• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • করোনা থাবায় রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাঙ্কের শাখা বন্ধ মালদহে, সমস্যায় ৬৫ হাজার গ্রাহক

করোনা থাবায় রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাঙ্কের শাখা বন্ধ মালদহে, সমস্যায় ৬৫ হাজার গ্রাহক

আপনার যদি অগাস্ট মাসে এমন কোনও কাজ থাকে, যার জন্য আপনাকে ব্যাঙ্কে যেতে হতে পারে তবে আপনার জন্য অতন্ত্য গুরুত্বপূর্ণ খবর। লকডাউনে সমস্ত ব্যাঙ্ক খোলা থাকলেও ব্যাঙ্কগুলির কাজের সময়ে বেশ কিছু পরিবর্তন করা হয়েছিল। আনলক জারি হওয়ার পর থেকেই পূর্ব নির্ধারিত সময়েই খুলছে সমস্ত ব্যাঙ্কের শাখা। অগাস্ট মাসে ব্যাঙ্কের কতদিন ছুটি থাকবে তা ঘোষণা করল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। অগাস্ট মাসে শনিবার, রবিবার এবং বিভিন্ন ছুটির দিন গুলি ধরে মোট ১৩ দিন বন্ধ থাকবে সমস্ত সরকারি এবং বেসরকারি ব্যাঙ্ক।

আপনার যদি অগাস্ট মাসে এমন কোনও কাজ থাকে, যার জন্য আপনাকে ব্যাঙ্কে যেতে হতে পারে তবে আপনার জন্য অতন্ত্য গুরুত্বপূর্ণ খবর। লকডাউনে সমস্ত ব্যাঙ্ক খোলা থাকলেও ব্যাঙ্কগুলির কাজের সময়ে বেশ কিছু পরিবর্তন করা হয়েছিল। আনলক জারি হওয়ার পর থেকেই পূর্ব নির্ধারিত সময়েই খুলছে সমস্ত ব্যাঙ্কের শাখা। অগাস্ট মাসে ব্যাঙ্কের কতদিন ছুটি থাকবে তা ঘোষণা করল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। অগাস্ট মাসে শনিবার, রবিবার এবং বিভিন্ন ছুটির দিন গুলি ধরে মোট ১৩ দিন বন্ধ থাকবে সমস্ত সরকারি এবং বেসরকারি ব্যাঙ্ক।

ব্যাঙ্কের ১৫ জন কর্মীর মধ্যে ১৩ জনই করোনা আক্রান্ত।

  • Share this:

#মালদহ: করোনা থাবায় এবার ব্যাঙ্ক বন্ধ মালদহে । কালিয়াচকের সুজাপুরে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের শাখা। ব্যাঙ্কের ম্যানেজার, ডেপুটি ম্যানেজার সহ প্রায় সব কর্মীই করোনা আক্রান্ত। ব্যাঙ্কের ১৫ জন কর্মীর মধ্যে ১৩ জনই করোনা আক্রান্ত। দিন কয়েক আগে ম্যানেজারসহ পাঁচ জনের করোনা সংক্রমণ  ধরা পড়ে। কর্মীদের বাকিদের লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করতে গিয়ে রবিবার ফের আটজনের সংক্রমিত হওয়ার খবর মিলেছে।

এরপরে ব্যাঙ্ক থেকে সংক্রমণ ঠেকাতে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের শাখা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত। ব্যাঙ্কের এই শাখায় ৬৫ হাজার গ্রাহক রয়েছেন। ব্যাঙ্ক বন্ধ থাকায় সমস্যায় গ্রাহকরা। কালিয়াচকের গয়েশবাড়ি,  সুজাপুর, বামনগ্রাম- মসিমপুর, জালালপুর এবং হারুগ্রাম- এলাকার বাসিন্দাদের বড় অংশের আর্থিক লেনদেন এই ব্যাঙ্কেই। আপাতত অনির্দিষ্ট কালের জন্য ব্যাঙ্ক বন্ধ। বর্তমানে করোনা ও আমফান জনিত সমস্যা ছাড়াও সরকারি বিভিন্ন ভাতার টাকা আসছে ব্যাঙ্কে। গত কয়েক দিনে কয়েক হাজার গ্রাহককে ভাতা বিলি করে ব্যাঙ্ক ক‍র্তৃপক্ষ। কিন্তু কী করে একসঙ্গে এতজন ব্যাঙ্ক কর্মী করোনা আক্রান্ত হলেন তা নিয়ে উদ্বেগ ছড়িয়েছে।

ব্যাঙ্ক সূত্রে জানা গিয়েছে,গত কয়েক দিনে ব্যাঙ্কে প্রচুর গ্রাহকের ভিড় হয়। কয়েক হাজার মানুষ লেনদেন করেন। অনেক ক্ষেত্রেই সামাজিক দুরত্ব রক্ষা করার পরিস্থিতি ছিল না । ওই ব্যাঙ্কের আধিকারিক,কর্মীদের পাশাপাশি গাড়ি চালক, ক্যান্টিন কর্মী প‍র্ষন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছে। এরই মধ্যে আতঙ্কে বেড়েছে কারণ বহু সাধারন গ্রাহক ব্যাঙ্ক কর্মীদের সঙ্গে লেনদেন করতে গিয়ে কাছাকাছি আসেন। ফলে স্থানীয় ভাবে উদ্বেগ রয়েছে।

Sebak Deb Sarma

Published by:Elina Datta
First published: