• Home
  • »
  • News
  • »
  • uncategorized
  • »
  • COVAXIN VS COVISHIELD VS 7 OTHERS HOW WELL DOES YOUR COVID SHOT WORK AGAINST ALL VARIANTS DD TC

কোভ্যাকসিন, কোভিশিল্ড-সহ গোটা বিশ্বের অন্য ৭টি করোনা ভ্যাকসিনগুলি কেমন? কী বলছে সমীক্ষা?

How Well Does Your Covid Shot Work Against All Variants -Photo - File

বিশ্বে এখনও পর্যন্ত ৯ ধরনের করোনা ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনার প্রথম ঢেউ ও দ্বিতীয় ঢেউয়ে নাকাল হয়েছে গোটা বিশ্ব। নিজের কাছের মানুষদের মৃত্যু দেখে ক্লান্ত হয়েছে মানুষ। সমীক্ষা বলছে, এখনও পর্যন্ত গোটা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৮৩.০১ মিলিয়নের বেশি মানুষ। মৃত্যু হয়েছে ৩.৯৬ মিলিয়নের বেশি মানুষ। এতকিছুর পরেও, ভারত-সহ বিদেশের ভ্যাকসিনগুলি আশানুরূপ ফল করছে বলেই মত পোষণ করেছেন বিশিষ্ট চিকিৎসকরা। কোভিড ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা কতটা তা নির্ধারণের জন্য ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারকরা একটি গবেষণা করে। মোট দুটি শ্রেণিতে কিছু মানুষকে ভাগ করে। একশ্রেণির মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়। অন্যশ্রেণির মানুষদের ভ্যাকসিন দেওয়া হয় না। একটি নির্ধারিত সময় এসে গবেষকরা দেখেন ভ্যাকসিন না নেওয়া মানুষদের থেকে ভ্যাকসিন নেওয়া মানুষদের করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি কমে গিয়েছে।

বিশ্বে এখনও পর্যন্ত ৯ ধরনের করোনা ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (World Health Organization)। কোন ভ্যাকসিনে কী কার্যকারিতা তা নীচে আলোচনা করা হল।

পিফাইজার-বায়োনটেক (Pfizer-BioNTech) - ২০২০ এর ১১ ডিসেম্বর, করোনার প্রথম ভ্যাকসিন হিসাবে গোটা বিশ্বের সামনে আসে পিফাইজার-বায়োনটেক। করোনার আলফা ভ্যারিয়েন্ট-কে জব্দ করতে ৯৫% কার্যকরী বলে গবেষণায় উঠে এসেছে। পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ডের (Public Health England)-এর মতে যাঁদের মধ্যে ভ্যাকসিনের দুটো ডোজ হয়ে গিয়েছে তাঁদের ক্ষেত্রে ৮৮% কর্যকর এই ভ্যাকসিন । অন্যদিকে, যারা বেশি অসুস্থ তাঁদের ক্ষেত্রে এই ৯৬% কর্যকর ।

মোদার্না (Moderna) - পিফাইজারের আসার প্রায় এক সপ্তাহ পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জরুরী ব্যবহারের জন্য মোদর্না ভ্যাকসিনকে অনুমোদন দেয়। মোদার্না হল এমআরএনএ (mRNA) ভ্যাকসিন। এটি পিফাইজার বায়োনটেকের প্রযুক্তি ব্যবহার করে বানানো হয়েছিল। এই ভ্যাকসিনের প্রতিরোধ ক্ষমতা অল্পবয়সীদের জন্য ৯৪.১% এবং ৬৫ বছরের ওপরের প্রবীণদের জন্য ৮৬% কার্যকর। গবেষণা বলছে এই ভ্যাকসিন করোনার আলফা এবং বিটা ভ্যারিয়েন্টকে পরাস্ত করতে সক্ষম।

জনসন অ্যান্ড জনসন (Johnson & Johnson) - ২০২১ এর ফেব্রুয়ারির ২৭ তারিখ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এর অনুমোদন দেয়। পিফাইজার এবং মোদার্না এর তুলনায় এই ভ্যাকসিন সহজে সংরক্ষণ করা যায়। ফ্রিজের সাধারণ তাপমাত্রায় এটা ঠিকঠাক থাকে। এই ভ্যাকসিনের একটি শট-ই প্রয়োজন পড়ে। এর ফলে ভ্যাকসিনেশন প্রক্রিয়া সহজে হয়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এর কার্যকারিতা সবথেকে বেশি বলে মানা হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সর্বশেষ একটি সমীক্ষায় বলা হয়েছে, সবক্ষেত্রে এর কার্যকারিতা ৬৪%।

অ্যাস্ট্রাজেনেকা (AstraZeneca) - জনশন অ্যান্ড জনশন-এর মতই ট্রায়াল শেষ করে ২০২১ এর মার্চ মাসে বাজারে আসে। এই ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ নেওয়া যায়। সাধারণত, সবক্ষেত্রে ৭৬% কার্যকর এই ভ্যাকসিন। গুরুতর রোগের বিরুদ্ধে ১০০% কাজ করে ভ্যাকসিনটি। ৬৫ বছরের বেশি মানুষদের ক্ষেত্রে ৮৫% কার্যকরী ভ্যাকসিন এটি।

নোভাভ্যাক্স (Novavax) - গ্রেট ব্রিটেন (Great Britain) ও সাউথ আফ্রিকা-য় (South Africa) করোনার যে মিউটেন্টের সংক্রমণ হয়েছে, সেগুলির ক্ষেত্রে ৯১% ঝুঁকি কম করতে সাহায্য করেছে। যাদের শরীরে গুরুতর রোগ রয়েছে তাঁদের ক্ষেত্রে এই ভ্যাকসিন ৯৩% কার্যকরী বলে দাবি করেছে গবেষকরা।

কোভিশিল্ড (Covishield) - কোভিশিল্ড ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া (Serum Institute of India) ম্যানুফেকচার করেছে। কোভিশিল্ডের কার্যকারিতা নিয়ে সন্দেহ অনেক কম। অল্প বয়সীদের জন্য ৭৬% কার্যকর। ১২ সপ্তাহ পর এই ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা ৮২% পর্যন্ত থাকে।

স্পুটনিক ভি (Sputnik V) - রাশিয়ান এই ভ্যাকসিন তৈরি করেছে মস্কোর গামালিয়ার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ এপিডেমিওলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজি (Gamaleya National Research Institute of Epidemiology and Microbiology in Moscow)। হায়দরাবাদের ডঃ রেড্ডির ল্যাবরেটরি-তে (Dr Reddy’s Laboratories, Hyderabad.) এই ভ্যাকসিনের ট্রায়াল হয়। ট্রায়াল রিপোর্টে উঠে আসে স্পুটনিক ভি ৯১% কার্যকর।

কোভ্যাকসনি (Covaxin) - ভারত বায়োটেকের (Bharat Biotech) তৈরি কোভ্যাকসিন সবক্ষেত্রে ৭৭.৮% কার্যকর। করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের (Delta variant) ক্ষেত্রে এই ভ্যাকসিন ৬৫.২% কার্যকর। যাদের শরীরে অন্য রোগ রয়েছে তাদের জন্য ৯৩.৪%।

সিনোফার্ম (Sinopharm) - চীনা ভ্যাকসিন সিনোফার্ম ইন্দোনেশিয়া (Indonesia), ব্রাজিল (Brazil), চীনের (China) মানুষদের ক্ষেত্রে কার্যকরী বলে প্রমাণিত হয়েছে। গবেষকরা কিছু সমীক্ষায় দেখেছে করোনার ডেন্টা ভেরিয়েন্ট রুখতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করতে পারন সিনোফার্ম।

Published by:Debalina Datta
First published: