Coronavirus: পজিটিভ রোগীর চোখের জল থেকেও করোনায় সংক্রমণের সম্ভাবনা রয়েছে, বলছে সমীক্ষা!

Covid Positive Patients: সরকারি মেডিক্যাল কলেজের সমীক্ষার ফলাফল এই বিষয়ে সিলমোহর দিয়েছে।

Covid Positive Patients: সরকারি মেডিক্যাল কলেজের সমীক্ষার ফলাফল এই বিষয়ে সিলমোহর দিয়েছে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: কোভিড ১৯ (COVID-19) ভাইরাসে সংক্রমিত হলে যে সব উপসর্গ দেখা যায়, তার মধ্যে চোখের অসুখে আক্রান্ত হওয়ার কথা অনেক দিন ধরেই বলে চলেছেন বিশ্ব জুড়ে চিকিৎসকরা। এর মধ্যে চোখ লাল হয়ে যাওয়া বা কনজাঙ্কটিভাইটিসের মতো খুব সাধারণ লক্ষণও ছিল। কিন্তু করোনা পজিটিভ রোগীর চোখের জল (Covid-19 by Tears) যে অন্যের সংক্রমণের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে, সেই বিস্ফোরক তথ্য এবার এল প্রকাশ্যে। সরকারি মেডিক্যাল কলেজের সমীক্ষার ফলাফল এই বিষয়ে সিলমোহর দিয়েছে।

জানা গিয়েছে যে করোনা পজিটিভ রোগীর চোখের জল নিয়ে এই সমীক্ষাটি পরিচালিত হয়েছিল পঞ্জাবের অমৃতসরের এক সরকারি মেডিক্যাল কলেজে। সেখানে গবেষণার জন্য বেছে নেওয়া হয়েছিল ১২০ জন করোনা পজিটিভ রোগীকে। টাইমস অফ ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে এই বিষয়ে জরুরি তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। সেই প্রতিবেদনের বক্তব্য- গবেষণার অন্তর্গত ১২০ জন করোনা পজিটিভ রোগীর মধ্যে ৬০ জনের ক্ষেত্রে চোখের জলের মাধ্যমে অন্যদের সংক্রমিত হওয়ার ঘটনা চোখে পড়েছে, বাকি ৬০ জনের ক্ষেত্রে তা আবার ধরা পড়েনি। এই ১২০ জন করোনা পজিটিভ রোগীর মধ্যে ৪১ জনের ক্ষেত্রে কনজাক্টিভাল হাইপারমিয়া, ৩৮ জনের ক্ষেত্রে ফলিকুলার রিয়্যাকশন, ৩৫ জনের ক্ষেত্রে কেমোসিস, ২০ জনের ক্ষেত্রে মিউকয়েড ডিসচার্জ এবং ১১ জনের ক্ষেত্রে চোখে চুলকানির মতো সমস্যার অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া গিয়েছে। সমীক্ষায় অন্তর্ভুক্ত করোনা পজিটিভ রোগীদের মধ্যে ৩৭ শতাংশের ক্ষেত্রে কোভিড ১৯-এর মাঝারি উপসর্গ চোখে পড়লেও বাকি ৬৩ শতাংশ গুরুতর উপসর্গে আক্রান্ত ছিলেন বলে জানা গিয়েছে।

অমৃতসরের সরকারি মেডিক্যাল কলেজের এই সমীক্ষায় আরও জানা গিয়েছে যে গবেষণার অন্তর্ভুক্ত এই ১২০ জন করোনা পজিটিভ রোগীর মধ্যে ১৭.৫ শতাংশের চোখের RT-PCR টেস্ট করা হয়েছিল, এঁরা সবাই কোভিড ১৯ ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছিল। এঁদের মধ্যে আবার ১১ জনের চোখের অসুখের উপসর্গ দেখা গেলেও ১০ জন ছিলেন উপসর্গহীন। সব মিলিয়ে অমৃতসরের মেডিক্যাল কলেজের গবেষকরা এই সিদ্ধান্তে এসেছেন যে করোনা পজিটিভ রোগীর চোখের জল থেকেও অন্যেরা সংক্রমিত হতে পারেন। যদিও এই ভাইরাস সংক্রমণের মূল মাধ্যম যে শ্বাস-প্রশ্বাস, সেটাও তাঁরা উল্লেখ করতে ভোলেননি।

Published by:Ananya Chakraborty
First published: