আজকের কাগজের সেরা খবর

প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷ তাছাড়া একাধিক কাগজও পড়ার মতো সময় কারোর হাতেই নেই ৷ তাই আসুন এক নজরে, একজায়গায় দেখে নিন কলকাতার বিভিন্ন কাগজের সেরা খবর গুলি ৷ বুধবার গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি হল-

প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷ তাছাড়া একাধিক কাগজও পড়ার মতো সময় কারোর হাতেই নেই ৷ তাই আসুন এক নজরে, একজায়গায় দেখে নিন কলকাতার বিভিন্ন কাগজের সেরা খবর গুলি ৷ বুধবার গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি হল-

প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷ তাছাড়া একাধিক কাগজও পড়ার মতো সময় কারোর হাতেই নেই ৷ তাই আসুন এক নজরে, একজায়গায় দেখে নিন কলকাতার বিভিন্ন কাগজের সেরা খবর গুলি ৷ বুধবার গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি হল-

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷ তাছাড়া একাধিক কাগজও পড়ার মতো সময় কারোর হাতেই নেই ৷ তাই আসুন এক নজরে, একজায়গায় দেখে নিন কলকাতার বিভিন্ন কাগজের সেরা খবর গুলি ৷ বুধবার গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি হল-

    anandabazar11

    ১)নারদে মুখ খুলে সতর্কিত দীনেশ নারদ-ঘুষ কাণ্ডে অভিযুক্ত দলীয় সাংসদদের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যেই মুখ খুলেছিলেন তিনি। ওই ঘটনায় অভিযুক্ত সাংসদদের নির্বাচনী প্রচার থেকে দূরে থাকারও পরামর্শ দিয়েছিলেন। নারদ-বিদ্ধ সাংসদরা তো বটেই, দীনেশের এই অবস্থান ভাল ভাবে নেননি খোদ দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। যার ফলে ব্যারাকপুরের তৃণমূল সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদীকে মঙ্গলবার সতর্ক করে দিল তৃণমূলের সংসদীয় বোর্ড। আর এতে বড় ভূমিকা নিলেন নারদ-বিদ্ধ সাংসদরাই! দীনেশকে আপাতত সতর্ক করে ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হলেও ভবিষ্যতে একই অভিযোগ উঠলে সাসপেন্ড করার কথা ভেবে রেখেছেন তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব।

    ২) ছেলেকে পিটিয়ে মারল ওরা, বৃথা কান্না মায়ের লোকগুলোর পায়ে পড়ে আছাড়িপিছাড়ি কাঁদছিলেন মা— ‘‘ওকে ছেড়ে দাও গো। এ ভাবে মারলে মরে যাবে! ও কেন মোষ চুরি করতে যাবে? ও তো কলেজে পড়ে।’’ লোকগুলো উল্টে মায়েরই চুলের মুঠি ধরল। হিড়হিড় করে টেনে সরিয়ে দিতে দিতে লাগিয়ে দিল দু-চার ঘা। তেইশ বছরের ছেলে তখন পড়ে রয়েছে নিঃসাড়। মুখ-চোখ ঢেকে রক্তের স্রোত। তবু উন্মত্তের মতো পিটিয়েই চলেছে পাশের পশ্চিমপাড়া গ্রামের একদল লোক। বলছে, তাদের গ্রামে কালীপুজোয় বলির জন্য কিনে আনা মোষটা নাকি চুরি করেছে এই ছেলেই। বাঁচাতে এসে মায়ের সঙ্গে মাসিও তখন বেদম মার খাচ্ছেন। ভারী টর্চ দিয়েও তাঁদের মারতে কসুর করছে না জনতা। ডায়মন্ড হারবারের পূর্বপাড়া গ্রামে এই মাসির বাড়িতেই গৃহপ্রবেশের নেমন্তন্ন খেতে আসা। হঠাৎ ঘিরে ধরল লোকগুলো। পেটাতে পেটাতে নিয়ে এল পশ্চিমপাড়ায়। এ বার মাকে দিয়ে সাদা কাগজে লেখানো হল মুচলেকা— ১ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। আলুথালু মা সই করে দিলেন। মার থামল। রক্তে মাখামাখি কৌশিক পুরকাইত ওরফে শুভকে পাঁজাকোলা করে তুলে ডায়মন্ড হারবার জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলেন বাড়ির লোকেরা। আশা দিলেন না ডাক্তারবাবুরা। অগত্যা গভীর রাতে এম আর বাঙ্গুর হাসপাতাল। গড়িয়াহাটের আইটিআই কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রের প্রাণ বেরিয়ে যায় সেখানেই।

    ৩)মার্কশিট দিতে সাইকেলের নম্বর চাইল স্কুল সাইকেল দেখাও, মার্কশিট নাও—মাধ্যমিক পরীক্ষার ফল প্রকাশের দিন একটি স্কুলের এই ফরমানে সবুজ সাথী নিয়ে ফের বিড়ম্বনায় সরকার। মঙ্গলবার শিলিগুড়ি গার্লস হাইস্কুলে সকালে স্কুলে রেজাল্ট আনতে গিয়ে ছাত্রীরা দেখে নোটিস বোর্ডে বিজ্ঞপ্তি ঝুলছে, সবুজ সাথী প্রকল্পে পাওয়া সাইকেলের ফ্রেমের নম্বর আনতে হবে, তবেই মার্কশিট পাওয়া যাবে। তাই দেখে কেউ কেঁদে ফেলে, কেউ ছুটে বাড়ি চলে যায়। কয়েকজনকে বাড়ি থেকে সাইকেলের নম্বর এনে তা জমা দিতে বাধ্য করা হয় বলেও অভিযোগ। অভিভাবকেরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। খবর পৌঁছয় শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছেও।

    ৪)বিরাট আমাকে দারুণ কাজে লাগাচ্ছে, বলছেন ওয়াটসন এক দিকে এক রানে টানটান উত্তেজনার ম্যাচ জিতে আত্মবিশ্বাসের এভারেস্টে থাকা রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। অন্য দিকে পরপর হারের ধাক্কায় বিধ্বস্ত গত বারের চ্যাম্পিয়ন মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। আজ, বুধবার বেঙ্গালুরুতে মুখোমুখি দুই দলের মধ্যে আপাতত মিল কম, অমিল বেশি। বিরাট কোহালির আরসিবি দলের অন্যতম প্রধান ভরসা শেন ওয়াটসন যা বলছেন, শুনলে মনে হবে কিংগস ইলেভেন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে সোমবার জেতা গোটা টিমকে আত্মবিশ্বাসের অন্য পর্যায়ে নিয়ে গিয়েছে। ‘‘এক রানে ম্যাচ জিততে পারাটা উপহারের মতো। আইপিএলের মতো টুর্নামেন্টে প্লে-অফে ওঠার সুযোগ করতে গেলে এ রকম ক্লোজ ম্যাচ জিততেই হবে,’’ সোমবার ম্যাচের পর বলছিলেন শেন ওয়াটসন। সঙ্গে যোগ করছেন, ‘‘প্লে-অফ যুদ্ধে যাওয়ার এটা একটা ভাল শুরু হল।’’

    First published: