corona virus btn
corona virus btn
Loading

Cyrus Mistry: মামলায় জয়! টাটা গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান ফের সাইরাস মিস্ত্রি

Cyrus Mistry: মামলায় জয়! টাটা গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান ফের সাইরাস মিস্ত্রি
সাইরাস মিস্ত্রি ও রতন টাটা

একই সঙ্গে ট্রাইবুনাল জানিয়ে দিয়েছে, সাইরাসকে সরিয়ে এন চন্দ্রশেখরণকে চেয়ারম্যানের পদে বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়াও বেআইনি ছিল৷

  • Share this:

#মুম্বই: ২০১৬ সালে তাঁকে সরানো নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে উঠেছিল বাণিজ্যমহলে৷ এরপর টানা ৩ বছরের বেশি সময়ের আইনি লড়াইয়ের পরে টাটা গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান পদে ফিরছেন সাইরাস মিস্ত্রি৷ ন্যাশনাল কোম্পানি ল'ট্রাইবুনালের নির্দেশে সাইরাস মিস্ত্রি ফের টাটা গোষ্ঠীর এগজিকিউটিভ চেয়ারম্যান৷ একই সঙ্গে ট্রাইবুনাল জানিয়ে দিয়েছে, সাইরাসকে সরিয়ে এন চন্দ্রশেখরণকে চেয়ারম্যানের পদে বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়াও বেআইনি ছিল৷

ট্রাইবুনাল জানিয়েছে, টাটা গোষ্ঠী চাইলে এই রায়ের বিরুদ্ধে ৪ সপ্তাহের মধ্যে আবেদন জানাতে পারে৷ সাপুরজি পাল্লনজি পরিবারের সন্তান সাইরাস মিস্ত্রিকে ২০১৬ সালের অক্টোবরে টাটা গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়৷ এরপর টাটা গোষ্ঠীর সব পদ থেকে একে একে ইস্তফা দেন সাইরাস৷ ২০১২ সালে রতন টাটার অবসরের পরে সাইরাস টাটা গোষ্ঠীর দায়িত্ব নেন৷

বিশ্বের সবচেয়ে স্বস্তার গাড়ি ন্যানো-সহ টাটা গোষ্ঠীর একাধিক সিদ্ধান্ত প্রকল্পে বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত খুব একটা কার্যকরী হয়নি৷ তা নিয়ে সাইরাস মিস্ত্রির সঙ্গে রতন টাটার সংঘাত তৈরি হয়৷ টাটা সন্স-এ সাইরাস মিস্ত্রির পরিবারের ১৮.৪ শতাংশ শেয়ার রয়েছে৷ চেয়ারম্যান পদ থেকে সরার পরেই ট্রাইবুনালে মামলা করেন সাইরাস মিস্ত্রি৷

রতন টাটা ২০১১ সালের ২৩ নভেম্বর সাইরাস সম্পর্কে বলেছিলেন, 'আই হ্যাভ বিন ইমপ্রেসড উইথ দ্য কোয়ালিটি অ্যান্ড ক্যালিবার অফ হিজ পার্টিসিপেশন (অন দ্য বোর্ড), হিজ অ্যাস্টিউট অবজার্ভেশনস অ্যান্ড হিজ হিউমিলিটি৷' সেই সাইরাসের সঙ্গে বিভিন্ন বিনিয়োগ নিয়ে সম্পর্ক তলানিতে চলে যায় রতন টাটার৷

চেয়ারম্যান পদ থেকে অপসারণের পর থেকে টাটা সন্স ও সংস্থার বর্তমান চেয়ারম্যান রতন টাটার বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন সাইরাস মিস্ত্রি। একের পর এক সংস্থার ডিরেক্টরের পদ থেকে অপসারণের পর টাটা গোষ্ঠীর সব পদে ইস্তফা দিয়ে সংস্থার সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেন তিনি। ঠিক পরের দিনই ন্যাশনাল কোম্পানি ল' ট্রাইবুনালে মামলা দায়ের করেন সাইরাস।

First published: December 18, 2019, 5:41 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर