Home /News /west-bardhaman /
Paschim Bardhaman: রাঢ়বঙ্গের বনখেজুর ফিরিয়ে দিচ্ছে ফেলে আসা শৈশব

Paschim Bardhaman: রাঢ়বঙ্গের বনখেজুর ফিরিয়ে দিচ্ছে ফেলে আসা শৈশব

title=

হারিয়ে যাওয়া শৈশব ফিরিয়ে দিচ্ছে বুনো ফল। মোবাইল ফোনের স্ক্রিনে মুখ গুঁজে নয়, গ্রামীণ এলাকার কিছু কচিকাঁচারা তাদের শৈশব উদযাপন করছে একটু অন্যরকম ভাবে।

  • Share this:

    পশ্চিম বর্ধমান : হারিয়ে যাওয়া শৈশব ফিরিয়ে দিচ্ছে বুনো ফল। মোবাইল ফোনের স্ক্রিনে মুখ গুঁজে নয়, গ্রামীণ এলাকার কিছু কচিকাঁচারা তাদের শৈশব উদযাপন করছে একটু অন্যরকম ভাবে। গ্রীষ্মের দুপুরে গাছ থেকে ফল পেড়ে তা সরাসরি চালান করে দেওয়া হচ্ছে মুখে। ফলে গাছের আশেপাশে ঘোরাঘুরি করছে একাধিক কচিকাঁচা ছেলেমেয়ে। এমনই ছবির দেখা পাওয়া যাচ্ছে দুর্গাপুরের ফরিদপুর ব্লক এলাকায়। সেখানে নতুন করে গজিয়ে উঠেছে বেশ কিছু বন খেজুরের গাছ। জ্যৈষ্ঠ মাসে সেখানে থোকা থোকা অবস্থায় গাছ ভর্তি হয়ে ঝুলছে বন খেজুর। আর তা সংগ্রহ করতে গাছগুলির আশপাশে ভিড় লেগে রয়েছে স্থানীয় কচিকাঁচাদের। ফল পাড়তে বিশেষ পরিশ্রম করতে হচ্ছে না তাদের। হাতের নাগালের মধ্যেই রয়েছে বন খেজুরের থোকা।

    উল্লেখ্য, রাঢ়বঙ্গের বিভিন্ন এলাকায় বন খেজুরের দেখা পাওয়া যেত আগে। যদিও বর্তমানে নগরায়নের জেরে শহুরে এলাকায় ঝোপ - জঙ্গলের পরিমাণ কমে গিয়েছে। কমে গিয়েছে এই গাছের সংখ্যাও। তবে দুর্গাপুর পুরসভার অধীনস্থ ফরিদপুর ব্লক এলাকায় ফের গজিয়ে উঠেছে বন খেজুরের গাছ।

    আরও পড়ুনঃ নানান নৃত্যের আঙ্গিকে দুর্গাপুরে আয়োজিত মৈত্রী উৎসব

    যে খেজুর সংগ্রহ করতে ভিড় করছে স্থানীয় ছেলেমেয়েরা। বন খেজুর গাছগুলির উচ্চতা দুই থেকে তিন ফুটের বেশি হয় না। ফলে এই গাছগুলি থেকে খেজুর সংগ্রহ করতে সুবিধা হচ্ছে স্থানীয় ওই সমস্ত ছোটছোট ছেলেমেয়েদের। গ্রীষ্মের দুপুরে শৈশব উদযাপনের ছলে কচিকাঁচারা ভিড় করছে বন খেজুর গাছের গোড়ায়।

    আরও পড়ুনঃ চাকরি পুনর্বহালের দাবিতে বিক্ষোভ নিরাপত্তাকর্মীদের

    অত্যন্ত সুস্বাদু এই ফল। পুষ্টিগুণ রয়েছে যথেষ্ট। ফলে বন খেজর সংগ্রহের করতে মেতে উঠছে খুদেরা। সঙ্গে চলছে খুনসুটি, খেলাধুলো। এভাবেই হারিয়ে যাওয়া বন খেজুর ফিরিয়ে দিচ্ছে সেই হারিয়ে যাওয়া শৈশব।

    Nayan Ghosh
    First published:

    Tags: Durgapur, Paschim bardhaman

    পরবর্তী খবর