করোনা হাসপাতালে বসেই দেদার মদ্যপান, ভাইরাল ভিডিও! তদন্তের নির্দেশ ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর

করোনা হাসপাতালে বসেই দেদার মদ্যপান, ভাইরাল ভিডিও! তদন্তের নির্দেশ ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর

Photo- Twitter/ Video Grab

হাসপাতালে বসে মদ্যপান, দেদার খাওয়া-দাওয়া অভিযুক্তর! ঘটনার ভিডিও দেখে চোখ কপালে নেটিজেনদের, নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন!

  • Share this:

    #ধানবাদ: অপহরণের অভিযোগে ধৃত এক ব্যক্তি, যাঁকে গ্রেফতারের পর রাখা হয়েছিল কোভিড ওয়ার্ডে, এবার ভাইরাল হল তারই 'মোচ্ছব'-এর ভিডিও!  সান্টু গুপ্তা নামের সেই অভিযুক্তর যে ভিডিও দেখা যাচ্ছে তা দেখে তাজ্জব হতে হয়৷

    অভিযুক্তর এক হাতে ঝুলছে হ্যান্ডকাফ বা হাতকড়া, সামনে থরেথরে সাজানো খাদ্য৷ শুধু নানাবিধ খাদ্যের সম্ভার নিয়েই সে বসে নেই, রয়েছে মদের বোতলও ৷ সেই বোতল থেকে মদ খেতে খেতেই ভিডিও করছে খোদ অভিযুক্ত৷ আর যেখানে ভিডিওটি শ্যুট হয়েছে সেটা যে একটি হাসপাতাল সেটাও বোঝার অপেক্ষা রাখে না৷

    সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার হতেই ভিডিওটি ভাইরাল। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে ধানবাদের Bharat Coking Coal Limited (BCCL)-এর হাসপাতালে বসে মদ খাচ্ছে অপহরণ কাণ্ডে অভিযুক্ত ৩০ বছরের সান্টু গুপ্তা ৷ যে খাবারগুলি রয়েছে সেগুলি মোটেই থালায় দেওয়া খাবার নয়, একেবারে ফয়েল প্যাকে যেভাবে হোটেলের খাবার আসে সেভাবেই রাখা ছিল ৷ ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন ৷ झारखण्ड के धनबाद कोविड-19 अस्पताल से तस्वीर वायरल हो रही है।युवक की हाथ में हथकड़ी लगा हुआ है,शराब का सेवन भी कर रहा है। शुक्रवार को कतरास पुलिस ने गिरफ्तार किया था और कोरोना संक्रमित पाया गया था। शराब के साथ खूब मौज कर रहा है कोरोना मरीज। शराब कैसे पहुंच गया ?@HemantSorenJMM pic.twitter.com/CQyuXvdkLC

    ঝাড়খণ্ডের কোভিড হাসপাতালে নিরাপত্তা ব্যবস্থা একেবারে নেই বলেই এই ছবিগুলি ভাইরাল হয়েছে৷  তারওপর  এই ধরণের ঘটনা ঘটিয়েছেন একজন অপরাধী...সব মিলিয়ে ভাইরাল হওয়া এই ছবি -ভিডিও নিয়ে রীতিমতো শোরগোল৷

    Photo Courtesy: Twitter @itssuniltiwari) Photo Courtesy: Twitter @itssuniltiwari)

    ধানবাদ পুলিশ স্বীকার করে নিয়েছে সান্টু গুপ্তা - শিব কলোনি কাতরাসের বাসিন্দা৷ এক বয়স্ক দম্পতিকে অপহরণ করার অভিযোগে এফআইআর দায়ের হয়েছে তার বিরুদ্ধে৷ এর আগেও তার বিরুদ্ধে ইভটিজিংয়ের অভিযোগ রয়েছে৷ এই অপরাধীর স্যাম্পেল পজিটিভ আসার পর তাকে  বিসিসিএল-র কোভিড ওয়ার্ডে ট্রান্সফার করা হয়৷

    হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে কীভাবে ওই অপরাধী এই ধরনের খাবার ও পানীয় পেল  তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷ তাঁদের দাবি,  হাসপাতালে নিরাপত্তা ব্যবস্থা বজ্র কঠিন৷ ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী ডেপুটি কমিশনার উমাশঙ্কর সিংকে ঘটনাটি খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন৷ কী করে একজন অপরাধী এইভাবে আইনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে এ'ধরনের কাজ করল, তা তদন্ত করে দেখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷

    Published by:Debalina Datta
    First published: