দেশের ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থা প্রবল সঙ্কটে, RBI সজাগ নয়, সতর্ক করলেন নোবেলজয়ী অভিজিত্‍

স্পষ্ট জানালেন, ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থা প্রবল সঙ্কটের মধ্যে রয়েছে৷ এই সঙ্কটের শিকড় অত্যন্ত গভীরে৷ অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতে হবে৷

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Oct 16, 2019 04:31 PM IST
দেশের ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থা প্রবল সঙ্কটে, RBI সজাগ নয়, সতর্ক করলেন নোবেলজয়ী অভিজিত্‍
নোবেলজয়ী অভিজিত্‍ বন্দ্যোপাধ্যায়
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Oct 16, 2019 04:31 PM IST

#কলকাতা: নোটবন্দির সমালোচনা বারবারই শোনা গিয়েছে তাঁর গলায়৷ এ বার ভারতের ব্যাঙ্কিং সিস্টেম নিয়েও গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করলেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিত্‍ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ স্পষ্ট জানালেন, ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থা প্রবল সঙ্কটের মধ্যে রয়েছে৷ এই সঙ্কটের শিকড় অত্যন্ত গভীরে৷ অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতে হবে৷

News18-কে ফোনে এক্সক্লুসিভ সাক্ষাত্‍কারে পিএমসি ব্যাঙ্ক দুর্নীতি প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে অভিজিত্‍ জানান, ধুঁকতে থাকা ব্যাঙ্কগুলিকে বিক্রি করতে এই সঙ্কটের সুযোগকে কাজে লাগানো যেতে পারে৷ তাঁর কথায়, 'ভারতের ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থা ব্যাপক সঙ্কটে রয়েছে৷ বহু বছর ধরেই চলছে এই সঙ্কট৷ যার ফলেই আজ সঙ্কটে একেবারে গভীরে পৌঁছেছে৷ ব্যাঙ্কগুলিকে চাঙ্গা করতে সরকারকে অনেক টাকা খরচ করতে হবে৷ কিন্তু কেন্দ্রের কাছে ওতো টাকা নেই৷ সে ক্ষেত্রে আর্থিক ভাবে ধুঁকতে থাকা ব্যাঙ্কগুলিকে বিক্রি করাই ভালো বলে আমি মনে করি৷'

ব্যাঙ্কগুলি প্রবল আর্থিক সঙ্কটে ভুগছে এবং ভবিষ্যতে আরও সঙ্কট আসতে চলেছে বলেও জানান তিনি৷ নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ বলেন, 'আশার কথা এটাই যে, এখনও ধুঁকতে থাকা ব্যাঙ্কগুলির শাখা রয়েছে ও কিছু ভালো মানুষ কাজ করেন৷ অতএব বিক্রি করতে কী অসুবিধা? ধুঁকতে থাকা ব্যাঙ্কগুলিকে বিক্রি করে, সেই টাকায় ব্যাঙ্কগুলিকে চাঙ্গা করা যাবে৷'

কয়েক দিন আগেই News18-এর করা একটি আরটিআই রিপোর্টে জানা যায়, ৪১৬ জন ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপির জন্য ভারতের ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থা ১.৭৬ লক্ষ কোটি টাকা ক্ষতির সম্মুখীন৷ ৪১৬ জন ঋণখেলাপির মধ্যে দেখা যাচ্ছে, প্রত্যেকেই ১০০ কোটি বা তার বেশি টাকা লোন নিয়েছে ব্যাঙ্ক থেকে, তারপর আর টাকা মেটায়নি৷ অনাদায়ী ঋণের নিরিখে দেখা যাচ্ছে, গড়ে ৪২৪ কোটি টাকা প্রতি দেনাদার পিছু ব্যাড লোন৷

আরও ভিডিও: ৪০ দিন ধরে অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় আর এস্থার ডুফলোর সঙ্গে কাজ করেছিলেন মলয় লাহিড়ি

Loading...

First published: 04:28:28 PM Oct 16, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर