আকুতি দিল্লির হাসপালগুলিতে। শুধুমাত্র অক্সিজেনের অভাবেই প্রতিদিন মারা যাচ্ছেন মানুষ।

    এই পরিস্থিতিতে গত ৩ দিন ধরে গুরুদ্বারে অক্সিজেন লঙ্গর খুলেছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন খালসা হেল্প ইন্টারন্যাশনাল। গুরুদ্বারের প্রেসিডেন্ট, তথা সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা রাম্মি জানালেন, গত ৩ দিনে প্রায় ৭০০ রোগীকে অক্সিজেন জুগিয়ে বাঁচাতে পেরেছেন তাঁরা।

    গুরুদ্বারের 'অক্সিজেন লঙ্গর' গুরুদ্বারের 'অক্সিজেন লঙ্গর'

    নিজেদের উদ্যোগেই বিভিন্ন জায়গা থেকে অক্সিজেন কিনে আনছেন তাঁরা। তার পর গুরুদ্বারের সামনেই তা কোভিড রোগীদের দেওয়ার ব্যবস্থা করছেন। গাজিয়াবাদের এই গুরুদ্বারের সামনের রাস্তা এখন তাই হাসপাতাল ভেবে ভুল হতে পারে। তবে হাসপাতালের শয্যা পাতা নেই। বদলে গাড়ি, অটো, ট্যাক্সির মেলা। সেগুলোর আসনেই শুয়ে রয়েছেন কোভিড রোগী। সেখানেই অক্সিজেন জোগাচ্ছে গুরুদ্বার কমিটি।

    বিদ্যা দেবীর ছেলে মনোজ কুমার বললেন, "কোথাও একটু অক্সিজেন পাইনি। অক্সিজেন লঙ্গরের খবর পেয়ে গুরুদ্বারে ফোন করি। ওরা দ্রুত চলে আসতে বলে।" মনোজের মতো বহু মানুষ এসেছেন কোভিড আক্রান্ত আত্মীয়দের নিয়ে। রাম্মির আশ্বাস, "সবাই পাবেন অক্সিজেন। দয়া করে হুড়োহুড়ি করবেন না। রাস্তায় যানজট করবেন না।"

    আর্তের সেবায় দ্রুত পৌঁছতে একটি হেল্প লাইন নম্বরও চালু করা হয়েছে গুরুদ্বারের পক্ষ থেকে। দেশে অক্সিজেনের অভাব দূর করার জন্য যুদ্ধকালীন তৎপরতায় কাজ চলছে। ভারতীয় বায়ুসেনা বিমানে বড়বড় অক্সিজেন ট্যাঙ্কার এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ভারতীয় রেলও চালাচ্ছে অক্সিজেন এক্সপ্রেস। এরই পাশাপাশি গুরুদ্বারের এই উদ্যোগও প্রশংসার দাবি রাখে।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published:

    লেটেস্ট খবর