Home /News /business /
Budget 2022-23: করোনায় ‘বহি খাতা’ বাদ, হচ্ছে না হালুয়া সেরিমনি, এবারও ‘পেপারলেস’ বাজেট নির্মলার

Budget 2022-23: করোনায় ‘বহি খাতা’ বাদ, হচ্ছে না হালুয়া সেরিমনি, এবারও ‘পেপারলেস’ বাজেট নির্মলার

বাজেটের অনেক রীতিতেই বদল আসছে৷ ফাইল ছবি

বাজেটের অনেক রীতিতেই বদল আসছে৷ ফাইল ছবি

গত বছর অর্থাৎ ২০২১ সালেও ট্যাবলেট থেকেই বাজেট পেশ করেছিলেন নির্মলা। ১ ফেব্রুয়ারি তারই পুনরাবৃত্তি হতে চলেছে (Union Budget 2022-23 )।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: প্রথমবার অর্থমন্ত্রী হয়েই ব্রিফকেস সংস্কৃতির অবসান ঘটিয়েছিলেন নির্মলা সীতারমন (Nirmala Sitharaman)। বদলে এনেছিলেন ‘বহি খাতা’। ঐতিহ্যবাহী লাল শালুতে মুড়ে সংসদে প্রবেশ করেছিল বাজেটের নথি।

    চলতি বছরে করোনা আবহে ‘বহি খাতা’রও বিদায়। এশিয়ার তৃতীয় বৃহত্তম ভারতীয় অর্থনীতির যাবতীয় কর প্রস্তাব এবং আর্থিক বিবৃতি সংক্রান্ত কোনও নথিই ছাপা হবে না। সে সব থাকবে ট্যাবলেটে। মহামারী আবহে ডিজিটাল ইন্ডিয়ার সঙ্গে সাযুজ্য রেখেই এই সিদ্ধান্ত বলে জানা গিয়েছে। উল্লেখ্য, গত বছর অর্থাৎ ২০২১ সালেও ট্যাবলেট থেকেই বাজেট পেশ করেছিলেন নির্মলা। ১ ফেব্রুয়ারি তারই পুনরাবৃত্তি হতে চলেছে।

    নর্থ ব্লকে ছাপা হত বাজেটের নথি

    নর্থ ব্লকেই অর্থ মন্ত্রকের কার্যালয়। বাজেট পেশের মাস ছয়েক আগে থেকেই সেখানে সাজো সাজো রব। মন্ত্রকের বেসমেন্টেই রয়েছে ঢাউস ছাপাখানা। সেখানেই ছাপা হত বাজেটের গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র। নাওয়া খাওয়া ভুলে সপ্তাহখানেক ধরে ছাপাখানাতেই ঘাঁটি গাড়তেন অর্থ মন্ত্রকের কর্মীরা।

    আরও পড়ুন: স্বাস্থ্য বিমায় জিএসটি কমানো হোক, নির্মলার কাছে দাবি বিমা কোম্পানিগুলির

    গত বছরই করোনা সংক্রমণের কারণে এই রীতিতে বদল আনতে হয়েছিল। ছোট জায়গার মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব নয়, সেই কারণেই কর্মীদের রাত্রিবাসের রীতি স্থগিত করে দেওয়া হয়। তবে এবার কর্মীদের বেশিরভাগই কম্পিউটারমুখো।

    সম্প্রতি সংসদের প্রায় ৯০০ জন কর্মী করোনা আক্রান্ত হন। দেশেও ক্রমশ বেড়েছে সংক্রমণ। সেই কারণেই করোনা থেকে সুরক্ষিত থাকতেই এই বছরও সংস্পর্শ এড়াতে পেপারলেস বাজেট পেশ হতে চলেছে। ফলে বাজেটের অধিকাংশ নথিই থাকবে ডিজিটাল আকারে। কেবলমাত্র কয়েকটি কপিই ছাপানো হবে। তবে ডিজিটাল নথির তুলনায় তা নগণ্য।

    আরও পড়ুন: আসন্ন বাজেটে কি কমানো হতে পারে ইলেকট্রনিক্স সরঞ্জামের দাম?

    কাগজের ব্যবহার কমানো শুরু হয়েছিল আগেই

    করোনাকালে নয়, বরং ২০১৬-১৭ অর্থবর্ষের কেন্দ্রীয় বাজেট পেশ করার সময় থেকেই বাজেটে কাগজের ব্যবহার কমানো শুরু হয়। লক্ষ্য ছিল পরিবেশবান্ধব বাজেট। সাংবাদিক ও বিশ্লেষকদের জন্য আলাদাভাবে বাজেট নথি ছাপানোও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। ছাপানো হত শুধুমাত্র অর্থমন্ত্রী ও সাংসদদের জন্যই। গতবছর থেকে সেটাও বন্ধ হয়ে যায়।

    বাদ হালুয়া সেরিমনিও

    ঐতিহ্যবাহী হালুয়া সেরিমনির মধ্যে দিয়ে বাজেটের নথি ছাপানোর কাজ শুরু হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকেন অর্থমন্ত্রী, অর্থ প্রতিমন্ত্রী এবং মন্ত্রকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। চলতি বছর করোনার জন্য হালুয়া সেরিমনিও বাদ দেওয়া হয়েছে। তবে বাজেট নথির সংকলন ডিজিটালাইজ করার জন্য পরিবার-পরিজনদের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে এবারও রাত জাগবেন মন্ত্রকের কর্মীদের একাংশ।

    বাজেট নথি কী?

    বাজেট নথিতে সাধারণত সংসদে অর্থমন্ত্রীর বক্তৃতা, মূল নোট, বার্ষিক আর্থিক বিবৃতি, কর প্রস্তাব সম্বলিত অর্থ বিল, আর্থিক বিলের বিধান ব্যাখ্যা এবং অর্থনৈতিক কাঠামোর বিশদ বিবরণ থাকে। এর মধ্যে রয়েছে মধ্যমেয়াদী রাজস্ব পলিসি কাম ফিসকাল পলিসি স্ট্র্যাটেজি স্টেটমেন্ট, প্রকল্পগুলির বিবরণ কাঠামো, শুল্ক বিজ্ঞপ্তি, পূর্ববর্তী বাজেট ঘোষণার বাস্তবায়ন, প্রাপ্তি বাজেট, ব্যয় বাজেট ইত্যাদি।

    First published:

    Tags: Nirmala Sitharaman, Union Budget 2022

    পরবর্তী খবর