করোনা আক্রান্ত হয়ে ১২ দিনে মৃত্যু একই পরিবারের ৪ জনের, পড়ে রইল ৬ ও ৮ বছরের দুই শিশু!

একজনের বয়স ৬ বছর এবং আরেকজন বছর আটেকের । বাবা-মা, দাদু-ঠাকুমাকে হারিয়ে এখন অনাথ এই দুই শিশুকন্যা ।

একজনের বয়স ৬ বছর এবং আরেকজন বছর আটেকের । বাবা-মা, দাদু-ঠাকুমাকে হারিয়ে এখন অনাথ এই দুই শিশুকন্যা ।

  • Share this:

    #গাজিয়াবাদ: গোটা দেশ জুড়ে ভয়াবহ পরিস্থিতি চলছে । করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে টালমাটাল ভারত । চারিদিকে যন্ত্রণা, মৃত্যু, হাহাকার । একের পর এক হৃদয়বিদারক, যন্ত্রণাময়, বুকফাটা ছবি উঠে আসছে সংবাদ মাধ্যমের পাতায় । এমনই এক ঘটনার সাক্ষী থাকল উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদ ।

    মাত্র ১২ দিন, তার মধ্যেই তছনছ হয়ে গেল গোটা একটা পরিবার । একই পরিবার চার জন সদস্যের মৃত্যু হল দু’সপ্তাহের মধ্যে । ছোট্ট ছোট্ট দুই শিশু অনাথ হয়ে গেল । তাদের একজনের বয়স ৬ বছর এবং আরেকজন বছর আটেকের । বাবা-মা, দাদু-ঠাকুমাকে হারিয়ে এখন অনাথ এই দুই শিশুকন্যা ।

    ওই পরিবারের বয়ঃজ্যেষ্ঠ্য সদস্য, শিশু দু’টির দাদু দুর্গেশ প্রসা সবার প্রথমে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন । প্রাক্তন স্কুল শিক্ষক দুর্গেশ বিভিন্ন সমাজসেবামূলক কাজের সঙ্গে জড়িত ছিলেন । গত মাসের শেষের দিকে করোনায় আক্রান্ত হন তিনি । রিপোর্ট পজিটিভ আসতেই চিকিৎসকদের পরামর্শ মতো ওষুধ খাওয়া শুরু করেন দুর্গেশবাবু । নিভৃতবাসেই ছিলেন তিনি ।

    কিন্চতু হঠাৎ করেই তাঁর অবস্থার অবনতি হয় । বাড়িতেই মৃত্যু হয় তাঁর । গত ২৭ এপ্রিল এই ঘটনা ঘটে । এর সপ্তাহ খানেক মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান দুর্গেশবাবুর ছেলেও। এর কিছুদিনের মধ্যেই একে একে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় দুর্গেশবাবুর স্ত্রী ও পুত্রবধূরও । দুই শিশু সন্তান একেবারে অনাথ হয়ে পড়ে । চোখের সামনে পরিবারের সকলকে মারা যেতে দেখে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে ওই দুই শিশু । তাদের নিজের বাড়িতে এনে রেখেছেন তাদের মাসি । মাসির বাড়ি উত্তরপ্রদেশের বরেলিতে ।

    Published by:Simli Raha
    First published: