Coronavirus Vaccination: রাশিয়া বনাম ভারত, বিদেশি বনাম দেশি স্পুটনিক-ভি টিকার তুলনামূলক পরীক্ষা কলকাতায় 

প্রতীকী ছবি৷

কোভ্যাক্সিন (Covaxin) ও কোভিশিল্ড-এর (Covishield) পাশাপাশি রাশিয়ার ভ্যাকসিন স্পুটনিক ভি-ও (Sputnik V) দেওয়া হচ্ছে দেশের বহু জায়গায়৷ তবে তার পরিমাণ নেহাতই কম। কারণ এই ভ্যাকসিন এখনও পর্যন্ত বিদেশ থেকেই আমদানি করা হচ্ছে৷

  • Share this:

#কলকাতা: রাশিয়ার তৈরি স্পুটনিক ভি ভ্যাকসিনের তুলনায় ভারতে তৈরি স্পুটনিক ভি ভ্যাকসিন কতটা কার্যকরী? তারই তুলনামূলক পরীক্ষা এবার কলকাতায়।২৩ জুন থেকে পিয়ারলেস হাসপাতালে শুরু হচ্ছে দেশে তৈরি স্পুটনিক ভি এবং আমদানি করা স্পুটনিক ভি ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ।

করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কায় গোটা দেশ। তার মধ্যেই চলছে দ্রুত টিকাকরণ। যত দ্রুত সম্ভব টিকাকরণের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে চাইছে সব রাজ্যই। তবে বাধ সাধছে টিকার আকাল। কোভ্যাক্সিন ও কোভিশিল্ড-এর পাশাপাশি রাশিয়ার ভ্যাকসিন স্পুটনিক ভি-ও দেওয়া হচ্ছে দেশের বহু জায়গায়৷ তবে তার পরিমাণ নেহাতই কম। কারণ এই ভ্যাকসিন এখনও পর্যন্ত বিদেশ থেকেই আমদানি করা হচ্ছে৷

এবার ভারতে তৈরি স্পুটনিক ভি-এর সঙ্গে রাশিয়ায় তৈরি স্পুটনিক ভি-এর তুলনামূলক পরীক্ষা শুরু হল দেশ জুড়ে। দেশের বেশ কিছু হাসপাতালকে বেছে নেওয়া হয়েছে এই পরীক্ষার জন্য৷ যার মধ্যে অন্যতম কলকাতার পিয়ারলেস হাসপাতাল। ২৩ জুন থেকে বাইপাসের ধারের এই বেসরকারি হাসপাতালে চলবে তুলনামূলক পরীক্ষা ৷যেখানে প্রথমদিন অংশ নেবেন ৩০ জন স্বেচ্ছাসেবক। তাঁদের প্রত্যেকের শারীরিক পরীক্ষা করার পর দেওয়া হবে স্পুটনিক ভি টিকা। কেউ পাবেন ভারতে তৈরি স্পুটনিক। কেউ পাবেন রাশিয়ায় তৈরি স্পুটনিক। যাঁরা এখনও পর্যন্ত কোনও করোনা ভ্যাকসিন নেননি এবং কো-মরবিডিটি নেই এমন করোনা নেগেটিভ মানুষই স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে এই ট্রায়ালে অংশ নিতে পারবেন।

গোটা দেশের ১০টি কেন্দ্রে মোট ২৮৮ জনের উপর এই পরীক্ষা করা হবে।হায়দ্রাবাদে তৈরি ভারতীয় স্পুটনিক ভি রাশিয়ায় তৈরি স্পুটনিক ভি- এর মতোই সমান কার্যকরী কিনা, তা দেখা হবে এই তুলনামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে।

হায়দ্রাবাদের হেটেরো ল্যাব-এর মেডিক্যাল ডিরেক্টর শুভদীপ সিনহা জানান, 'এই পরীক্ষায় সাফল্য পাওয়া গেলে রাশিয়া থেকে ভ্যাকসিন না আনিয়ে দেশেই তৈরি করা যাবে স্পুটনিক ভি। যার খরচও কম হবে এবং বিপুল পরিমাণে তৈরি করার ফলে আরও অনেক বেশি সংখ্যক মানুষকে দ্রুত টিকা দেওয়া সম্ভব হবে৷'

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ইতিমধ্যেই জানিয়েছেন দেশের সাতটি ল্যাবরেটরি বিভিন্ন রকম করোনা ভ্যাকসিন তৈরি করছে এবং এক বছরের মধ্যেই ভারত তার নিজস্ব ভ্যাকসিন তৈরিতে সক্ষম হয়েছে। ২১ জুন একদিনে দেশে ৮০ লক্ষেরও বেশি মানুষকে টিকা দেওয়া হয়েছে। যা এখনও পর্যন্ত রেকর্ড।

পিয়ারলেস হাসপাতালের ক্লিনিকাল রিসার্চ বিভাগের ডিরেক্টর শুভ্রজ্যোতি ভৌমিক জানান, 'কলকাতাতে এই ট্রায়াল হওয়ার ফলে আরও অনেক মানুষকে টিকা নিতে উৎসাহিত করা যাবে। যা আক্ষরিক অর্থেই আমাদের রাজ্যের মানুষের জন্য অনেক বেশি সুবিধার।'

প্রসঙ্গত, পিয়ারলেস হাসপাতালে রাশিয়ান স্পুটনিক ভি-এর তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালও হয়েছিল। এখন ভারতে তৈরি স্পুটনিক ভি রাশিয়ার ভ্যাকসিনের মতোই কাজ করে কিনা সেদিকেই তাকিয়ে চিকিৎসক মহল।

Pracheta Panja

Published by:Debamoy Ghosh
First published: