Home /News /business /
Credit: ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে মেটানো যায় বাড়ি ভাড়া! এতে গ্রাহকের লাভ হয় না ক্ষতি?

Credit: ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে মেটানো যায় বাড়ি ভাড়া! এতে গ্রাহকের লাভ হয় না ক্ষতি?

জেনে নিন সুবিধা

জেনে নিন সুবিধা

করোনার সময় থেকে অনেক কোম্পানি ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে বাড়ি ভাড়া পরিশোধ করার (Paying house rent) কিছু সুবিধা দিতে শুরু করে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: আজকালকার দিনে তরুণ প্রজন্ম কেনাকাটার ক্ষেত্রে বেশিরভাগ সময়ই ক্রেডিট কার্ড (Credit Card) ব্যবহার করে থাকে। করোনার সময় থেকে অনেক কোম্পানি ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে বাড়ি ভাড়া পরিশোধ করার (Paying house rent) কিছু সুবিধা দিতে শুরু করে। এমতাবস্থায় সকলের মনেই প্রশ্ন উঠছে যে, ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে বাড়ি ভাড়া দেওয়া বা পরিশোধ করা উচিত কি না? এর ফলে লাভ হবে না ক্ষতি হবে? আলোচনা করে নেওয়া যাক, ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে বাড়ি ভাড়া পরিশোধ করার সুবিধা-অসুবিধা সম্পর্কে।

ক্রেড, নোব্রোকার, মাইগেট, পেটিএম, ম্যাজিকব্রিক্স এবং ফোনপে-র মতো বেশ কয়েকটি প্ল্যাটফর্ম রয়েছে, যেখানে ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে ভাড়া পরিশোধ করার অনুমতি দেওয়া হয়। ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে করা অন্য লেনদেনের মতো ভাড়া দেওয়ার জন্য রিওয়ার্ড পয়েন্ট দেওয়া হয় কার্ড-ধারককে। যদিও বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে ভাড়া পরিশোধ করার জন্য বিভিন্ন ফি-ও নেওয়া হয়। কিন্তু তরুণ প্রজন্মের কথা অনুযায়ী, ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করার ফলে যে রিওয়ার্ড পয়েন্ট জমা হয়, তা থেকেই ভাড়ার টাকা অ্যাডজাস্ট হয়ে যায়। এর ফলে আলাদা করে কোনও টাকা খরচ হয় না। কীভাবে বাড়ি ভাড়া পরিশোধ করতে হয়?

আরও পড়ুন: গ্রাহকদের জন্য সুখবর, রবিবারেও বাড়িতে বসে পাবেন পরিষেবা! জানুন কীভাবে!

ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে ভাড়া দেওয়ার ক্ষেত্রে বাড়িওয়ালার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের বিবরণ অথবা ইউপিআই আইডি (UPI ID) যোগ করে লেনদেন সম্পূর্ণ করতে হবে। যদি বাড়ি ভাড়া ৫০,০০০ টাকার বেশি হয়, তবে বাড়িওয়ালার PAN বিবরণ জমা দিতে হবে। এমন অনেক প্ল্যাটফর্ম রয়েছে, যেখানে ক্রেডিট কার্ড ধারীকে বাড়ির ঠিকানাও দেওয়ার নির্দেশ দিতে পারে। মাসিক ভাড়ার একটি নির্দিষ্ট সীমা অতিক্রম করলে অনেক প্ল্যাটফর্ম আবার গ্রাহককে ভাড়া দেওয়ার জন্য একটি চুক্তি করার কথাও বলতে পারে।

আরও পড়ুন: শিক্ষা ঋণের ইএমআই কী ভাবে হিসেব করা হয়, জেনে নিন...

লাভ:

এই সমস্ত অ্যাপ বা ওয়েবসাইটগুলির মাধ্যমে ভাড়া মেটানোর সুবিধা হল যে, ক্রেডিট কার্ড-ধারীর কাছে সেই মুহূর্তে টাকা না-থাকলেও তিনি কোনও সুদ ছাড়াই প্রায় ৪৫-৫৬ দিনের ক্রেডিট পিরিয়ড পেতে পারেন। এর পাশাপাশি এই সব অ্যাপ অথবা ওয়েবসাইটগুলির মাধ্যমে অনেক ধরনের লয়্যালটি পয়েন্ট, ক্যাশব্যাক ও এয়ার মাইলের সুবিধাও পাওয়া যায়। উদাহরণস্বরূপ, ম্যাজিক ব্রিকসের মাধ্যমে ভাড়া দিলে ২০০ টাকা থেকে ৩০০০ টাকা পর্যন্ত ক্যাশব্যাক পাওয়া যেতে পারে।

লোকসান:

ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে ভাড়া দেওয়ার জন্য বিভিন্ন অ্যাপ বা ওয়েবসাইট সার্ভিস ফি চার্জ করে। অন্য দিকে আবার, ক্রেডিট কার্ডের বিল পরিশোধ করার নির্দিষ্ট মেয়াদ পেরিয়ে গেলে অনেক সুদ দিতে হতে পারে। ক্রেডিট কার্ডের বিল পরিশোধ না-করলে বা ন্যূনতম বকেয়া অর্থ পরিশোধের জন্য বার্ষিক সুদ ৩০ শতাংশেরও বেশি হতে পারে। বারবার ক্রেডিট সীমা যাতে অতিক্রম না-হয়, সেই বিষয়ে গ্রাহকদের সতর্ক থাকতে হবে। কারণ এর ফলে ক্রেডিট স্কোরের স্থায়ী ক্ষতি হতে পারে।

Published by:Teesta Barman
First published:

Tags: Credit Card, Rented house

পরবর্তী খবর