করোনা ভাইরাসের জন্য শাহিনবাগ ও জামিয়া-মিলিয়ার ধরনা তুলে নিতে অনুরোধ জাভেদ আখতারের

করোনা ভাইরাসের জন্য শাহিনবাগ ও জামিয়া-মিলিয়ার ধরনা তুলে নিতে অনুরোধ জাভেদ আখতারের
photo source collected

তিনি তাঁর ট্যুইটার হ্যান্ডেলে একটি ভিডিও পোস্ট করেন। যেখানে তিনি হাত জোর করে সকলের কাছে আবেদন করেন এই ভাইরাসের মোকাবিলা করার জন্য।

  • Share this:

#মুম্বই: করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইতে নেমেছে গোটা বিশ্ব। চিনের ছোট্ট শহর থেকে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভয়ানক ভাইরাস। হাজার মানুষের প্রাণ কেড়ে নিচ্ছে করোনা। যুদ্ধকালীন পরিস্থিতি এখন সারা বিশ্বে। ভারতবর্ষেও এই ভাইরাস হানা দিয়েছে। ইতিমধ্যে বেশ কিছু মানুষ এই ভাইরাসের কবলে। প্রাণও কাড়তে শুরু করেছে করোনা। এই অবস্থায় দাঁড়িয়ে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্য সরকাররা মিলিত ভাবে চেষ্টা চালাচ্ছে করোনা ভাইরাসকে প্রতোরোধ করতে। তার জন্য সবচেয়ে আগে যেটা দরকার তা হল হোম কোয়ারেন্টাইন। মাস্ক ব্যবহার। স্যানিটাইজার ব্যবহার। বাইরে একেবারেই না যাওয়া। সোশ্যাল জমায়েত বা যেকোনও ধরণের জমায়েত এরিয়ে যাওয়া। কিন্তু এই ভয়ানক ভাইরাসের হামলাও শাহিনবাগের জমায়েত ভাঙতে পারেনি। জামিয়া মিলিয়ার জমায়েত ভাঙতে পারেনি। এখনও নিজেদের দাবি নিয়ে মানুষ আন্দোলন করছে। বার বার বলা সত্ত্বেও কাজ হচ্ছে না।

করোনা ভাইরাস নিয়ে মানুষকে সর্তক করার কাজে বলিউডের শাহরুখ খান থেকে অক্ষয় কুমার সকলেই হাত মিলিয়েছেন। নিজেদের মতো করে বার্তা দিয়েছেন। এবার সেই কাজে নিজেকে যোগ করলেন জাভেদ আখতার। তবে তিনি শুধু দেশের সব মানুষকেই নয়, বিশেষত শাহিনবাগ ও জামিয়া-মিলিয়ার ছাত্রদের উদ্দেশ্যে বার্তা দিলেন। তিনি তাঁর ট্যুইটার হ্যান্ডেলে একটি ভিডিও পোস্ট করেন। যেখানে তিনি হাত জোর করে সকলের কাছে আবেদন করেন এই ভাইরাসের মোকাবিলা করার জন্য। সকলকে সরকারের কথা মানতে বলেন। শাহিনবাগ ও জামিয়া-মিলিয়ায় যারা ধরনায় বসেছেন তাদেরকে তিনি অনুরোধ করে বলেন, " এই সময় আপনারা দয়াকরে ধরনা তুলে নিন। আপনাদের সকলের যা যা দাবি সব নিয়ে পরেও আলোচনা করা যেতে পারে। কিন্তু এখন সব থেকে বেশি জরুরি করোনা ভাইরাসকে ছড়ানো থেকে আটকানো। আর তারজন্য দরকার জমায়েত বন্ধ করা। আপনারা দয়া করে এই সময়টায় ধরনা তুলে নিন। সরকারের কথা শুনুন। করোনা ভাইরাস থেকে আগে নিজেদের এবং দেশকে রক্ষা করাই আমাদের প্রথম কর্তব্য।"

First published: March 21, 2020, 9:19 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर