Home /News /business /
Gold ETF: গোল্ড ইটিএফে বিনিয়োগে সুবিধার চেয়ে কী ঝুঁকি বেশি? যা বলছেন বিশেষজ্ঞরা...

Gold ETF: গোল্ড ইটিএফে বিনিয়োগে সুবিধার চেয়ে কী ঝুঁকি বেশি? যা বলছেন বিশেষজ্ঞরা...

গোল্ড ইটিএফ-এ বিনিয়োগ হতে পারে লাভজনক৷ প্রতীকী ছবি

গোল্ড ইটিএফ-এ বিনিয়োগ হতে পারে লাভজনক৷ প্রতীকী ছবি

আর্থিক উপদেষ্টারা বলেন, দীর্ঘমেয়াদি এবং লাভজনক লগ্নি (Investment) হিসেবে সোনার বিকল্প নেই (Gold ETF)।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: দু’বছরে গোল্ড ইটিএফ (Gold ETF) ফোলিও বৃদ্ধি পেয়েছে ৮ শতাংশ। ২০১৯-এর ডিসেম্বরে এর বাজারমূল্য ছিল ৪.২৩ লাখ। ২০২১-এর ডিসেম্বরে তা হয়েছে ৩২.০৯ লাখ। একই সময়ে গোল্ড ইটিএফ স্কিমগুলির এইউএম (AUM) বেড়েছে ২০০ শতাংশ। ৫,৭৬৮ কোটি (প্রায় ১৪.৮ মেট্রিক টনের সমান) থেকে হয়েছে ১৮, ৪০৫ কোটি (প্রায় ৩৭.৬ মেট্রিক টনের সমান)।

    আর্থিক উপদেষ্টারা বলেন, দীর্ঘমেয়াদি এবং লাভজনক লগ্নি (Investment) হিসেবে সোনার বিকল্প নেই। আর্থিক পোর্টফোলিওতে কোনও ঘাটতি থাকলে সেটাও পূরণ করে সোনা। সঙ্গে সঙ্কটকালে যোগায় স্থিতিশীলতা। তাই মুদ্রাস্ফীতি, অন্যান্য ঝুঁকি এবং মুদ্রার অবমূল্যায়নকে মাথায় রেখে সোনায় বিনিয়োগ যে কোনও পরিস্থিতিতে লাভজনক বলে মনে করেন বিনিয়োগকারীরা।

    আরও পড়ুন: অবসর জীবন সুরক্ষিত রাখতে এখনই পিপিএফের সঙ্গে আধার লিঙ্ক করুন, দেখে নিন প্রক্রিয়া!

    গোল্ড ইটিএফ কেনার অর্থ হল ইলেকট্রনিক বা ভার্চুয়াল (Electronic Form)আকারে সোনা কেনা। যা ডিম্যাট অ্যাকাউন্টে (Demat Account)জমা থাকে। গোল্ড ইটিএফের প্রতিটা ইউনিট বাস্তবিক সোনা দ্বারা সমর্থিত। অর্থাৎ কেউ ১ গ্রাম ভার্চুয়াল সোনা কিনলে তার জন্য একই পরিমাণ আসল সোনা রাখা থাকবে। এই প্রসঙ্গে আইসিআইসিআই প্রুডেনসিয়াল এএমসি-র প্রোডাক্ট ডেভেলপমেন্ট এবং স্ট্র্যাটেজি প্রধান চিন্তন হারিয়া বলেন, ‘বিনিয়োগকারী ট্রেড চলাকালীন যে কোনও সময় গোল্ড ইটিএফের কেনাবেচা করতে পারেন। কারণ ইক্যুইটি স্টকের মতো এটাও স্টক এক্সচেঞ্জের তালিকাভুক্ত’।

    আসল সোনায় বিনিয়োগে কিছু বাড়তি খরচ আছে। তুলনায় গোল্ড ইটিএফে লগ্নি লাভজনক। কারণ এখানে মেকিং চার্জ দিতে হয় না। হারিয়ার কথায়, ‘সোনার মান বা বিশুদ্ধতা নিয়ে বিনিয়োগকারীদের চিন্তা করার প্রয়োজন নেই। কারণ গোল্ড ইটিএফে বিনিয়োগ করার সময় একাধিক বিকল্প থাকে। কেউ এককালীন বিনিয়োগ করতে পারেন। আবার চাইলে সিস্টেমেটিক ইনভেস্টিং প্ল্যানের মাধ্যমে নিয়মিত ব্যবধানেও টাকা ঢালতে পারেন। বিশেষজ্ঞরা বলেন, গোল্ড ইটিএফে বিনিয়োগের সবচেয়ে বড় সুবিধা হল, সময় লাগে কম।

    আরও পড়ুন: শীঘ্রই ইনভেস্ট করুন গোল্ডে, ফের ৫৫,০০০ টাকা হতে পারে সোনার দাম

    বিনিয়োগ করা টাকা সরাসরি খাটানো হয় সোনায়। একটি গোল্ড ইটিএফে যে তহবিল সংগৃহীত হয়, তা দিয়ে সংশ্লিষ্ট ফান্ড সোনা কেনে। সোনার দামের ওঠাপড়ার সঙ্গে তাল মিলিয়ে ফান্ডের ইউনিটের দর বাড়ে-কমে। দোকান থেকে সোনা কেনার সময় তার খাত, দোকানের বিশ্বাসযোগ্যতা, বাজারদর থেকে কতটা বেশি দাম নেওয়া হচ্ছে তা বুঝে নিতে হয়। ইলেকট্রনিক বা ভার্চুয়াল সোনায় সেই চাপ নেই। বরং দরের পাশাপাশি বাড়তি হিসেবে মিলবে সুদ, সুরক্ষা।

    এএমএফআই-এর পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২০২১ সালে গোল্ড ইটিএফ পোর্টফোলিওর পরিমাণ ৯.৭ লাখ থেকে ৩ গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। এক্ষেত্রে বিনিয়োগকারী যত টাকা ঢালবেন এবং তা দিয়ে যতটা সোনা কেনা হবে, তার ভিত্তিতেই ইটিএফের ইউনিট নির্ধারিত হয়। সাধারণত প্রতিটি ইউনিট ১ গ্রাম সোনার হয়। তবে তা বদলাতে পারে।

    First published:

    Tags: Gold, Investment

    পরবর্তী খবর