Home /News /business /

Stamp Duty: সম্পত্তি কেনার আগে অবশ্যই জেনে নিন স্ট্যাম্প ডিউটি চার্জ কী ভাবে ক্যালকুলেট করা হয়

Stamp Duty: সম্পত্তি কেনার আগে অবশ্যই জেনে নিন স্ট্যাম্প ডিউটি চার্জ কী ভাবে ক্যালকুলেট করা হয়

স্ট্যাম্প ডিউটি চার্জ কী কী বিষয়ের ওপর নির্ভর করে?

  • Share this:

#নয়াদিল্লি:  নতুন সম্পত্তি ক্রয় করার সময় মালিকানা আইনি ভাবে হস্তান্তর করতে ক্রেতাকে স্ট্যাম্প ডিউটি এবং রেজিস্ট্রেশন চার্জ শুল্ক হিসেবে প্রদান করতে হয়। ভারতীয় স্ট্যাম্প আইন, ১৮৯৯, ধারা ৩ অনুযায়ী জমি, বাড়ি অথবা সম্পত্তি কেনার সময় মালিকানা পরিবর্তন সরকারি ভাবে বৈধ করতে এই শুল্ক প্রদান করা বাধ্যতামূলক।

আরও পড়ুন: প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার আওতায় আপনি কী ঋণ পাবেন? জেনে নিন...

স্ট্যাম্প ডিউটি না-দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা যায় না এবং নিবন্ধিত না-করলে সম্পত্তির উপর ক্রেতার কোনও আইনি অধিকার থাকে না। একটি নতুন সম্পত্তি কেনার সময় শুল্ক হিসেবে স্ট্যাম্প ডিউটি এবং রেজিস্ট্রেশন চার্জ, সেস এবং সারচার্জ প্রদান করতে হয়। স্ট্যাম্প ডিউটি সাধারণত সম্পত্তির মূল্যের ৫% থেকে ৭% হয় এবং রেজিস্ট্রেশন চার্জ ১%। এই সমস্ত মিলিয়ে মোট খরচ সম্পত্তির দামের ৭% থেকে ১০% পর্যন্ত পৌঁছে যায়। স্ট্যাম্প ডিউটি রাজ্য সরকার ধার্য করে, তাই বিভিন্ন রাজ্যে এই শুল্কের পরিমাণও ভিন্ন হয়। 

আরও পড়ুন: আবারও কী বাড়ল দাম? জেনে নিন আপনার শহরে আজকে পেট্রোল ও ডিজেলের নতুন দাম

স্ট্যাম্প ডিউটি চার্জ নির্ধারণ করার পদ্ধতি:

ক্রয়মূল্য, বাজারমূল্য, ক্রেতার বয়স এবং সম্পত্তির অবস্থান-সহ বেশ কয়েকটি বিষয়ের উপর ভিত্তি করে স্ট্যাম্প ডিউটি ধার্য করা হয়। নীচে এই বিষয়গুলি সম্বন্ধে আলোচনা করা হল।

  • স্ট্যাম্প ডিউটি গণনা করার সময় সব চেয়ে প্রথমে সম্পত্তির বাজার মূল্য বিবেচনা করা হয়। যদি কোনও জমি বা বাড়ির বাজার মূল্য বেশি হয়, তবে ডিউটি হিসেবে বেশি পরিমাণ শুল্ক ধার্য করা হবে এবং একই ভাবে কম বাজার মূল্যের জন্য কম শুল্ক বসানো হয়। অনেক সময় দেখা যায় যে, ক্রয়-বিক্রয় মূল্য বাজার মূল্যের সমান হয় না, সে ক্ষেত্রে যেটি বেশি হয়, তার উপর ভিত্তি করে স্ট্যাম্প ডিউটি বসানো হয়। 
  • বাজার মূল্য ছাড়াও সম্পত্তির অবস্থান এবং সম্পত্তির ধরনের উপর ভিত্তি করে স্ট্যাম্প ডিউটি গণনা করা হয়। এ ছাড়া এই শুল্ক ধার্য করার সময় মালিকের বয়স এবং মালিক মহিলা না পুরুষ ইত্যাদি বিষয়ও বিবেচনা করা হয়ে থাকে।  
  • স্ট্যাম্প ডিউটি কর্মকর্তারা সম্পত্তির মূল্য নির্ধারণ করার জন্য সাধারণত স্ট্যাম্প ডিউটি রেডি রেকনার ব্যবহার করে। রাজ্য সরকারগুলি প্রতি বছরের ১ জানুয়ারি স্ট্যাম্প ডিউটি রেডি রেকনার প্রকাশ করে।  

আরও পড়ুন: কোটি কোটি কৃষকদের জন্য বড় খবর, এই কাজটি না করলে আটকে যাবে যোজনার টাকা...

স্ট্যাম্প ডিউটি ক্যালকুলেটর:

অনলাইন স্ট্যাম্প ডিউটি ক্যালকুলেটর ব্যবহার করে খুব সহজেই নির্ধারণ করা যায় যে, নতুন সম্পত্তি কেনার সময় মূল দাম ছাড়া স্ট্যাম্প ডিউটি হিসেবে কত টাকা প্রদান করতে হবে। ইন্টারনেটে যে কোনও স্ট্যাম্প ডিউটি ক্যালকুলেটরে তথ্য দিলেই কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে যথাযথ উত্তর পাওয়া যায়। জেনে নেওয়া যাক, কী ভাবে স্ট্যাম্প ডিউটি ক্যালকুলেটর ব্যবহার করা হয়। 

  • সম্পত্তির ধরন, সম্পত্তির অবস্থান এবং মোট বাজার মূল্য-সহ যে সমস্ত তথ্য চাওয়া হবে, তা নির্দিষ্ট স্থানে পূরণ করে ক্যালকুলেট অপশনে ক্লিক করতে হবে। মুহূর্তের মধ্যে ক্রেতার প্রশ্নের যথাযথ উত্তর-সহ ফলাফল স্ক্রিনে চলে আসবে।
  • অনলাইন ক্যালকুলেটর ব্যবহার করে ক্রেতা রেজিস্ট্রেশন চার্জও গণনা করতে পারবেন। একই ভাবে যে কোনও রেজিস্ট্রেশন ফি ক্যালকুলেটরে তথ্য দিলে খুব সহজেই এই অতিরিক্ত ফি নির্ধারণ করা যায়। 
  • অনলাইন ক্যালকুলেটরে সেস এবং সারচার্জ যোগ করলে একটি সম্পত্তি রেজিস্ট্রেশনের মোট খরচ জানা যাবে।
  • অনলাইন ক্যালকুলেটর ব্যবহার করতে সক্ষম না-হলে কাছাকাছি থাকা কোনও রেজিস্ট্রেশন অফিসে গেলেই স্ট্যাম্প ডিউটি এবং রেজিস্ট্রেশন চার্জের পরিমাণ সম্বন্ধে ধারণা পাওয়া যায়। 

স্ট্যাম্প ডিউটি চার্জ কী কী বিষয়ের ওপর নির্ভর করে? 

সম্পত্তির বয়স:

ক্রেতাকে স্ট্যাম্প ডিউটি চার্জ হিসেবে কত টাকা শুল্ক প্রদান করতে হবে, তা নির্ধারণের সময় সম্পত্তির বয়স গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। যে হেতু স্ট্যাম্প ডিউটি সম্পত্তির বাজার মূল্যের উপর ভিত্তি করে নির্ধারণ করা হয়, সেই কারণে নবনির্মিত বাড়ি বা ফ্ল্যাটে তুলনামূলক বেশি শুল্ক ধার্য করা হয়। যেখানে পুরনো বাড়ির ক্ষেত্রে তা কম হয়। 

মালিকের বয়স: 

প্রায় সমস্ত রাজ্য সরকারই প্রবীণ নাগরিকদের জন্য স্ট্যাম্প ডিউটি চার্জ ধার্য করার সময় ছাড় বা ভর্তুকি প্রদান করে। 

মালিকের লিঙ্গ:

প্রবীণ নাগরিকদের মতো মহিলারাও নিজের নামে সম্পত্তি রেজিস্টার করার সময় শুল্কে ছাড় পান। সম্পত্তি হস্তান্তরের সময় মহিলাদের তুলনায় পুরুষ ক্রেতাদের ২% বেশি স্ট্যাম্প ডিউটি দিতে হয়। 

উদ্দেশ্য: 

বাড়ি, ফ্ল্যাট বা আবাসিক ভবনের তুলনায় বাণিজ্যিক ভবনের ক্ষেত্রে বেশি স্ট্যাম্প ডিউটি ধার্য করা হয়।  

সম্পত্তির অবস্থান:

পৌর এলাকা বা শহুরে জায়গার সম্পত্তির ক্ষেত্রে ক্রেতাদের জন্য শুল্ক হিসেবে বেশি স্ট্যাম্প ডিউটি চার্জ ধার্য করা হয়। অন্য দিকে, পঞ্চায়েত এলাকা বা শহরের উপকণ্ঠের বাসিন্দাদের তুলনামূলক কম চার্জ প্রদান করতে হয়। 

অন্যান্য শুল্ক:

লিফট, সুইমিং পুল, ক্লাব-হাউস, জিম, কমিউনিটি হল এবং স্পোর্টস কমপ্লেক্স-সহ সরকার প্রদত্ত তালিকার মোট ২০টি সুবিধার জন্য অতিরিক্ত শুল্ক ধার্য করা হয়। 

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published:

Tags: Registration Charge, Stamp Duty

পরবর্তী খবর