Home /News /business /
লেক্সাস আনল সুপার লাক্সারি এনএক্স ৩৫০ এইচ, টক্কর নিচ্ছে মার্সিডিজ, অডির সঙ্গে!

লেক্সাস আনল সুপার লাক্সারি এনএক্স ৩৫০ এইচ, টক্কর নিচ্ছে মার্সিডিজ, অডির সঙ্গে!

lexus nx 350h enters indian market priced rival mercedes volvo audi bmw luxury car in india

lexus nx 350h enters indian market priced rival mercedes volvo audi bmw luxury car in india

স্পিন্ডল গ্রিল এবং নতুন ডিজাইনের হেডল্যাম্পের কারণে গাড়িটির সামনের দিকে লুক একদম বদলে গিয়েছে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ভারতের বাজারে বিলাসবহুল এসইউভি নিয়ে এল লেক্সাস ( Lexus)। এনএক্স ৩৫০ এইচ (NX 350h)। বর্তমানে তিনটি মডেলে পাওয়া যাচ্ছে, এক্সকুইজিট, এফ-স্পোর্ট এবং লাক্সারি। এর দাম শুরু হচ্ছে ৬৪.৯০ লক্ষ টাকা (এক্স শোরুম) থেকে। এফ-স্পোর্ট-এর জন্য পড়বে ৭১.৬০ লক্ষ টাকা (এক্স শোরুম)। এটা মার্সিডিজ বেঞ্জ জিএলসি, ভলভো এক্সসি ৬০, অডি কিউ ৫, এবং সম্প্রতি মার্কেট কাঁপানো বিএমডব্লিউ এক্স ৩ ফেসলিফটের সঙ্গে জোর টক্কর নেবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

নতুন লঞ্চ হওয়া এনএক্স ৩৫০ এইচ  (NX 350h) সেকেন্ড জেনারেশন গাড়ি। স্পিন্ডল গ্রিল এবং নতুন ডিজাইনের হেডল্যাম্পের কারণে গাড়িটির সামনের দিকে লুক একদম বদলে গিয়েছে। গাড়ির দুই পাশের লুকও আগের চেয়ে অনেক আকর্ষণীয় হয়েছে। গাড়ির ‘কুলেস্ট’ ফিচার কোনটা?বেশির ভাগ ড্রাইভার কিন্তু চাকার গতিশীলতার মধ্যেই ‘কুল’ থাকার রসদ খুঁজে পান। নতুন মডেলে জুড়েছে ২০ ইঞ্চির চাকা। দেওয়া হয়েছে টেপরিং রুফলাইন। গাড়ির পিছনে টেল ল্যাম্প দুটির মধ্যে রয়েছে একটি লাইট বার যা দুই টেল-ল্যাম্পকে যোগ করেছে।

শুধু বাইরে নয় নতুন মডেলের অন্দরসজ্জাতেও যত্ন নিয়েছে লেক্সাস ( Lexus)। রয়েছে ১৪ ইঞ্চির টাচস্ক্রিন। থাকছে নতুন ডিজাইনের ডিজিটাল ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাস্টারও। একাধিক নতুন ফিচারও রয়েছে। নতুন গাড়িটিতে এইচইউডি, প্যানারোমিক সানরুফ রয়েছে। যাত্রীদের সুবিধার জন্য দেওয়া হয়েছে ইলেকট্রিক সিট। তার সঙ্গেই গাড়ির ভিতরেও রয়েছে আলোর কারুকাজ।

একাধিক আধুনিক নিরাপত্তা পরিকাঠামো রয়েছে নয়া এনএক্স ৩৫০ এইচ-এ। গাড়িতে রয়েছে প্রি কলিশন সিস্টেম ফর ভেহিকেল ডিটেকশন অ্যালার্ম। রয়েছে ডায়ানমিক রাডার ক্রুজ কন্ট্রোল। গাড়ি কোন লেনে চলছে তা নিয়ে সতর্ক করার জন্য লেন থাকছে ডিপার্চার অ্যালার্ট এবং লেন ট্রেসিং অ্যাসিস্ট। এর সঙ্গেই অন্ধকারে গাড়ি চালানোর জন্য হেডল্যাম্পে অটো হাইবিমের সুবিধাও রয়েছে।

এখানেই শেষ নয়, ব্লাইন্ড স্পট মনিটর, রিয়ার ক্রস ট্রাফিক অ্যালার্ট এবং রিয়ার ক্যামেরা ডিকেটশনের সুবিধাও রয়েছে নতুন এই মডেলে। গাড়ির সামনে ও পিছনে রয়েছে পার্কিং সেন্সরও। হাইব্রিড ভ্যারিয়েন্ট এই গাড়িতে রয়েছে অত্যন্ত শক্তিশালী ইঞ্জিন। ২.৫ লিটার ইনলাইন ৪ সিলিন্ডার ইঞ্জিনের ইলেকট্রিক মোটর। এই এসইউভির সঙ্গে রয়েছে ইসিভিটি অটোমেটিক গিয়ারবক্স। এই বিলাসবহুল এসইউভি মার্সিডিজ বেঞ্জ জিএলসি, ভলভো এক্সসি ৬০, অডি কিউ ৫, এবং সম্প্রতি মার্কেট কাঁপানো বিএমডব্লিউ এক্স ৩ ফেসলিফটের সঙ্গে জোর টক্কর নেবে বলে মনে করা হচ্ছে।

Published by:Debalina Datta
First published:

Tags: Car

পরবর্তী খবর