দেশের ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থা প্রবল সঙ্কটে, RBI সজাগ নয়, সতর্ক করলেন নোবেলজয়ী অভিজিত্‍

দেশের ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থা প্রবল সঙ্কটে, RBI সজাগ নয়, সতর্ক করলেন নোবেলজয়ী অভিজিত্‍
নোবেলজয়ী অভিজিত্‍ বন্দ্যোপাধ্যায়

স্পষ্ট জানালেন, ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থা প্রবল সঙ্কটের মধ্যে রয়েছে৷ এই সঙ্কটের শিকড় অত্যন্ত গভীরে৷ অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতে হবে৷

  • Share this:

#কলকাতা: নোটবন্দির সমালোচনা বারবারই শোনা গিয়েছে তাঁর গলায়৷ এ বার ভারতের ব্যাঙ্কিং সিস্টেম নিয়েও গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করলেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিত্‍ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ স্পষ্ট জানালেন, ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থা প্রবল সঙ্কটের মধ্যে রয়েছে৷ এই সঙ্কটের শিকড় অত্যন্ত গভীরে৷ অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতে হবে৷

News18-কে ফোনে এক্সক্লুসিভ সাক্ষাত্‍কারে পিএমসি ব্যাঙ্ক দুর্নীতি প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে অভিজিত্‍ জানান, ধুঁকতে থাকা ব্যাঙ্কগুলিকে বিক্রি করতে এই সঙ্কটের সুযোগকে কাজে লাগানো যেতে পারে৷ তাঁর কথায়, 'ভারতের ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থা ব্যাপক সঙ্কটে রয়েছে৷ বহু বছর ধরেই চলছে এই সঙ্কট৷ যার ফলেই আজ সঙ্কটে একেবারে গভীরে পৌঁছেছে৷ ব্যাঙ্কগুলিকে চাঙ্গা করতে সরকারকে অনেক টাকা খরচ করতে হবে৷ কিন্তু কেন্দ্রের কাছে ওতো টাকা নেই৷ সে ক্ষেত্রে আর্থিক ভাবে ধুঁকতে থাকা ব্যাঙ্কগুলিকে বিক্রি করাই ভালো বলে আমি মনে করি৷'

ব্যাঙ্কগুলি প্রবল আর্থিক সঙ্কটে ভুগছে এবং ভবিষ্যতে আরও সঙ্কট আসতে চলেছে বলেও জানান তিনি৷ নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ বলেন, 'আশার কথা এটাই যে, এখনও ধুঁকতে থাকা ব্যাঙ্কগুলির শাখা রয়েছে ও কিছু ভালো মানুষ কাজ করেন৷ অতএব বিক্রি করতে কী অসুবিধা? ধুঁকতে থাকা ব্যাঙ্কগুলিকে বিক্রি করে, সেই টাকায় ব্যাঙ্কগুলিকে চাঙ্গা করা যাবে৷'

কয়েক দিন আগেই News18-এর করা একটি আরটিআই রিপোর্টে জানা যায়, ৪১৬ জন ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপির জন্য ভারতের ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থা ১.৭৬ লক্ষ কোটি টাকা ক্ষতির সম্মুখীন৷ ৪১৬ জন ঋণখেলাপির মধ্যে দেখা যাচ্ছে, প্রত্যেকেই ১০০ কোটি বা তার বেশি টাকা লোন নিয়েছে ব্যাঙ্ক থেকে, তারপর আর টাকা মেটায়নি৷ অনাদায়ী ঋণের নিরিখে দেখা যাচ্ছে, গড়ে ৪২৪ কোটি টাকা প্রতি দেনাদার পিছু ব্যাড লোন৷

আরও ভিডিও: ৪০ দিন ধরে অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় আর এস্থার ডুফলোর সঙ্গে কাজ করেছিলেন মলয় লাহিড়ি

First published: October 16, 2019, 4:28 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर