• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • ঘুরে দাঁড়াল চিনের অর্থনীতি, দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকেই বৃদ্ধির হার ৩.২ শতাংশ

ঘুরে দাঁড়াল চিনের অর্থনীতি, দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকেই বৃদ্ধির হার ৩.২ শতাংশ

ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য দেশগুলির সঙ্গে এতদিন চিনের বাণিজ্যিক সম্পর্ক যথেষ্ট ভালই ছিল৷ কিন্তু সম্প্রতি চিনের নানা কার্যকলাপে তাদের অনেকেরই দৃষ্টিভঙ্গি বদলেছে৷ এখন উল্টে চিনকে তারা নিজেদের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবেই দেখছে৷

ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য দেশগুলির সঙ্গে এতদিন চিনের বাণিজ্যিক সম্পর্ক যথেষ্ট ভালই ছিল৷ কিন্তু সম্প্রতি চিনের নানা কার্যকলাপে তাদের অনেকেরই দৃষ্টিভঙ্গি বদলেছে৷ এখন উল্টে চিনকে তারা নিজেদের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবেই দেখছে৷

চিনেই করোনা সংক্রমণ প্রথম মহামারির আকার ধারণ করেছিল৷ যা সামাল দিতে দেশজুড়ে শুরু হয় লকডাউন৷

  • Share this:

    #বেজিং: দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকেই ঘুরে দাঁড়াল চিনের অর্থনীতি৷ গোটা বিশ্ব যখন করোনা মহামারির জেরে তৈরি হওয়া আর্থিক মন্দা থেকে বেরিয়ে আসার পথ হাতড়ে বেড়াচ্ছে, তখন চিনা অর্থনীতি ঠিক বৃদ্ধির রাস্তায় প্রত্যাবর্তন ঘটিয়ে ফেলল৷

    জুন মাস পর্যন্ত চিনের জিডিপি-র হার গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ৩.২ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷ এ বছরের প্রথম তিন মাসে অবশ্য করোনার ধাক্কায় চিনের জিডিপি প্রায় ৬.৮ শতাংশ পড়ে গিয়েছিল৷ যদিও দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকেই তা সামলে উঠতে পেরেছে চিন৷ তবে গত বছরের তুলনায় প্রথম ছ' মাসে এখন চিনের গড় উৎপাদনের হার ১.৬ শতাংশ কম৷

    চিনেই করোনা সংক্রমণ প্রথম মহামারির আকার ধারণ করেছিল৷ যা সামাল দিতে দেশজুড়ে শুরু হয় লকডাউন৷ মারণ এই জীবাণুর সঙ্গে লড়াইয়ের ক্ষেত্রে গোটা বিশ্বকে পথ দেখানোর দাবি করছে চিন৷ তবে যেহেতু বিশ্বের অধিকাংশ দেশই এখনও আর্থিক মন্দার সঙ্গে লড়ছে এবং তার প্রভাব চিনের রফতানির উপরে পড়তে পারে, তাই এই বৃদ্ধির হার ধরে রাখা যাবে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন থাকছেই৷

    চিনের তরফে আর্থিক বৃদ্ধি নিয়ে যে তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে, তা খতিয়ে দেখে ম্যাকোয়ারি ব্যাঙ্ক লিমিটেডের চিনের মুখ্য অর্থনীতিবিদ ল্যারি হু জানিয়েছেন, দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে বৃদ্ধির হার আশাব্যঞ্জক হলেও অনেক ক্ষেত্রেই সামঞ্জস্যের অভাব রয়েছে৷ কারণ এখনও চাহিদার তুলনায় জোগান বেশি রয়েছে, বিনিয়োগের অনুপাতে বিক্রি কম হচ্ছে৷ তা সত্ত্বেও চলতি বছরের দ্বিতীয় অর্ধে চিনের জিডিপি বৃদ্ধির হার ৫ শতাংশে পৌঁছতে পারে বলে আশা প্রকাশ করেছেন ওই বিশেষজ্ঞ৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: