Home /News /alipurduar /
Latest Bangla News|| রাস্তার ওপর হুড়মুড়িয়ে ভাঙল বটগাছ, যোগাযোগ বন্ধ কালচিনি-রাঙামাটির

Latest Bangla News|| রাস্তার ওপর হুড়মুড়িয়ে ভাঙল বটগাছ, যোগাযোগ বন্ধ কালচিনি-রাঙামাটির

Latest Bangla News: অবিরাম বৃষ্টির জেরে শুক্রবার ভোরে  রাস্তার ওপর ভেঙে পড়ল বহু প্রাচীন বটগাছ।চাঞ্চল্য আলিপুরদুয়ার জেলার কালচিনি রাঙামাটি রোড এলাকায়।

  • Share this:

    #আলিপুরদুয়ার: অবিরাম বৃষ্টির জেরে রাস্তার ওপর ভেঙে পড়ল বহু প্রাচীন বটগাছ। চাঞ্চল্য আলিপুরদুয়ার জেলার কালচিনি রাঙামাটি রোড এলাকায়। শুক্রবার ঘড়িতে ভোর সাড়ে চারটা। হঠাৎ এক বিকট আওয়াজে ঘুম ভাঙে এলাকাবাসীদের। বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয় এলাকার প্রতিটি বাড়িতে। এরপর ঘরের বাইরে বেরিয়ে চোখ কপালে ওঠে এলাকাবাসীদের।একটি বিশাল বটগাছ ভেঙে পড়েছে ১১ হাজার ভোল্টের তারে। পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তিনটি বাড়ি ও তিনটি দোকান।

    বট গাছ ভেঙ্গে রাস্তায় পড়ে যাওয়ায় বন্ধ কালচিনির সঙ্গে রাঙামাটির যোগাযোগ ব্যবস্থা। গাছটি ভেঙ্গে পড়ায় ১১ হাজার ভোল্টের বিদ‍্যুৎ-এর খুঁটি ভেঙ্গে পড়ে। যদিও এই ঘটনায় হতাহতের খবর নেই। আতঙ্কের ছাপ লক্ষ্য করা যায় এলাকাবাসীদের চোখেমুখে। রাস্তার ওপর বটগাছের পাশাপাশি ১১ হাজার ভোল্টের বৈদ্যুতিক তার পড়ে থাকায় ঘরবন্দী এলাকার বাসিন্দারা যাদের দোকান, ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তারা এলাকার অন্যান্য বাসিন্দাদের বাড়ি আশ্রয় নিয়েছেন বলে জানা যায়। বিদ্যুৎ দফতর, থানায় ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তা সম্ভব হচ্ছে না বলে এলাকাবাসীরা জানান।

    কুন্দন ঠাকুর নামের এক ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাবাসী জানান, "বাড়ির ছাদে বিকট শব্দের কিছু পড়ে যেতেই ঘুম ভেঙে যায়।বাইরে এসে দেখি রাস্তার ওপর বটগাছ ও এগারো হাজার ভোল্টের তার পড়ে আছে।বটগাছের একটি ডাল আমার বাড়ির ছাদে পড়ে ভেঙেছে একপাশ। ঘর থেকে না বেরিয়ে গেলে বিপদ্দজনক কিছু ঘটত।" এ দিকে বেলা বাড়তে থাকলেও এলাকায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে কেউ না আসায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসীরা। প্রত্যেকের বাড়িতে জ্বলেনি গ্যাস ওভেন। যাদের বাড়ি গাছের ডাল পরে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তারা এক কাপড়ে দাঁড়িয়ে রাস্তায়। সেন্ট্রাল ডুয়ার্সের রাঙামাটি এলাকার প্রায় হাজারের ওপরের মানুষ জরুরি কাজে আসতে পারছেন না কালচিনিতে। চিকিৎসা পরিষেবা, অন্যান্য সরকারি পরিষেবা নিতে রাঙামাটির জনগণকে আসতে হয় কালচিনিতে।

    রাঙামাটির কোনো ব্যক্তি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে কালচিনির লতাবাড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে আসতে হলে অনেকটা ঘুরপথে আনতে হবে।আর কালচিনির বিডিও অফিসে বিশেষ কাজে এলে একইভাবে ঘুরপথে আসতে হবে রাঙামাটির বাসিন্দাদের। তবুও কিছু মানুষ রাঙামাটি থেকে টোটো ধরে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কালচিনিতে আসছেন ভেঙে পড়া গাছ ও বৈদ্যুতিক তারের পাশ দিয়ে। এ ছাড়া আর উপায় নেই বলে রাঙামাটি এলাকার মানুষজন জানান। রাঙামাটি এলাকায় নেই কোনো চিকিৎসাকেন্দ্র। বিকল্প রাস্তা জয়গাঁর পাসাখা হয়ে কালচিনিতে আসতে হলে ঘুরতে হবে প্রায় দশ কিলোমিটার। ভাড়া গুনতে হবে অনেক। এমনকি মৃত্যু হয়ে যেতে পারে আশঙ্কাজনক রোগীর।

    অনন্যা দে

    Published by:Shubhagata Dey
    First published:

    Tags: Alipurduar

    পরবর্তী খবর