corona virus btn
corona virus btn
Loading

এক একটি পরীক্ষা কেন্দ্রে ৮০-১০০ জনের বেশি পরীক্ষার্থী নয়, করোনার জেরে বাড়ছে উচ্চমাধ্যমিকের পরীক্ষা কেন্দ্র

এক একটি পরীক্ষা কেন্দ্রে ৮০-১০০ জনের বেশি পরীক্ষার্থী নয়, করোনার জেরে বাড়ছে উচ্চমাধ্যমিকের পরীক্ষা কেন্দ্র

ছাত্র-ছাত্রীদের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে এবার পরীক্ষা কেন্দ্রের সংখ্যা বাড়ানোর দিকেই হাঁটছে রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতর।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা আবহে রাজ্যে হতে চলেছে উচ্চমাধ্যমিকের বাকি পরীক্ষাগুলো। তবে সেই পরীক্ষাগুলোতে ছাত্র-ছাত্রীদের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে এবার পরীক্ষা কেন্দ্রের সংখ্যা বাড়ানোর দিকেই হাঁটছে রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতর। মূলত এক একটি স্কুলে যাতে একাধিক ছাত্র-ছাত্রীর পরীক্ষার আসন না পারে তার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বলছে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদকে।

মঙ্গলবার সাংবাদিক সম্মেলন করে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন "সামাজিক দূরত্ব বিধির নিয়ম মানার জন্যই উচ্চমাধ্যমিকের বাকি পরীক্ষাগুলোতে একাধিক নিয়ম বিধি করা হচ্ছে।বাকি পরীক্ষাগুলো জন্য রাজ্যের ২৫০০ পরীক্ষাকেন্দ্র নেওয়া হবে। এক-একটি পরীক্ষা কেন্দ্রে ৮০ থেকে ১০০ জনের বেশি পরীক্ষা দেবে না।" মূলত একেকটি পরীক্ষা কেন্দ্রে একাধিক স্কুলের আসেন পড়ে। শুধু তাই নয় একেকটি পরীক্ষাকেন্দ্রে আবার একই সঙ্গে ২০০ থেকে ৩০০ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে যায়। সেক্ষেত্রে পরীক্ষার্থীদের মধ্যে সোশ্যাল ডিসটেন্স মানা সম্ভব হবে না। তার জেরেই পরীক্ষা কেন্দ্র পিছু পরীক্ষার্থীদের সংখ্যা কমানো হচ্ছে বলেই মনে করা হচ্ছে।

মঙ্গলবারই সাংবাদিক সম্মেলন করে উচ্চমাধ্যমিকের বাকি পরীক্ষাগুলো সূচি ঘোষণা করেছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। আগামী ২৯শে জুন,২রা ও ৬ই জুলাই নেওয়া হবে উচ্চমাধ্যমিকের বাকি পরীক্ষাগুলো। তবে এই পরীক্ষার দিনগুলোকে আপাতত সম্ভাব্য দিন হিসেবেই ব্যাখ্যা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। যদিও কোন দিনে কি পরীক্ষা নেওয়া হবে তা উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ বিজ্ঞপ্তি আকারে জানাবে বলে জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রী।

উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ সূত্রে খবর বৃহস্পতিবার এই বিষয় নিয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশ বা বিজ্ঞপ্তি জারি করতে পারে। সে ক্ষেত্রে পরীক্ষা কেন্দ্র গুলির জন্য একাধিক নিয়মবিধি জারি করা হবে। তবে একেকটি পরীক্ষা কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা কমার জেরে বহু পরীক্ষা কেন্দ্রের রদবদল করতে হতে পারে বলেই মনে করছে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ। সে ক্ষেত্রে একাধিক স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের অন্যান্য পরীক্ষা কেন্দ্র গুলোতে পরীক্ষা দিতে হতে পারে। মূলত পরীক্ষা চলাকালীন করোনা সংক্রমণ আটকাতে এই পদক্ষেপগুলি নেওয়া হতে পারে বলেই সংসদ সূত্রে খবর। মঙ্গলবার পরীক্ষার সূচি ঘোষণা হলেও এখনো দেড় মাসেরও বেশি সময় রয়েছে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের হাতে। ফলতো এই সময়সীমার মধ্যে নতুন নতুন পরীক্ষাকেন্দ্র খুঁজে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব বলেই জানাচ্ছে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ।

উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ সূত্রে জানা গিয়েছে, যে তিন দিনের পরীক্ষা বাকি রয়েছে তার পরীক্ষার্থীর সংখ্যা পুরনো সূচি অনুযায়ী যথাক্রমে ২লক্ষ ৯ হাজার,২লক্ষ ১৬ হাজার ও ২ লক্ষ ৪৪হাজার। এই বিপুল সংখ্যক ছাত্র ছাত্রীদের পরীক্ষা নিতে হলে একাধিক সুরক্ষা বিধি মেনে চলা উচিত বলেই মনে করছেন স্কুল শিক্ষা দফতর। তাই পরীক্ষা কেন্দ্রের সংখ্যা বাড়ানো এবং এক একটি পরীক্ষা কেন্দ্র পিছু ছাত্র ছাত্রীদের সংখ্যা কমানোর প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

তবে ছাত্র-ছাত্রীদের পরীক্ষা কেন্দ্র বদল হলে স্কুল মারফত জানানো হবে বলেই জানা গেছে। যদিও এই বিষয় নিয়ে চূড়ান্তভাবে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের তরফেই গাইডলাইন দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে শিক্ষকদের জন্য বিশেষভাবে গাইডলাইন দেওয়া হবে। শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন " উচ্চ মাধ্যমিক এর সম্ভাব্য পরীক্ষা সূচি মুখ্যমন্ত্রীর অনুমোদন নিয়েই জানানো হয়েছে।"

Somraj Bandopadhyay

Published by: Elina Datta
First published: May 19, 2020, 11:13 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर