Home /News /business /
নিশ্চিত রিটার্ন! এই ৪ ধরনের বিনিয়োগে ১.৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত করও ছাড়ও হবে!

নিশ্চিত রিটার্ন! এই ৪ ধরনের বিনিয়োগে ১.৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত করও ছাড়ও হবে!

Pension scheme: এমন অনেক বিনিয়োগের উপায় এবং বিকল্প রয়েছে, যার উপরে কর ছাড় পাওয়া যায়।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: অবসরের পরেও যাতে আর্থিক নিরাপত্তা থাকে, সেই বিষয়টা আগে থেকেই ভাবা উচিত। তাই বিভিন্ন স্কিমে বিনিয়োগ করে রাখতে হবে।

আর সেভিংস স্কিম থেকে শুরু করে বন্ড অথবা স্টক - এই সমস্ত ক্ষেত্রে বিনিয়োগেই ভালো রিটার্নের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই রিটার্নের উপর সরকারকে কর প্রদান করতে হয়। কিন্তু আয়কর আইন অনুযায়ী, এমন অনেক বিনিয়োগের উপায় এবং বিকল্প রয়েছে, যার উপরে কর ছাড় পাওয়া যায়।

আরও পড়ুন- টাটা গ্রুপের এই স্টকে বিনিয়োগ করে আয় করুন দুর্দান্ত মুনাফা, দেখে নিন একনজরে!

বিশেষ করে প্রবীণ নাগরিকদের জন্য এই সুবিধা প্রদান করা হয়। এই প্রতিবেদনে প্রবীণ নাগরিকদের এমনই ৪টি বিনিয়োগের বিকল্প নিয়ে আলোচনা করা হল, যেখানে কর সংক্রান্ত সুবিধা রয়েছে।

ট্যাক্স-ফ্রি বন্ড (Tax-free bonds):

ট্যাক্স-ফ্রি বন্ড হল বিনিয়োগের একটি দুর্দান্ত বিকল্প। এর মাধ্যমে মুদ্রাস্ফীতিকে ছাপিয়ে যাওয়া যায় এবং মাসে মাসে ভালো আয়ও করা সম্ভব। সাধারণত সরকার সমর্থিত বা সরকারের সাহায্যপ্রাপ্ত সংস্থার তরফে এই বন্ডগুলি জারি করা হয়। ফলে বিনিয়োগে সুরক্ষার পাশাপাশি কর মকুবের সুবিধাও প্রদান করা হয়।

প্রবীণ নাগরিকরা সমস্ত কিছু বিচার করে ১০ বছর বা তার বেশির মেয়াদের জন্য ট্যাক্স-ফ্রি বন্ডে বিনিয়োগ করতে পারেন।

৫ বছরের ট্যাক্স সেভিং ফিক্সড ডিপোজিট (5-Year Tax Saving Fixed Deposits):

ট্যাক্স সেভিং ফিক্সড ডিপোজিট হল বিনিয়োগের এমন একটি বিকল্প, যেখানে ৫ বছরের লক-ইন পিরিয়ড থাকে। অর্থাৎ মেয়াদ পূরণ হওয়ার আগে বিনিয়োগকারী কোনও ভাবেই টাকা তুলতে পারবেন না।

ভারতীয় আয়কর আইন ১৯৬১ এর ৮০সি-র অধীনে একটি আর্থিক বর্ষে ফিক্সড ডিপোজিটে বিনিয়োগে ১.৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত কর ছাড়ের সুবিধা পাওয়া যায়। প্রবীণ নাগরিকদের ট্যাক্স-সেভিং ফিক্সড ডিপোজিটে কর ছাড়ের পাশাপাশি নিশ্চিত রিটার্ন এবং ডিআইসিজিসি দ্বারা মূলধন সুরক্ষার সুবিধা প্রদান করা হয়।

আরও পড়ুন- কোন ব্যাঙ্ক থেকে লোন নিলে সবচেয়ে কম সুদ গুনতে হবে? দেখে নিন তালিকা!

বিনিয়োগকারী পোস্ট অফিস কিংবা ব্যাঙ্কে এই এফডি খুলতে পারেন। পোস্ট অফিসে এই অ্যাকাউন্ট খুললে প্রবীণ নাগরিকরা ৫ বছরের আমানতের উপর ৬.৭০ শতাংশ রিটার্ন পেতে পারেন। আবার অন্য দিকে, বর্তমানে ট্যাক্স-সেভিং ফিক্সড ডিপোজিটে ৬.৩০ শতাংশ হারে সুদ দিচ্ছে এসবিআই।

সিনিয়র সিটিজেন সেভিংস স্কিম বা এসসিএসএস(Senior Citizen Savings Scheme/SCSS):

যাঁরা ফিক্সড ডিপোজিটের তুলনায় উচ্চ রিটার্ন এবং তার পাশাপাশি ট্যাক্স ছাড়ের সুবিধা পেতে চান, তাঁদের জন্য উপযুক্ত বিকল্প হল সিনিয়র সিটিজেন সেভিংস স্কিম বা এসসিএসএস।

প্রবীণ নাগরিকরা পোস্ট অফিসের এই প্রকল্পে ১ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ১৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ করতে পারবেন। এই স্কিমের অধীনে লগ্নিকারী আয়কর আইন ৮০সি সুবিধা পাবেন। বর্তমানে এসসিএসএস ৭.৪ শতাংশ হারে বার্ষিক করযোগ্য সুদ প্রদান করছে। যা ব্যাঙ্কগুলির দেওয়া সুদের হারের তুলনায় অনেক বেশি।

ত্রৈমাসিক ভিত্তিতে দেওয়া হয় সুদ। এই স্কিমের ম্যাচিওরিটি পিরিয়ড হল ৫ বছর। মেয়াদ পূরণের পরে চাইলে ৩ বছর সময় বাড়ানো যেতে পারে।

ন্যাশনাল পেনশন স্কিম বা এনপিএস (National Pension System/NPS):

ন্যাশনাল পেনশন স্কিম হল একটি সরকার সমর্থিত প্রকল্প। পেনশন নিয়ন্ত্রক ও উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (PFRDA) এই স্কিমটি পরিচালনা করে থাকে। এই বিকল্পে বিনিয়োগে ৮০সিসিডি (১) এবং ৮০ সিসিই-এর অধীনে ১.৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত কর ছাড়ের সুবিধা পাওয়া যাবে। এনপিএস করার বয়সসীমা হচ্ছে ১৮ বছর থেকে ৭০ বছর।

Published by:Suman Majumder
First published:

Tags: Investment

পরবর্তী খবর