Home /News /cooch-behar /
Cooch Behar: জয়েন্টে রাজ্যে পঞ্চম স্থান কোচবিহারের কৌস্তভ চৌধুরীর

Cooch Behar: জয়েন্টে রাজ্যে পঞ্চম স্থান কোচবিহারের কৌস্তভ চৌধুরীর

জয়েন্টে রাজ্যে পঞ্চম স্থান কোচবিহারের কৌস্তভ চৌধুরীর!

জয়েন্টে রাজ্যে পঞ্চম স্থান কোচবিহারের কৌস্তভ চৌধুরীর!

জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষার ফলাফল বেরিয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই। আর এবার পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলা থেকে পঞ্চম স্থান অধিকার করেছে জেনকিনস স্কুলের ছাত্র কৌস্তভ চৌধুরী।

  • Share this:

    কোচবিহার: জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষার ফলাফল বেরিয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই। আর এবার পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলা থেকে পঞ্চম স্থান অধিকার করেছে জেনকিনস স্কুলের ছাত্র কৌস্তভ চৌধুরী। আর সেই কারণেই রীতিমত খুশির আবহাওয়া কৌস্তভের বাড়িতে। কোচবিহার জেলার পিভিএনএন রোডের চলতাতলার নিকটবর্তী স্থানে এলইসি অফিসের বিপরীত দিকে বাড়ি কৌস্তভের। এই খুশির খবরে রীতিমত খুশি হয়েছেন কৌস্তভের প্রতিবেশীরাও। শুক্রবার দুপুরেই প্রকাশিত হয়েছে জয়েন্ট এন্ট্রান্স এর ফলাফল। ফল প্রকাশিত হওয়ার পর সেখানে দেখা যায় কোচবিহার থেকে রাজ্যে পঞ্চম স্থান অধিকার করেছে কৌস্তভ। কৌস্তভ জানিয়েছে, \"বাড়ির সকলের খুশি হওয়ার কারণে সেও দারুন খুশি। তার এই সাফল্যকে সে তার সকল শুভাকাঙ্খীদের উৎসর্গ করতে চায়। এছাড়া ভবিষ্যতে তার ফিজিক্স বিষয় নিয়ে গবেষণা করার ইচ্ছে রয়েছে তার।\"

    এবারের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পর সে পায় ৪৮২ নম্বর। তবে সে কোন মেধা তালিকায় স্থান পায়নি। তবে এদিনেই এই খবর সামনে আসতেই বাড়িতে আনন্দ উচ্ছ্বাসে মেতে উঠেছেন সকলেই এবং চলছে দেদার মিষ্টি মুখের পালা। কৌস্তভের বাবা এগ্রিকালচারের জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার এবং মা গৃহবধূ। ছেলের এই সাফল্যের বিষয়ে কৌস্তভের বাবা জয় চৌধুরী এবং মা অনিন্দিতা চৌধুরী জানান,

    আরও পড়ুনঃ সন্ধে নামলেই জমজমাট কোচবিহার সাগরদিঘি চত্বর, ঘুরতে যেতে চান!
     

    \"আমরা দুজনেই দারুন খুশি ছেলের এই সাফল্যের কারণে। ছেলে সারাদিনে মোট ৬ থেকে ৭ ঘণ্টা পড়াশোনা করত। উচ্চ মাধ্যমিকে ছেলে ভালো ফল করেছিল। তবে কোন মেধাতালিকায় নাম আসেনি তাই একটু চিন্তায় ছিলাম। তবে জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষায় এই ধরনের ফলাফল করার কারণে আমরা দারুন খুশি\"।

    আরও পড়ুনঃ কোচবিহারে গৃহহীনদের একমাত্র ভরসা "ঠিকানা"!

    এছাড়াও কৌস্তভের শিক্ষক সত্যজিত কুমার রক্ষীত বলেন, \"শুরু থেকেই মেধাবী ছাত্র কৌস্তভ। উচ্চ মাধ্যমিকে সে ভালই ফল করেছিল। তবে সে প্রধান প্রস্তুতি নিয়েছি এই জয়েন্টের জন্য। সেই কারণে ওর এর সাফল্যের জন্য আমি দারুন খুশি\"। মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক পরিক্ষায় একের পর এক একাধিক সাফল্যের পর কোচবিহার জেলা থেকে জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষায় রাজ্যে পঞ্চম স্থান পাওয়ার কারণে রীতিমত আনন্দে ভাসছে কোচবিহার।

    Sarthak Pandit
    First published:

    Tags: Cooch behar, Joint Entrance Examination Result

    পরবর্তী খবর