corona virus btn
corona virus btn
Loading

Doctor's Day| করোনা যোদ্ধাদের পাশে দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক, সংবর্ধিত করলেন স্বাস্থ্যকর্মীদের

Doctor's Day| করোনা যোদ্ধাদের পাশে দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক, সংবর্ধিত করলেন স্বাস্থ্যকর্মীদের

আজ ডক্টর্স ডে! বাংলার রূপকার বিধান চন্দ্র রায়ের জন্ম ও মৃত্যু দিন। যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে দিনটি পালন করা হয় সর্বত্রই।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: আজ ডক্টর্স ডে! বাংলার রূপকার বিধান চন্দ্র রায়ের জন্ম ও মৃত্যু দিন। যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে দিনটি পালন করা হয় সর্বত্রই। তবে শিলিগুড়িতে একটু অন্যভাবে উদযাপিত হল দিনটি।

দেশজুড়েই থাবা বসিয়েছে মারণ করোনা ভাইরাস। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এখনও পর্যন্ত কোনও টিকা আবিষ্কার হয়নি। একেবারে সামনের সারিতে দাঁড়িয়ে, জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে আসছেন চিকিৎসক, নার্স, প্যারা মেডিকেল স্টাফ-সহ স্বাস্থ্যকর্মীরা। এমনকি বহু জায়গায় বাধার মুখেও পড়তে হয়েছে বহু  স্বাস্থ্যকর্মীকে। এমন এক পরিস্থিতিতে যারা লড়ছেন তারাই তো আসল করোনা যোদ্ধা। ডক্ট্রর্স ডে'তে ওদের সঙ্গেই কাটালেন দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক এস পুন্নমবালাম। যোদ্ধাদের উৎসাহিত করতে। ওদের মনোবল চাঙ্গা করতে।

শিলিগুড়িতে এই মূহূর্তে আক্রান্তের গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী। শিলিগুড়ি-সহ সংলগ্ন একাধিক জেলার আক্রান্তদেরও চিকিৎসা হচ্ছে এখানে। এক থেকে বাড়িয়ে কোভিড স্পেশাল হাসপাতালের সংখ্যা দুই করা হয়েছে। আজ কাওয়াখালির ডিসান কোভিড হাসপাতালে করোনা চিকিৎসায় কর্তব্যরতদের পাশে দাঁড়ালেন জেলাশাসক।

জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা পাঁচশো ছুঁই ছুঁই! এর মধ্যে সুস্থ হয়ে ফিরেছেন অনেকেই। সুস্থতার হার ৬০ থেকে ৬৫ শতাংশ। মৃত্যুও হচ্ছে। তবে শুধু কোভিড আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা কম। অন্যান্য একাধিক রোগের সঙ্গে করোনা সংক্রমণ হওয়া মৃত্যুর সংখ্যাটা বেশী। কিছু কিছু ক্ষেত্রে চিকিৎসার সময় পর্যন্ত পাচ্ছেন বা চিকিৎসকেরা। একেবারে সংকটকালে ভর্তি করা হচ্ছে। তবু প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন চিকিৎসকরা।

আজ বিশেষ দিনে কাওয়াখালির কোভিড হাসপাতালে করোনা যোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেওয়া হল। পুষ্পস্তবক এবং স্মারক উপহার তুলে দিলেন জেলাশাসক-সহ স্বাস্থ্য দফতরের পদস্থ আধিকারিকেরা। লড়াই এখনও বাকি। তাই চিকিৎসকদের উৎসাহিত করে তুলতেই জেলা প্রশাসনের এই প্রয়াস। জেলাশাসক জানান, প্রতিদিনই আক্রান্তেরা ভর্তি হচ্ছেন। তেমনি সুস্থ হয়েও ঘরে ফিরে যাচ্ছেন। তবে এখন চিকিৎসা ব্যবস্থা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসেছে। করোনা চিকিৎসায় কর্তব্যরতদের মধ্যে কয়েকজন জানান, এই সংবর্ধনা বাড়তি অক্সিজেন জোগাল। কাজে আরও বাড়তি অনুপ্রেরণা এনে দিল। আবার দায়িত্বও বাড়িয়ে দিল।

Partha Sarkar

Published by: Shubhagata Dey
First published: July 1, 2020, 7:23 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर